শনিবার | জানুয়ারি ২২, ২০২২ | ৯ মাঘ ১৪২৮

শেয়ারবাজার

তিন প্রান্তিকে রবির নিট মুনাফা বেড়েছে ৪৪ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চলতি ২০২১ হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর) পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত টেলিযোগাযোগ খাতের বহুজাতিক কোম্পানি রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ১৬৭ কোটি টাকা কর পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে। যেখানে এর আগের বছরের একই সময়ে নিট মুনাফা ছিল ১১৬ কোটি টাকা। এ সময়ে কোম্পানিটির নিট মুনাফা বেড়েছে ৪৪ শতাংশ।

তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা যায়, এ বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসে রবির রাজস্ব আয় দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৯৬ কোটি টাকায়। যেখানে এর আগের বছরের একই সময়ে রাজস্ব আয় ছিল ৫ হাজার ৬৪৪ কোটি টাকা। এ সময়ে কোম্পানিটির রাজস্ব আয় বেড়েছে ৮ শতাংশ। চলতি হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩২ পয়সা, যা এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ২৫ পয়সা।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে রবির রাজস্ব আয় হয়েছে ২ হাজার ৮৫ কোটি টাকা। যেখানে এর আগের বছরের একই সময়ে কোম্পানিটির রাজস্ব আয় ছিল ১ হাজার ৯৩৩ কোটি টাকা। এ সময়ে কোম্পানিটির রাজস্ব আয় বেড়েছে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির কর পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে ৮৬ কোটি টাকা। যেখানে এর আগের বছরের একই সময়ে নিট মুনাফা ছিল ৩৮ কোটি টাকা। এ সময়ে কোম্পানিটির নিট মুনাফা বেড়েছে ১২২ শতাংশ। তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১৭ পয়সা, যা এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৮ পয়সা।

চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের তুলনায় তৃতীয় প্রান্তিকে রবির ফোরজি গ্রাহক সংখ্যা বেড়েছে ১২ দশমিক ৭ শতাংশ। গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় এ সময়ে কোম্পানিটির ফোরজি গ্রাহক সংখ্যা বেড়েছে ৫১ শতাংশ। মোট ৫ কোটি ৩০ লাখ গ্রাহকের মধ্যে প্রায় ২ কোটি ২৪ লাখ গ্রাহক ফোরজি সেবার আওতায় এসেছে। ২০২০ সালের তৃতীয় প্রান্তিকের তুলনায় এ বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে রবির গ্রাহক সংখ্যা ৫ দশমিক ৮ শতাংশ বেড়েছে। চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের তুলনায় তৃতীয় প্রান্তিকে রবির গ্রাহক সংখ্যা বেড়েছে ২ দশমিক ৩ শতাংশ।  চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে ৬৫০ দশমিক ৭ কোটি টাকা মূলধন বিনিয়োগ করার মাধ্যমে বছরের প্রথম নয় মাসে রবির মোট মূলধন বিনিয়োগ ১ হাজার ৩৮৬ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে।

কোম্পানির আর্থিক ফলাফল সম্পর্কে রবি আজিয়াটার প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) ও ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এম রিয়াজ রশীদ বলেন, এ বছরের প্রতি প্রান্তিকেই আমাদের মুনাফা ক্রমাগত বাড়ার কারণে আমরা খুবই আনন্দিত। তবে, এটা খুবই হতাশাজনক যে প্রথম নয় মাসে আমাদের কর পরবর্তী মুনাফা ১৬৭ কোটি টাকার পরিবর্তে ২৮৯ কোটি টাকা হতে পারত, যদি ২ শতাংশ ন্যূনতম টার্নওভার কর আমাদের উপর আরোপ করা না হতো। এতে আমাদের শেয়ারহোল্ডাররা কোম্পানিতে তাদের বিনিয়োগের প্রাপ্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

গত বছর পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত রবি আজিয়াটার ৬১ দশমিক ৮২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে মালয়েশিয়াভিত্তিক আজিয়াটা গ্রুপ বারহাদের কাছে। এছাড়া ভারতী এয়ারটেলের কাছে ২৮ দশমিক ১৮ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে কোম্পানিটির ১০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন