টকিজ

শর্মীমালা সমাচার

ফিচার প্রতিবেদক | ০০:০০:০০ মিনিট, মার্চ ১৫, ২০১৫

শর্মীমালার অভিষেক হয়েছিল গৌতম ঘোষের ‘মনের মানুষ’ ছবিতে। ছবিটিতে তিনি অভিনয় করেছিলেন মাত্র আড়াই মিনিট। কিন্তু তাতেই বুঝিয়ে দিয়েছিলেন, আড়াই ঘণ্টার অভিনয়ও তার কাছে অসম্ভব কিছু নয়। ওইটুকু সময়ের অভিনয়ের জন্য দেশ ও দেশের বাইরে থেকে সাধুবাদ পেয়েছিলেন তিনি। তার পরের ইতিহাস সবার জানা। গাজী রাকায়েত পরিচালিত ‘মৃত্তিকা মায়া’ চলচ্চিত্রে পদ্ম চরিত্রে অনবদ্য অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। বলছিলেন, দীর্ঘদিন ধরে থিয়েটারে কাজ করার দক্ষতা ও গুণী নির্মাতাদের কাছ থেকে পাওয়া পরামর্শ তাকে ভালো অভিনয়ে সাহায্য করেছে। চলচ্চিত্র ভুবনে দু’পা হাঁটতেই রাষ্ট্রীয় সম্মাননা পেয়ে অভিভূত হয়ে পড়েছিলেন শর্মীমালা। এত বড় পুরস্কার নাকি কখনো কল্পনা করতে পারেননি তিনি। এজন্যই ছবির নির্মাতা গাজী রাকায়েত যখন তাকে ফোন করে খবর জানান, তখন শর্মীমালা জানান, ‘আট-দশবার শুধু একটা কথাই জিজ্ঞাসা করেছি, এটা কি সত্যি! বুঝতে পারছিলাম, ফুলিশ আচরণ করছি। তার পরও একই কথা বলে গেয়েছি।’ যাহোক, এ অর্জনকে তিনি অল্পতে বেশি প্রাপ্তি বলতে নারাজ। কারণ তার ভাষায়, অভিনয়টাকে ভালো করতে এমন কোনো প্রচেষ্টা নেই যে তিনি করেননি। তাছাড়া আগে যখন খেলাধুলা করতেন, তখন থেকেই তিনি নাকি কিছুতে ভয় পেতেন না। শর্মীমালা বলেন, ‘কেউ যদি কাজ করতে চায়, আর সে যদি কাজটি ধারণ করতে পারে, তাহলে কেউ তাকে আটকে রাখতে পারবে না। কাজের ভেতর সততা থাকলে কেউ কাউকে কখনই আটকে রাখতে পারে না।’ বর্তমানে থিয়েটার, টেলিভিশন, চলচ্চিত্র নিয়ে দারুণ ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। কয়েক দিন আগে শেষ করেছেন বদরুল আনাম সউদ পরিচালিত ‘পিঞ্জর’ ও নিয়াজ মাহমুদের ‘কালো মখমল’ নামের দুটি ধারাবাহিক। আর বর্তমানে শুটিং চলছে আফসানা মিমি পরিচালিত ‘সাতটি তারার তিমির’ এবং গোলাম সোহরাব দোদুল পরিচালিত ‘হল্লাবাজি’ ধারাবাহিকের। এছাড়া মঞ্চে নিজের দল পালাকার থেকে ‘বাংলার মাটি, বাংলার জল’, চারুনীড়ম থেকে সৈয়দ সামসুল হকের গল্প ডেড পিকক অবলম্বনে ‘মরা ময়ূর’ নাটকে অভিনয় করছেন তিনি।

কথা প্রসঙ্গে শর্মীমালা তার অভিনীত আরো দুটি ছবির কথা বললেন। আবু শাহেদ ইমনের ‘জালালের গল্প’ ও শাহনাজ কাকলীর ‘নদী জল’ নামের এ চলচ্চিত্র দুটি সম্প্রতি সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। এর মধ্যে ‘জালালের গল্প’ বুসান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রিমিয়ারও হয়েছে।