ঈপ্সনীয়

ঘরে প্রশান্তি আর স্নিগ্ধতা আনতে...

ফিচার ডেস্ক | ০০:০০:০০ মিনিট, জুলাই ১২, ২০১৯

কখনো রোদ, কখনো বৃষ্টি আবার সন্ধ্যার পর হিমেল হাওয়া বইছে। আবহাওয়ার ভাবগতি বুঝতে না পেরে হয়তো ঠিকভাবে ঘর সাজানো যাচ্ছে না। যেহেতু এ সময় স্বাভাবিকভাবেই একটু গরম থাকে। তাই এ দিনগুলোয় ঘর যতটা সম্ভব হালকা ও কম আসবাবে সাজাতে চেষ্টা করুন। এ সময় অতিরিক্ত ও অপ্রয়োজনীয় আসবাব এবং সাজ উপকরণ আপাতত ঘরে না রাখলেই ভালো। দিতে হবে হালকা ও স্নিগ্ধ রঙের প্রাধান্য। তাছাড়া ঘর ও বারান্দায় গাছ রাখতে পারেন। এতে শান্তিভাব বিরাজ তো করবেই, পাশাপাশি হবে চোখের আরামও।

সবখানে আরাম

বসন্ত থেকেই গরম পড়তে শুরু করে। জ্যৈষ্ঠে উত্তাপ বাড়ে। তাই এ সময় সবার আগে আরামকে প্রাধান্য দিন। আরাম বলতে সব ঘরেই যেন একটা নমনীয়ভাব ফুটে ওঠে। বসার ঘর, বারান্দা বা ছাদে ব্যবস্থা রাখুন অপেক্ষাকৃত ছোট টেবিল, ফ্লোর পিলো। ম্যাট, কুশন কভার এবং চাদরে রাখুন উজ্জ্বল রঙ ফিরোজা, গোলাপি, লাল ও সাদা। সোফার ম্যাট বা বেডশিটের জন্য উজ্জ্বল বোটানিক্যাল প্রিন্টের কাপড় বেছে নিন। দেয়ালের রঙ যদি হয় অফ হোয়াইট বা হালকা কোনো শেডের, তাহলে এমন কাপড়গুলো অন্দরে রাখলে তা দেবে চোখের আরাম। জর্জেটের হালকা রঙের পর্দা লাগিয়ে দিন জানালা-দরজায়। জানালার কাচ সবসময় পরিষ্কার রাখুন। এতে বাইরের আলো ভালোভাবে ঘরে প্রবেশ করবে। প্রতিটি ঘরেই সবুজ রঙ ব্যবহার করুন। সবুজ হচ্ছে এমন একটি রঙ, যা মানসিক উত্তেজনা কমায় ও শান্তি দেয়।

ফুরফুরে ভাব বজায় রাখুন

বাইরে থেকে ঘরে ফিরেই সব জানালা খুলে দিন। এতে গুমোটভাব দূর হয়ে যাবে। প্রতিদিন ঘরের মেঝে ও আসবাব পরিষ্কার করুন। তাহলে ঘর গন্ধ হবে না। ঘর মোছার পানিতে লেবুর খোসা ও লবণ দিন। সপ্তাহে একদিন গরম পানি ও ডিটারজেন্ট দিয়ে ঘর মুছে ফেলুন। তাতে ঘরে শুদ্ধতা ও ফুরফুরেভাব বিরাজ করবে।

 

যেটুকু প্রয়োজন সেটুকুই রাখুন

ঘর থেকে ভারী, অপ্রয়োজনীয় আসবাব ও সাজানোর উপকরণ সরিয়ে ফেলুন। মেঝেতে পর্যাপ্ত জায়গা বের করে শীতলপাটি বা আরামদায়ক কটন ম্যাট পেতে রাখুন। ছড়িয়ে দিন কিছু কুশন।

 

প্রকৃতির আশ্রয়

আমরা সবাই জানি, ঘরে স্বস্তির ছোঁয়া এনে দিতে পারে ইনডোর প্লান্ট। ঘরে কম যত্ন ও সহজেই বেড়ে ওঠে এমন গাছ লাগান। বসার ঘরের এক কোনায় একটি বড় পাত্রে রসাল পাতার গাছ ও ক্যাকটাস লাগান। টেবিল ডিসপ্লে হিসেবে রাখতে পারেন বনসাই, সুদৃশ্য পাথর ও শঙ্খ। বুদ্ধি করে শঙ্খের মধ্যে গাছ লাগিয়ে ঘরের যেকোনো কোনায় সাজিয়ে রাখুন। প্রাকৃতিক এসব উপাদান ঘরের সৌন্দর্য বাড়িয়ে দেয় বহুগুণে।

 

একটুখানি রঙের ছোঁয়া

এ সময় একটু উজ্জ্বল ও ফ্লোরাল ডিজাইন বেছে নিন ক্রোকারিজের জন্য। ছোট একটি টেবিল পরিষ্কার করে তাতে একটি সুন্দর ট্রে রাখুন। কয়েকটি রঙের বোতলে পানি ভরে ট্রের ওপর রেখে দিন। টেবিলটি ব্যক্তিগত লাইব্রেরি, বারান্দা বা যেখানে প্রয়োজন, সেখানে রেখে দিন।

 

নিয়ে আসুন নতুন আসবাব

পুরনো ইজিচেয়ার বা সাইড টেবিল যেগুলো বেশ পুরনো হয়ে গেছে, সেগুলো এবার বিক্রি করে দিন। নিয়ে আসুন এগুলোর পরিবর্তে কাজে লাগবে এমন কিছু। তা হতে পারে বুকশেলফ, ডিভান, সোফা বা কফি টেবিল। আসবাব কেনার সময় রঙও বিবেচনায় রাখুন। এমন রঙের আসবাব কিনতে হবে যাতে ঘরের আকার ছোট মনে না হয়।

 

হালকাভাব বজায় রাখুন

ঘরে খুব বেশি সাজ উপকরণের প্রয়োজন নেই। যতটা সম্ভব ঘরে হালকা আসবাব ও জিনিসপত্র রাখুন। দেয়ালের রঙ যদি গাঢ় হয়, তাহলে তাতে ঝুলিয়ে দিন রঙিন ছবির ফ্রেম। প্রশস্ত ঘরে শূন্য দেয়াল পূরণ করতে ছোট-বড় মিলিয়ে বেশ কয়েকটি ছবির ফ্রেম বসাতে পারেন। সম্ভব হলে রাখুন প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি শো-পিস ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় উপকরণ। আর জায়গা পেলেই সেখানে রেখে দিন এক টুকরা সবুজ।