খবর

সুন্দরবন রক্ষায় জাতিসংঘের সুপারিশ সঠিকভাবে পালনের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক | ০০:০০:০০ মিনিট, জুলাই ২০, ২০১৯

সুন্দরবন রক্ষায় জাতিসংঘের সুপারিশ দ্রুত ও সঠিকভাবে পালনের দাবি জানিয়েছে সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি। গতকাল ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে ‘সদ্যসমাপ্ত ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্য কমিটির সভা, উপকূল ও সুন্দরবনের ভবিষ্যৎ এবং আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) সাধারণ সম্পাদক ও সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব ড. মো. আব্দুল মতিন। তিনি বলেন, সুন্দরবনকে নিরাপদ ও ভালো রাখার বিষয়ে আমাদের দেশের সফলতা নিয়ে ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত ইউনেস্কোর ৪১তম সভায় বেশকিছু নেতিবাচক পর্যবেক্ষণ তুলে ধরা হয়। তাদের সেসব পর্যবেক্ষণকে আমরা সঠিক বলে মনে করি। বাংলাদেশের দায়িত্ব ছিল, সেসব বিষয়ে করণীয় সব কাজ সম্পন্ন করে এবারের সভায় তা অবহিত করা। বাংলাদেশ তার কী করেছে, তা আর আমাদের কাছে প্রকাশ করা হয়নি। তবে সরকারের গৃহীত কার্যক্রমের একটি প্রতিবেদন ইউনেস্কোর কাছে জমা দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, এবারের সভায় বাংলাদেশের গৃহীত কার্যক্রমের প্রতিবেদনে ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্য কমিটি সন্তুষ্ট হয়েছে বলে মনে হয়নি, কারণ ২০১৭ সালের কাজগুলো সম্পন্ন করার জন্য আবার জোর তাগাদা দেয়া হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে তাদের পর্যবেক্ষণ দল সরেজমিন সুন্দরবন দেখতে আসার কথা। সুন্দরবন ও উপকূল এলাকার প্রাণ পরিবেশ সংরক্ষণের প্রশ্নে ইউনেস্কোর এবারের সভায় বনকে বিপদাপন্ন তালিকাভুক্ত করেনি, তবে ২০১৭ সালের শর্তগুলোকে সঠিকভাবে প্রতিপালনের জন্য শক্তভাবে আবার দায়িত্ব দিয়েছে। সময় দিয়েছে এক বছর, ইউনেস্কোর পরিদর্শন দল আসবে এ বছরেই। আর সুন্দরবনের বিপদাপন্ন তালিকাভুক্তির আলোচনা হবে এক বছরের মধ্যেই।

৫৩টি সদস্য সংগঠনের পক্ষ থেকে সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ কমিটির পর্যালোচনা তুলে ধরে ধরা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য শরীফ জামিল, টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান, সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাপার সাবেক সাধারণ সম্পাদক মইদুল খান প্রমুখ।