বৃহস্পতিবার | অক্টোবর ২১, ২০২১ | ৬ কার্তিক ১৪২৮

শিল্প বাণিজ্য

বাণিজ্য বাড়াতে দেশে দক্ষ মধ্যস্থতাকারী গড়ে তুলতে হবে —বাণিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের রফতানিতে ৮৫ শতাংশ অবদান রাখছে তৈরি পোশাক শিল্প। আমাদের এখন রফতানি পণ্যে বৈচিত্র্য আনার সময় হয়েছে। আগামী দু-তিন বছরের মধ্যে দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার দুই অংকে নেয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। ২০২১ সালের মধ্যে দেশের রফতানির আকার ৬ হাজার কোটি ডলারে নেয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। বাণিজ্য বাড়াতে দেশে প্রচুর দক্ষ মধ্যস্থতাকারী গড়ে তুলতে হবে।

গতকাল রাজধানীর একটি হোটেলেবাংলাদেশ ট্রেড পলিসি অ্যান্ড নেগোসিয়েশন ক্যাপাসিটি বিল্ডিং সাপোর্ট প্রজেক্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট (পিআরআই) ও ওভারসিস ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট (ওডিআই) যৌথভাবে প্রকল্পটি হাতে নিয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব তপন কান্তি ঘোষ, ওডিআই-পিআরআই কনসোর্টিয়ামের টিম লিডার ডার্ক উইলেম টে ভেল্ডে, পিআরআইয়ের চেয়ারম্যান ড. জাইদি সাত্তার ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শরিফা খান।

বাণিজ্যমন্ত্রী আরো বলেন, ২০২৪ সালে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবে। সে সময় আমাদের নতুন অনেক সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে। এ পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদের আগে থেকেই প্রস্তুতি রাখতে হবে। বাণিজ্যের মৌলিক বিষয়গুলোয় দক্ষ হয়ে ওঠার এখনই সর্বোত্তম সময়। আমাদের টেকনিক্যাল বিষয়ে দক্ষ মানুষ প্রয়োজন। তারাই আমাদের উন্নয়নকে আরো ত্বরান্বিত করবে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেন, আমাদের প্রথমত অগ্রাধিকারমূলক বাজার সুবিধার বিষয়ে গুরুত্ব দিতে। এরপর অন্যান্য বিষয়ের দিকে মনোযোগ দিতে হবে। বাণিজ্য মধ্যস্থতায় সক্ষমতা বাড়াতে আমাদের নতুন এ প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, এর মাধ্যমে কর্মকর্তারা বাণিজ্য অংশীদারদের সঙ্গে সঠিক মধ্যস্থতায় দক্ষ হয়ে উঠবে।

ওডিআই-পিআরআই কনসোর্টিয়ামের টিম লিডার ডার্ক উইলেম টে ভেল্ডে বলেন, এ ধরনের একটি প্রকল্পের অংশীদার হতে পেরে আমরা আনন্দিত। বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে বাণিজ্য মধ্যস্থতা বিষয়ে আমরা সব ধরনের সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত। বাণিজ্য বাড়াতে আমাদের একই সঙ্গে চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনার দিকে তাকাতে হবে।

পিআরআইয়ের চেয়ারম্যান ড. জাইদি সাত্তার বলেন, সরকারি কর্মচারীদের সবাই বাণিজ্য মধ্যস্থতা বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হয়ে উঠবে, আমরা এমনটা আশা করি না। তবে তাদের অবশ্যই এ বিষয়ে মৌলিক ধারণা থাকা প্রয়োজন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন