বৃহস্পতিবার | আগস্ট ১৩, ২০২০ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭

টকিজ

লকডাউনে মাথা গোঁজার মতো বাড়ি থাকায় সন্তুষ্ট শ্রুতি হাসান

ফিচার ডেস্ক

বাবা কমল হাসানের গান আরিভুম আনবুম নিয়ে ব্যস্ত দক্ষিণী সিনেমা বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রুতি হাসান। কভিড-১৯-এর সময়ে আশা ইতিবাচক ভাবনা নিয়ে তৈরি গানে শিল্পী হিসেবেও রয়েছেন শ্রুতি। গানটির ভিডিওতে শ্রুতি ছাড়াও অনিরুদ্ধ রবিচন্দ্র, দেবী শ্রী প্রসাদ, শঙ্কর মহাদেবন, বোম্বে জয়শ্রী, সিদ্ধার্থ, লিডিয়ান, আন্দ্রেয়া মুগেনের ঝলক রয়েছে।

ডিএনএকে দেয়া এক সাক্ষাত্কারে শ্রুতি গানটি নিয়ে তার অভিজ্ঞতার কথা বলেন। তিনি তার ভক্তদের সংবেদনশীলতা মমত্ববোধ প্রদর্শন করার জন্য অনুরোধ করেন, যা গানটির কথায়ও উল্লেখ রয়েছে। শ্রুতি আরো বলেন, লকডাউনের সময় যদি কখনো আমার মন খারাপ হয়, আমি ভাবি যে মাথা গোঁজার মতো বাড়ি রয়েছে আমার, যা অনেকের নেই।

শ্রুতি হাসানের সঙ্গে ডিএনএর কথোপকথনের কিছু অংশ তুলে ধরা হলো:

গানের জন্য আপনার বাবার সঙ্গে কাজ করেছেন। অভিজ্ঞতাটা কেমন ছিল?

বাবার সঙ্গে গানের কাজ করতে পারাটা সত্যিই দুর্দান্ত ছিল। দুর্ভাগ্যক্রমে আমার সঙ্গে আমার সব রেকর্ডিং সরঞ্জাম ছিল না, তাই গানটিকে যথাযথভাবে রেকর্ড করতে পারা আমার জন্য চ্যালেঞ্জ ছিল।

গান এবং কাজ করার সময় আপনার অনুভূতি সম্পর্কে আরো বলুন?

আরিবুম আনভুম গানটি সংবেদনশীলতা, সহানুভূতি প্রেম নিয়ে বানানো। আমি মনে করি গানের কথাগুলো এর সবচেয়ে শক্তিশালী দিক। পাশাপাশি গানটি যে উদ্দেশ্যে বানানো সেই ভালো উদ্দেশ্যটি সমর্থন করার জন্য এতজন শিল্পী একত্র হয়েছেন।

লকডাউন কি হাসান পরিবারকে আগের চেয়ে আরো কাছাকাছি

নিয়ে এসেছে?

আমি অবশ্যই তাই মনে করি। আমার বাবা এবং আমি এখন প্রায়ই কথা বলি। আমার বোনের সঙ্গেও একই অবস্থা। যোগাযোগের ক্ষেত্রে আধুনিক প্রযুক্তি আশীর্বাদস্বরূপ কাজ করছে। লকডাউনের এই সময়টি আমাদের সম্পর্ককে এক নতুন উপায়ে পুনরুদ্ধার করেছে।

গানটিতে আপনার অবদান কী ছিল এবং গানটি থেকে কী পেলেন?

এমন একটি গানের অংশ হতে পেরে আমি সত্যিই খুশি। গানের অন্যান্য শিল্পীর প্রতি আমার শ্রদ্ধা ভালোবাসা রয়েছে, তাই তাদের সঙ্গে কাজ করতে পেরে খুব ভালো লাগল। আমি খুব খুশি যে বাবার গান সবাই অনেক পছন্দ করেছেন।

এমন পরিস্থিতিতে আপনার ভক্তদের উদ্দেশে কিছু বলতে চান?

সবাইকে ধৈর্য ধরতে অনুরোধ করছি।

 সূত্র: ডিএনএ

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন