শিল্প বাণিজ্য

ফাঁপা ইট উৎপাদনকে শিল্প ঘোষণা করছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক | ০০:০০:০০ মিনিট, জুলাই ২০, ২০১৯

অটোমেটিক হলো ব্রিক বা স্বয়ংক্রিয় ফাঁপা ইট উৎপাদনকে শিল্প হিসেবে ঘোষণার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। গতকাল জাতীয় শিল্প উন্নয়ন পরিষদের নির্বাহী কমিটির (ইসিএনসিআইডি) সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

জ্বালানি সাশ্রয়ী ও পরিবেশবান্ধব পদ্ধতিতে তৈরি হওয়ায় এ শিল্পকে উৎসাহিত করা হচ্ছে। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে সরকারি নির্মাণকাজে বিকল্প হিসেবে ফাঁপা ইট ব্যবহার করতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়।

বিশ্বব্যাংক ও ইউএনডিপির পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ইট প্রস্তুত খাত দেশের গ্রিনহাউজ গ্যাসের সর্ববৃহৎ উৎসে পরিণত হয়েছে। ইটভাটায় বছরে ১২৭ কোটি ঘনফুট মাটির প্রয়োজন হয়। এছাড়া ইট পোড়াতে কয়লার পাশাপাশি বিপুল পরিমাণ গাছ ব্যবহূত হয়।

জানা গেছে, ইসিএনসিআইডির সভায় হস্ত ও কারুশিল্প নীতিমালা ২০১৫ বাস্তবায়নের জন্য দ্রুত প্রকল্প গ্রহণের সিদ্ধান্তও হয়। পাশাপাশি এ শিল্প খাতে উৎপাদিত পণ্য বিপণনে রাজধানীর পূর্বাচলে হস্ত ও কারুপণ্য পাইকারি বিক্রয় কেন্দ্র স্থাপনের বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এছাড়া সভায় বিসিক শিল্পনগরী প্রকল্পগুলোর খালি প্লটে দ্রুত শিল্প গড়ে তোলার জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়। শিল্পনগরীভিত্তিক খালি প্লটের তালিকা মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর নির্দেশনা দেয়া হয়। একই সঙ্গে তিন মাসের মধ্যে জাহাজ নির্মাণ শিল্পনীতি চূড়ান্ত করার সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে দেশব্যাপী শিল্পায়ন প্রক্রিয়া জোরদার, যুগোপযোগী জাহাজ নির্মাণ শিল্প নীতিমালা প্রণয়ন, রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানের অব্যবহূত জমিতে যৌথ উদ্যোগে বা পিপিপির আওতায় শিল্প স্থাপন, বিসিকে ওয়ান স্টপ সেবা সেল স্থাপন, জাহাজ পুনঃপ্রক্রিয়াকরণ শিল্পের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য সক্ষমতা যাচাই প্রকল্প বাস্তবায়ন, অপ্রাতিষ্ঠানিক শিল্প নীতিমালা প্রণয়ন, অনগ্রসর এলাকায় শিল্প সম্প্রসারণ, স্থানীয় শিল্পের বিকাশ, শিল্পে দ্রুত ইউটিলিটি সংযোগ প্রদানসহ সংশ্লিষ্ট নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

গতকাল শিল্প মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত ইসিএনসিআইডির এ সভায় সভাপতিত্ব করেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।

এতে উপস্থিত ছিলেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার ছাড়াও জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম, শিল্প সচিব মো. আবদুল হালিম, পরিকল্পনা কমিশনের শিল্প ও শক্তি বিভাগের সদস্য সাহিন আহমেদ চৌধুরী, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান সচিব রৌনক জাহানসহ শিল্প, বাণিজ্য, শ্রম ও কর্মসংস্থান, বস্ত্র ও পাট, মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন, কৃষি, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান, পরিবেশ ও বন, ভূমি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, মহিলা ও শিশু, বিদ্যুৎ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, স্থানীয় সরকার ও জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ, বিসিক, বিসিআইসি, বিনিয়োগ বোর্ড, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, এসএমই ফাউন্ডেশন, পরিকল্পনা কমিশন, বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশন, আইসিবি, বেপজা, বেজা, চট্টগ্রাম চেম্বার, বিসিআই, এমসিসিআই, নাসিব, বাংলাদেশ অটো ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারিং অ্যাসোসিয়েশন, বাংলা ক্রাফট, বিজিএপিএমইএ, বিপিজিএমইএসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থার প্রতিনিধিরা।