খবর

কারাগারে সকালের নাস্তায় ২০০ বছরের পুরনো মেন্যুর পরিবর্তন

বণিক বার্তা অনলাইন | ০০:০০:০০ মিনিট, জুলাই ২০, ২০১৯

দেশের কারাগারগুলোতে সকালের নাস্তায় প্রায় দুইশো বছরের পুরনো মেন্যুতে পরিবর্তন এনেছে সরকার। এখন থেকে সকালের নাস্তায় কয়েদিদের রুটি আর গুড়ের বদলে ভুনা বা সবজি খিচুড়ি এবং রুটির সঙ্গে সবজি ও হালুয়া দেওয়া হবে। আজ রোববার সকালে নাস্তার নতুন এই মেন্যুর উদ্বোধন করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

কারা সূত্রে জানা গেছে, ইংরেজ শাসনামল থেকে দেশের কারাগারগুলোতে কয়েদিদের সকালের নাস্তায় রুটি ও গুড় দেওয়া হতো। শেষ পর্যন্ত সেই মেন্যুতে পরিবর্তন নিয়ে আসা হলো। এখন থেকে তাদের নাস্তার মেন্যুতে থাকবে খিচুড়ি, রুটি, সবজি, হালুয়া।

ডিআইজি (ঢাকা বিভাগ) টিপু সুলতান বলেন, এখন থেকে সপ্তাহে একদিন কয়েদিদের দেওয়া হবে ভুনা খিচুড়ি, একদিন সবজি খিচুড়ি। বাকি পাঁচদিন থাকবে রুটি। এর মধ্যে একদিন রুটির সঙ্গে থাকবে হালুয়া, বাকি চার দিন সবজি।

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আজ থেকে সারাদেশের সব কারাগারে এই খাবার পরিবেশন করা হয়েছে। খাবারের মান যেমন বেড়েছে, তেমনি পরিমাণও বেড়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী কারাবন্দিদের সুস্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে নাস্তার মেন্যুতে এই পরিবর্তন আনা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগে কারাগারে বন্দিরা খেতেই পারত না। এখন তাদের জন্য মান অনুযায়ী পর্যাপ্ত খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে। প্রায় শত বছরের রীতি ভেঙে এই কাজ করা হয়েছে। কারাবন্দি যারা আছে, তাদের জন্য ৩৮ ট্রেডের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তারা যেন জেল থেকে মুক্তির পর অপরাধে জড়িয়ে না পড়ে, সেজন্য তাদের দক্ষ করে গড়ে তোলা হয়েছে।

বন্দিরা যেন প্রিয়জনদের সঙ্গে মোবাইলে কথা বলতে পারেন সেজন্য প্রিজন লিংক ‘স্বজন’ সার্ভিস চালু করা হয়েছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এর মাধ্যমে কারাবন্দিরা তাদের আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন। প্রাথমিকভাবে পাইলট প্রকল্প হিসেবে টাঙ্গাইলে এ সার্ভিস চালু করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সারাদেশে এ সার্ভিস চালু করা হবে।’