মঙ্গলবার| জানুয়ারি ২১, ২০২০| ৮মাঘ১৪২৬

টকিজ

‘আমাদের প্রাচুর্যের গল্প বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে চাই’

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র লেটার টু গড নির্মাণ করে বহু প্রান্ত থেকে বিজয় ছিনিয়ে এনেছেন নবীন নির্মাতা হেমন্ত সাদীক। এবার তিনি উদ্যোগী হয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণে। বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু, সমাজ সংস্কারক মুক্তিযুদ্ধ মৈত্রী সম্মাননাপ্রাপ্ত ইতালিয়ান নাগরিক ফাদার মারিনো রিগানের ঘটনাবহুল জীবন আখ্যান তিনি তুলে ধরবেন তার ছবিতে। ছবিটির অভিনেতা-অভিনেত্রী, লোকেশন নির্বাচন সহপ্রযোজকদের সঙ্গে বৈঠকের উদ্দেশ্যে সম্প্রতি ইতালি গিয়েছিলেন সাদীক। দেশে ফিরে সেই অভিজ্ঞতাই তুলে ধরলেন রুবেল পারভেজ-এর কাছে

দ্য ফাদার: অ্যান্ড আনটোল্ড স্টোরি ছবির অভিনেতা নির্বাচনের জন্য কিছুদিন আগে ইতালিতে অডিশন নিয়েছেন। সেখানে কেমন সাড়া পেয়েছেন?

ইতালিতে প্রত্যাশার চেয়েও দ্বিগুণ সাড়া পেয়েছি। আমরা ভাবতে পারিনি, এভাবে বেশ কয়েকটি দেশ থেকে এত সংখ্যক প্রার্থী আসবে ছবিটিতে অভিনয়ের জন্য অডিশন দিতে। মানুষের আগ্রহের বিষয়টি ছিল একেবারেই প্রত্যাশার বাইরে। শুরুতে পরিকল্পনা ছিল দুদিনে অডিশন শেষ করব। কিন্তু এত বেশিসংখ্যক প্রার্থী আসার কারণে তা বাড়িয়ে চারদিন করতে হয়েছে। খুবই অবাক হয়েছি, ইতালির একেবারে দূর প্রান্ত থেকেও অডিশনে অংশ নিতে মানুষ এসেছিল। এমনও হয়েছে অডিশনে একজন থিয়েটারকর্মী মা তার সন্তানকে নিয়ে এসেছেন ফাদার রিগানের ছোটবেলার চরিত্রে অভিনয় করানোর ইচ্ছা থেকে। বিষয়গুলো আমাকে সত্যিই মুগ্ধ করেছে।


ইতালিতে ছবির অডিশন

মানুষের আগ্রহ দেখে তরুণ নির্মাতা হিসেবে কোনো চাপ অনুভব করছেন?

সত্যিই মানুষের এত আগ্রহের বিষয়টি আমাকে খুব চাপে ফেলে দিয়েছে। তাছাড়া ফাদার রিগানকে আমাদের দেশে একভাবে চর্চা করা হয়, অন্যদিকে ইতালির পাঠ্যবইয়ে তাকে পড়ানো হয়। সে কারণে ওখানকার সবাই তার সম্পর্কে ওয়াকিবহাল। মোট কথা, ইতালির জনগণের মধ্যে রিগানের যে উপস্থিতি, তা আমাকে ছবিটি নির্মাণ নিয়ে আরো বেশি ভাবিয়ে তুলেছে।

ফাদার রিগানের চরিত্রের জন্য কেমন পরিকল্পনা আপনাদের?

শুরু থেকেই তার চরিত্রটিকে আমরা ফোকাসে রাখার চেষ্টা করছি। যদিও দীর্ঘ অডিশন রাউন্ডে ফাদার রিগানের চরিত্রের জন্য এখনো আমাদের কাঙ্ক্ষিত অভিনেতাকে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিতে পারিনি। আসলে তার চরিত্রটি নিয়ে আমরা এখন খানিকটা ধন্দের মধ্যে পড়ে গেছি। কারণ তার চরিত্রে অভিনয়ের জন্য এত বেশি প্রার্থীর মুখোমুখি হয়েছি যে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না। কারণে ভাবছি পাঁচজনের একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা তৈরি করে তারপর আরেকবার ইতালিতে গিয়ে আলাপ-আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।