পণ্যবাজার

ভারতের গোলমরিচ আমদানি কমেছে ১৫.৯%

বণিক বার্তা ডেস্ক    | ০০:০০:০০ মিনিট, জুলাই ২০, ২০১৯

ঐতিহ্যগতভাবেই ভারতীয়রা রান্নায় ঝাল খেতে পছন্দ করে। এ কারণে ভারতে গোলমরিচের চাহিদাও বেশি। দেশটিতে প্রচুর গোলমরিচের আবাদ হলেও স্থানীয় চাহিদা পূরণের জন্য ভারতীয় আমদানিকারকরা আন্তর্জাতিক বাজার থেকে পণ্যটি আমদানি করে থাকেন। বিদায়ী ২০১৮-১৯ অর্থবছরে আন্তর্জাতিক বাজার থেকে ভারতে গোলমরিচ আমদানিতে মন্দা ভাব দেখা গেছে। এর আগের অর্থবছরের তুলনায় বিদায়ী অর্থবছরে দেশটিতে পণ্যটির আমদানি কমেছে ১৫ দশমিক ৯ শতাংশ। খবর কমোডিটি অনলাইন।

ভারতের কেন্দ্রীয় বাণিজ্যমন্ত্রী পিয়ুষ গয়াল রাজ্যসভায় একটি লিখিত জবাবে জানান, ভারতীয় আমদানিকারকরা সর্বশেষ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে গোলমরিচ আমদানি কমিয়েছেন। বিদায়ী অর্থবছরে আন্তর্জাতিক বাজার থেকে দেশটিতে ২৪ হাজার ৯৫০ টন গোলমরিচ আমাদনি হয়েছে, যা আগের অর্থবছরের তুলনায় ১৫ দশমিক ৯ শতাংশ কম। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ভারতে সব মিলিয়ে ২৯ হাজার ৬৫০ টন গোলমরিচ আমদানি হয়েছিল। অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে দেশটিতে পণ্যটির আমদানি কমেছে ৪ হাজার ৭০০ টন।

তিনি আরো বলেন, কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে গোলমরিচের ন্যূনতম আমদানি মূল্য নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছিল। এর প্রভাব পড়েছে পণ্যটির আমদানিতে। অভ্যন্তরীণ বাজারে মূল্য হ্রাসের পাশাপাশি গোলমরিচ আমদানিও কমে গেছে।

উল্লেখ্য, ভারতের ডিরেক্টর জেনারেল অব ফরেন ট্রেডের (ডিজিএফটি) পক্ষ থেকে ২০১৮ সালের ২১ মার্চ প্রতি কেজি গোলমরিচের ন্যূনতম আমদানি মূল্য ৫০০ রুপি (স্থানীয় মুদ্রা) নির্ধারণ করে দেয়া হয়।

এদিকে সর্বশেষ অর্থবছরে ভারতে গোলমরিচের আমদানি কমার পাশাপাশি উৎপাদনেও মন্দা ভাব দেখা গেছে। দেশটির অন্যতম গোলমরিচ উৎপাদনকারী রাজ্য কেরালা ও কর্ণাটক। তবে বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গেও বণিজ্যিকভাবে গোলমরিচ উৎপাদন করা হচ্ছে। ভারতের সরকারি তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ভারতে সব মিলিয়ে ৬২ হাজার ১৪৪ টন গোলমরিচ উৎপাদন হয়েছে। এর আগের অর্থবছরে দেশটিতে গোলমরিচের উৎপাদনের পরিমাণ ছিল ৭০ হাজার ৮৭৮ টন। অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে ভারতে গোলমরিচ উৎপাদন কমেছে ৮ হাজার ৭৩৪ টন। মূলত ভারতের প্রধান গোলমরিচ উৎপাদনকারী অঞ্চলগুলোয় প্রতিকূল আবহাওয়া, অসময়ে ভারি বৃষ্টিপাত ও বন্যার কারণে পণ্যটির উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে।