শনিবার | সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১ | ১০ আশ্বিন ১৪২৮

প্রথম পাতা

জটিল রূপ নিচ্ছে ঢাকার যোগাযোগ অবকাঠামো

কারওয়ান বাজারে মেট্রোরেলের নিচ দিয়ে যাবে এক্সপ্রেসওয়ে

শামীম রাহমান

দেশের প্রথম মেট্রোরেলের একটি বড় অংশ পড়েছে ব্যস্ততম ফার্মগেট-শাহবাগ মহাসড়কে অংশটিতে এরই মধ্যে গড়ে তোলা হয়েছে মেট্রোরেলের উড়ালপথ কারওয়ান বাজার ইন্টারসেকশনে মেট্রোর উড়ালপথের নিচ দিয়ে নির্মাণ করা হবে ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের একটি সংযোগ সড়ক (র‍্যাম্প) হাতিরঝিল থেকে পান্থকুঞ্জ হয়ে হাতিরপুল-কাঁটাবন হয়ে বুয়েট পর্যন্ত চলে যাবে র‍্যাম্পটি দীর্ঘ জটিলতার পর সম্প্রতি র‍্যাম্পটির নকশা চূড়ান্ত করেছে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ নিচ দিয়ে এক্সপ্রেসওয়ের র‍্যাম্প নেয়ার সুবিধার্থে কারওয়ান বাজার অংশে বাড়ানো হয়েছে মেট্রোরেলের উচ্চতা একইভাবে এক্সপ্রেসওয়ের আরেকটি র‍্যাম্প নেয়ার সুবিধার্থে ফার্মগেট এলাকাতেই উচ্চতা বেড়েছে মেট্রোরেলের

নকশা অনুযায়ী, উত্তরা-আগারগাঁও-ফার্মগেট-মতিঝিলের মধ্যে নির্মাণাধীন মেট্রোরেল লাইন--এর উড়ালপথের (ভায়াডাক্ট) উচ্চতা ১০ মিটার তবে নিচ দিয়ে এক্সপ্রেসওয়ের র‍্যাম্প নেয়ার জন্য কারওয়ান বাজার ফার্মগেটে মেট্রোর উড়ালপথটির উচ্চতা ১৩ মিটারের বেশি রাখা হয়েছে সেতু বিভাগের প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন, বিদ্যমান রাস্তার সমতল থেকে সাড়ে পাঁচ মিটার ওপর দিয়ে হবে এক্সপ্রেসওয়ের র‍্যাম্প র‍্যাম্পের কাঠামোটিতে জায়গা নেবে আরো দুই মিটার আর র‍্যাম্পের সমতল থেকে মেট্রোরেলের উড়ালপথের মধ্যে দূরত্ব থাকবে সাড়ে পাঁচ মিটার

এক্সপ্রেসওয়েটি বাস্তবায়ন হলে কারওয়ান বাজার মোড়ে শুধু মাটির ওপরেই তিন স্তরের যোগাযোগ কাঠামো তৈরি হবে বিষয়টিকে অত্যন্ত জটিল আখ্যা দিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অপরিকল্পিতভাবে গড়ে তোলা যোগাযোগ অবকাঠামো ঢাকার জন্য আগে থেকেই বড় সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে পাশাপাশি এখানকার সাম্প্রতিক নির্মিত অবকাঠামোগুলোতেও বিভিন্ন ধরনের ত্রুটি ধরা পড়েছে বিশেষ করে ঢাকা আশপাশের বিভিন্ন সড়ক অবকাঠামো নির্মাণের ক্ষেত্রে নকশার ত্রুটি ধরা পড়েছে বারবার মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের কাজ যখন মাঝপথে, সে সময় উড়ালপথের নকশায় বড় ধরনের ত্রুটি শনাক্ত হয় নির্মাণকাজ শুরুর পর নকশার জটিলতা দেখা দেয় পদ্মা সেতু প্রকল্পে পদ্মা সেতুর জন্য যে রেলপথ নির্মাণ করা হচ্ছে, একই ত্রুটি দেখা দিয়েছে সেখানেও দেশের এমন আরো অনেক যোগাযোগ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে ধরনের অনেক ত্রুটিই ধরা পড়েছে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এগুলো সংশোধন করে নির্মাণকাজ শেষ করতে হয়েছে এতে প্রকল্পের বাস্তবায়ন হয়ে পড়েছে দীর্ঘায়িত আবার কোনো কোনো অবকাঠামো চলছে ভুল নকশাতেই ভাঙতেও হয়েছে কোনোটি

অবস্থায় রাজধানীর একেবারে কেন্দ্রবিন্দুতে কারওয়ান বাজার মোড়ের মতো ব্যস্ততম একটি সড়কপথে ধরনের জটিল অবকাঠামো নতুন করে কোনো সমস্যার কারণ হয়ে উঠবে কিনা, তা সময়ই বলে দেবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা যদিও সড়ক যোগাযোগ খাতসংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীরা দাবি করছেন, এখান দিয়ে ডাবল ডেকারসহ বিভিন্ন বড় পরিবহন অনায়াশেই চলতে পারবে মূল রাস্তা থেকে এক্সপ্রেসওয়ের র‍্যাম্প র‍্যাম্প থেকে মেট্রোরেলের ভায়াডাক্ট পর্যন্ত যে উচ্চতা রাখা হয়েছে, তাতে যানবাহন চলাচলে কোনো সমস্যা থাকবে না বিদ্যমান সড়ক এক্সপ্রেসওয়ের র‍্যাম্পদুটিরহেডরুমে পর্যাপ্ত জায়গা থাকবে

রাজধানীর দুই গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কের ওপর নির্মাণ করা হচ্ছে মেট্রোরেল এক্সপ্রেসওয়ে দুটিই উড়ালপথে মেট্রোরেলটি হচ্ছে উত্তরা-মিরপুর ১০-আগারগাঁও-ফার্মগেট-শাহবাগ-দোয়েল চত্বর-মতিঝিল সড়কে অন্যদিকে এক্সপ্রেসওয়েটি হচ্ছে বিমানবন্দর-বনানী-মহাখালী-মগবাজার সড়কে মূল এক্সপ্রেসওয়ে মেট্রোরেলের গতিপথ অবস্থান আলাদা তবে এক্সপ্রেসওয়েতে বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে যাত্রী ওঠানামার জন্য যে ৩১ সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে তার দুটির গতিপথ মেট্রোরেলের সঙ্গে সাংঘর্ষিক অবস্থায় চলে যায় কারণে ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে হাতিরঝিল-কারওয়ান বাজার-বুয়েট র‍্যাম্পটি বাদও দেয়া হয়েছিল পরবর্তী সময়ে নকশায় কিছু সংশোধনী আনা হলে র‍্যাম্পটি নির্মাণের জন্য অনুমতি দেয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়

কারওয়ান বাজার দিয়ে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের র‍্যাম্পটি নিয়ে যেতে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটিপ্রেজেন্টেশনদিয়েছিলেন পরিবহন বিশেষজ্ঞ বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অধ্যাপক . সামছুল হক বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বণিক বার্তাকে বলেন, উত্তরা-মতিঝিল মেট্রোরেলের ভায়াডাক্টের উচ্চতা করা হয়েছে ১০ মিটার পৃথিবীর কোনো দেশেই এত কম উচ্চতায় মেট্রোরেল নির্মাণ করা হয় না কিন্তু আমাদের এখানে হচ্ছে এতে করিডোর দিয়ে আর কোনো উন্নয়ন প্রকল্প নেয়ার সুযোগ থাকছে না তার পরও একটা সুযোগ ছিল কারওয়ান বাজার ফার্মগেট পয়েন্টে মেট্রোরেলের উচ্চতা বাড়িয়ে সেটার নিচ দিয়ে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের র‍্যাম্প নেয়ার এখানে সেটিই করা হয়েছে

তবে ভবিষতে উড়ালপথে মেট্রোরেল নির্মাণের মতো প্রকল্প নেয়ার সময় উচ্চতার বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি

বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে গাড়ি ওঠানামার সুবিধার্থে ৩১টি সংযোগ সড়ক (র‍্যাম্প) রাখা হচ্ছে নির্মাণাধীন ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পে এগুলোর মধ্যে অন্যতম হাতিরঝিল-কারওয়ান বাজার-বুয়েট র‍্যাম্পটির মাধ্যমে বুয়েট কিংবা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকে যাতায়াত করা যানবাহনগুলো মূল এক্সপ্রেসওয়ের সঙ্গে যুক্ত হতে পারবে গত ১১ আগস্ট ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্পেরপিআইসিসভায় বুয়েট-হাতিরঝিল লিংকের চূড়ান্ত নকশা বিস্তারিতভাবে উপস্থাপন আলোচনা করা হয় সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, লিংকটির মধ্যে অবস্থিত বিভিন্ন পরিষেবা অপসারণের জন্য ২৪ ইসিবি, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে নিযুক্ত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক এএইচএমএস আকতার বণিক বার্তাকে বলেন, বুয়েট-হাতিরঝিল র‍্যাম্প নিয়ে আর কোনো জটিলতা নেই শিগগিরই অংশে আমরা প্রকল্পের কাজ শুরু করব শুরুতে বিভিন্ন সংস্থার পরিষেবা স্থানান্তরের কাজগুলো করা হবে

প্রসঙ্গত, সরকারি-বেসরকারি অংশীদারির (পিপিপি) মাধ্যমে নির্মাণাধীন ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণে খরচ হচ্ছে প্রায় হাজার ৯৪০ কোটি টাকা প্রকল্পটিতে বিনিয়োগ করেছে ইতালথাই ডেভেলপমেন্ট পাবলিক কোম্পানি লিমিটেড, চীনা শ্যানডং ইন্টারন্যাশনাল ইকোনমিক অ্যান্ড টেকনিক্যাল কোঅপারেশন গ্রুপ সিনোহাইড্রো করপোরেশন তিনটি ধাপে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হচ্ছে প্রথম ধাপে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের দক্ষিণে কাওলা থেকে বনানী রেল স্টেশন পর্যন্ত, দ্বিতীয় ধাপে বনানী রেল স্টেশন থেকে মগবাজার রেল ক্রসিং পর্যন্ত তৃতীয় ধাপে মগবাজার রেল ক্রসিং থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুতুবখালী পর্যন্ত মোট দৈর্ঘ্য ১৯ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার সড়ক পরিবহন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সম্প্রতি ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের বিমানবন্দর থেকে তেজগাঁও পর্যন্ত অংশ আগামী বছর গাড়ি চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন