শনিবার | সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০ | ৪ আশ্বিন ১৪২৭

টকিজ

করোনায় বলিউডের ৮০০ কোটি রুপি ক্ষতির শঙ্কা

মুস্তাফিজ রনি

লাইট! ক্যামেরা! অ্যাকশন! চলচ্চিত্রের সঙ্গে সম্পৃক্ত শব্দগুলো ভেসে আসে ক্যামেরার পেছন থেকে প্রেক্ষাগৃহের বড় পর্দায় আলো ঝলমলে বা ঘণ্টার দৃশ্যগুলোর জন্য ক্যামেরার পেছনে থাকা মানুষগুলোই সবচেয়ে বেশি পরিশ্রম করে পুরো বিনোদন জগৎ টিকিয়ে রেখেছে পর্দার পেছনে কাজ করা মানুষগুলো তবে বর্তমান মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে পৃথিবীর বিনোদন জগৎ খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে ক্যামেরার সামনে পেছনের মানুষ, দর্শক, পরিবেশকসহ প্রায় সব অঙ্গনের মানুষের মাঝেই এর প্রভাব পড়েছে সেই প্রভাব বেশ ভালোভাবেই জেঁকে বসেছে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতেও

বলিউডে এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্র উৎসব সিনেমার শুটিং আপাতত স্থগিত করা হয়েছে এছাড়া কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ থাকার কারণে বিভিন্ন চলচ্চিত্র মুক্তির তারিখ পিছিয়ে দেয়া হয়েছে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার এই সময়ে মুক্তি দেয়ার কারণে বলিউডের বাঘী থ্রি আংরেজি মিডিয়াম ছবি দুটি বেশ লোকসানের সম্মুখীন হয়েছে বলিউড ইন্ডাস্ট্রি এখন পুরো ভারতের মতোই লকডাউন চলচ্চিত্র পরিষদ, টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রি, প্রযোজনা পরিষদ, পরিচালক পরিষদসহ সবার সম্মিলিত সিদ্ধান্তে ১৫ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত শুটিং, এডিটিংসহ সব ধরনের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে

এদিকে বলিউডের প্রায় সব বড় তারকাই পুরো দেশবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানাচ্ছেন

কারা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত?

করোনার প্রভাবে ক্যামেরার পেছনের মানুষগুলো, নির্দিষ্ট করে বললে প্রযোজনা বিভাগের সঙ্গে যুক্ত লাইটম্যান, স্পট বয়, ইলেকট্রিশিয়ান, স্টান্টম্যান, ছুতারসহ অন্য কলাকুশলীরা সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এখন যাদের কাঁধে ভর করে পরিচালক বলতে পারেন লাইট ক্যামেরা অ্যাকশন তারা সবাই অনেকটা দিনমজুরের মতো তাদের আয় নির্ভর করে কোনো প্রজেক্টের চুক্তি এবং তার জন্য কত ঘণ্টা বা কতদিন তাকে কাজ করতে হবে, তার ওপর চলাচলের জন্যও তাদেরকে নির্ভর করতে হয় গণপরিবহনের ওপর তাই বলিউড লকডাউন হওয়ার পর সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত মূলত তারাই


বলিউডের বাণিজ্য বিশ্লেষক তরণ আদর্শ সম্প্রতি ইন্ডিয়া টুডেতে দেয়া এক সাক্ষাত্কারে বলেন, যারা বড় অভিনেতা, পরিচালক, প্রযোজক, তাদের তো সমস্যা নেই কিন্তু যারা চুক্তি হিসেবে বা দিন হিসেবে কাজের অর্থ পান, তারা কী খাবেন? যদিও মহামারীর পরিস্থিতি আমাদের হাতে নেই কিন্তু সবাই মিলে উদ্যোগ নিলে ভুক্তভোগীদের রক্ষা করা সম্ভব

চলচ্চিত্র সমালোচক কোমল নেহতা অবশ্য অন্য আহ্বান জানিয়েছেন এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলিউডের সব ক্যাটাগরির অভিনেতা-অভিনেত্রী পরিচালকদের এগিয়ে আসতে অনুরোধ করেছেন তার মতে শাহরুখ খান, সালমান খান, আমির খান, দীপিকা পাড়ুকোনসহ অন্যরা যদি সবাই এক বা দেড় কোটি রুপি করে দেন, তবে এসব ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ব্যবস্থা নেয়া সহজ হবে

বলিউডের বেশ কয়েকটি সংগঠন এরই মধ্যে এগিয়ে এসেছে প্রডিউসারস গিল্ড অব ইন্ডিয়া, দ্য ফেডারেশন অব ওয়েস্টার্ন ইন্ডিয়া সিনে এমপ্লয়িসহ প্রতিটি সংগঠনই এসব দিনমজুর শ্রেণীর লোকজনের পাশে দাঁড়িয়েছে ২২ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত রেশন, আর্থিক সহযোগিতা, ওষুধসহ অন্যান্য সহযোগিতার ঘোষণা দিয়েছে

সিনেমা মুক্তি নিয়ে অনিশ্চয়তা

এরই মধ্যে বাঘী থ্রি আংরেজি মিডিয়াম করোনাভাইরাসের কারণে লোকসানের সম্মুখীন হয়েছে তাই মার্চ এপ্রিলের জন্য নির্ধারিত বড় বাজেটের প্রায় সব ছবির মুক্তি আপাতত স্থগিত রাখা হচ্ছে এমনকি বাঘী থ্রি আংরেজি মিডিয়াম ছবি দুটি ৩১ মার্চ সিনেমা হল খুললে আবার মুক্তির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে পাশাপাশি ২৪ মার্চ মুক্তির অপেক্ষায় থাকা অক্ষয় কুমারের সূর্যবংশী, আগামী এপ্রিল হাতি মেরে সাথী, ১০ এপ্রিল রণবীর সিংয়ের ৮৩ এবং ২০ মার্চ সন্দীপ অর পিংকি ফারার ছবিগুলো মুক্তির কথা থাকলেও সবগুলোই আপাতত স্থগিত করা হয়েছে অবস্থা স্বাভাবিক হওয়ার পরই এসব ছবির মুক্তি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে

কেমন ক্ষতির সম্মুখীন বলিউড?

যেহেতু পুরো বলিউড ইন্ডাস্ট্রি, প্রেক্ষাগৃহসবকিছুই ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ, তাই বড় ধরনের আর্থিক লোকসানের সম্মুখীন হতে চলেছে বলিউড চলচ্চিত্র বিশ্লেষকদের মতে, এই ক্ষতি প্রায় ৭০০ থেকে ৮০০ কোটি রুপি হবে এর পাশাপাশি করোনা ভাইরাস বিশ্ব অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলার কারণে পুরো বছরেই বলিউডের ওপর সে প্রভাব থাকবে গত বছরের তুলনায় বছর বলিউডের আয় ছবি মুক্তির ওপরও প্রভাব পড়বে

তবে হল মালিকরাও কম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন না সব বড় শহরের প্রেক্ষাগৃহগুলো এখন বন্ধ তা সত্ত্বেও কর্মচারীদের বেতন, বিদ্যুৎ বিলসহ আনুষঙ্গিক খরচ বহন করতে হচ্ছে শুধু দিল্লির হল মালিকরাই বন্ধ থাকা এই সময়ে কোনো আয় না করেও ২০ থেকে ৩০ লাখ রুপি লোকসান গুনবেন বলে তারা জানিয়েছেন তবে দ্রুত যদি পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয় এবং বছরের বড় বাজেটের ছবিগুলো যদি ভালো ব্যবসা করতে পারে, সেক্ষেত্রে  বলিউড এবং হল মালিক উভয়ই তাদের ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নিতে পারবেন তবে কবে নাগাদ অবস্থা স্বাভাবিক হবে আর কবে আবার বলিউড চাঙ্গা হবে, তার নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারছেন না

 

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন