রবিবার | নভেম্বর ২৮, ২০২১ | ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

শেয়ারবাজার

মোবাইল অ্যাপে ফি নির্ধারণ

প্রতি মাসে ৬০ হাজার ডলারের বেশি খরচ ডিএসইর

নিজস্ব প্রতিবেদক

পুঁজিবাজারে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে লেনদেনকারী বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) হিসাবধারীদের প্রতি মাসে ১০০ টাকা করে সার্ভিস চার্জ নির্ধারণ করেছে দেশের প্রধান এক্সচেঞ্জ ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম দিন অর্থাৎ আগামী জুলাই থেকে চার্জ কার্যকর হবে বলে জানান তারা এদিকে মোবাইল অ্যাপের চার্জ বাবদ প্রতি মাসে ডিএসই তার ভেন্ডরকে ৬০ হাজারের বেশি ডলার পরিশোধ করে আসছে তাই অ্যাপ ব্যবহারকারীদের জন্য এক্সচেঞ্জটি ফি নির্ধারণ করে দিয়েছে বলে জানিয়েছে

বিষয়ে ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) আব্দুল মতিন পাটওয়ারি বণিক বার্তাকে বলেন, বর্তমানে ডিএসইর মোবাইল অ্যাপ রেজিস্ট্রেশনকারীর সংখ্যা ৫৪ হাজারের বেশি কিন্তু লেনদেনের ক্ষেত্রে রেকর্ড অনুযায়ী এর শতাংশের মতো বিনিয়োগকারীকে পাওয়া যায় বাকি সবাই শুধু অ্যাপটি খুলে রাখে যে কারণে সবাইকে লেনদেনের সময় সমস্যায় পড়তে হয় এদিকে মোবাইল অ্যাপটি চালু হওয়ার পর থেকে রেজিস্ট্রেশনকৃত প্রতি একজন বিনিয়োগকারীর জন্য ডিএসইকে চার্জ ভ্যাট বাবদ মোট দশমিক ২৫ ডলার পরিশোধ করতে হচ্ছে অ্যাপ চালু হওয়ার পর থেকে এথন পর্যন্ত খরচ ডিএসই ভর্তুকি দিয়ে আসছে তাই লেনদেনের সময় মোবাইল অ্যাপের সমস্যা কিছুটা ডিএসইর খরচ কমাতে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে

তিনি জানান, বর্তমানে অ্যাপে রেজিস্ট্রেশনকৃত বিনিয়োগকারীর সংখ্যা অনুযায়ী প্রতি মাসে ডিএসইর ৬০ হাজারের বেশি ডলার ভেন্ডরকে পরিশোধ করতে হচ্ছে এদিকে আগামী অক্টোবর মাসের মধ্যে অ্যাপের লেনদেনকারীর সংখ্যা বাড়ানোর কাজ সম্পন্ন হবে এবং আগামী সপ্তাহের মধ্যে লেনদেনকারীর সীমা ৩০ হাজারে উন্নীত করা হবে ফলে আশা করছি বর্তমান সমস্যা অনেকটাই কমে যাবে 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডিএসইর একজন পর্ষদ সদস্য বণিক বার্তাকে বলেন, মোবাইল অ্যাপের সেবার বিপরীতে এতদিন ডিএসইকে বড় অংকের অর্থ ভর্তুকি দিয়ে আসতে হচ্ছে অথচ পৃথিবীর অন্যান্য দেশে গ্রাহকেরাই সেবার জন্য অর্থ পরিশোধ করেন অবস্থায় ডিএসই ধাপে ধাপে মোবাইল অ্যাপের সেবার জন্য যে অর্থ ব্যয় হয় সেটি গ্রাহকের ওপর আরোপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এখন থেকে মোবাইল অ্যাপ ব্যবহারকারী একজন গ্রাহককে প্রতি মাসে এজন্য ১০০ টাকা দিতে হবে তবে এক্ষেত্রে প্রকৃত খরচ আরো বেশি কিন্তু গ্রাহকের কথা চিন্তা করে এখনই পুরো অর্থ তাদের ওপর চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে না

উল্লেখ্য, ডিএসই মোবাইল অ্যাপে তিন ধরনের সংস্করণ রয়েছে এর একটি ব্রোকার হাউজগুলোর জন্য, অন্য দুটি সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য যার একটি দিয়ে শেয়ার কেনাবেচা করা যায় অন্যটি দিয়ে শুধু লেনদেনের অবস্থা দেখা যায় বিনিয়োগকারীদের শেয়ার লেনদেন সহজ করতে ২০১৬ সালের মার্চ মোবাইল অ্যাপটি উদ্বোধন করা হয়

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন

×