পণ্যবাজার

৩ দশকের সর্বনিম্নে নরওয়ের জ্বালানি তেল উত্তোলন

বণিক বার্তা ডেস্ক    | ০০:০০:০০ মিনিট, জুলাই ১২, ২০১৯

অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলনকারী ইউরোপীয় দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম নরওয়ে। তবে চলতি বছরে এসে জ্বালানি পণ্যটির উত্তোলনে নানামুখী সীমাবদ্ধতার মুখে পড়েছে দেশটি। এর প্রভাব পড়েছে স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশটির জ্বালানি তেল উত্তোলন খাতে। গত এপ্রিলে দেশটিতে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন গত তিন দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে নেমে এসেছে। নরওয়ের পেট্রোলিয়াম ডিরেক্টরেটের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। তবে সম্প্রতি নতুন দুটি জ্বালানি তেলক্ষেত্র আবিষ্কৃত হওয়ায় আগামী দিনগুলোয় নরওয়েতে জ্বালানি পণ্যটির উত্তোলন খাত ফের চাঙ্গা হয়ে উঠবে বলে আশা করা হচ্ছে। খবর অয়েলপ্রাইসডটকম ও মার্কেট ওয়াচ।

দেশটির সরকারি তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের মার্চে নরওয়ের নিজস্ব কূপগুলো থেকে প্রতিদিন গড়ে ১৩ লাখ ৮৭ হাজার ব্যারেল অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন হয়েছিল। এপ্রিলে দেশটিতে জ্বালানি পণ্যটির দৈনিক গড় উত্তোলন কমে দাঁড়ায় ১৩ লাখ ৮০ হাজার ব্যারেলে। সে হিসাবে এক মাসের ব্যবধানে দেশটিতে জ্বালানি তেলের দৈনিক গড় উত্তোলন কমেছে সাত হাজার ব্যারেল। গত ৩০ বছরের মধ্যে নরওয়েতে এটাই জ্বালানি পণ্যটির সর্বনিম্ন মাসভিত্তিক উত্তোলনের রেকর্ড। এর আগে ২০১৮ সালের এপ্রিলে নরওয়ের নিজস্ব কূপগুলো থেকে প্রতিদিন গড়ে ১৫ লাখ ৩১ হাজার ব্যারেল অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন হয়েছিল।

২০১৪ সালের শেষের দিকে আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দামে বড় ধরনের পতন শুরু হলে নরওয়ের জ্বালানি কোম্পানিগুলো লোকসান এড়াতে পণ্যটির উত্তোলন ব্যয় কমানোর বিষয়ে মনোযোগ দেয়। একই সঙ্গে জ্বালানি পণ্যটির উত্তোলনে আরো দক্ষ হয়ে উঠতে উদ্যোগ নেয়া হয়। পরে এ বিষয়ে নরওয়েজিয়ান কোম্পানিগুলোর সফলতা সবার নজর কাড়ে। এরপরও অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দীর্ঘমেয়াদি সরবরাহ নিশ্চিতে বেশ ঝামেলার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে দেশটি।

এ পরিস্থিতিতে চলতি বছরের শুরুতেই অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের উত্তোলন তিন দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে নেমে আসতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছিল নরওয়ে সরকার। দেশটির প্রাক্কলন অনুযায়ী, চলতি বছর নরওয়েতে জ্বালানি তেলের দৈনিক গড় উত্তোলন ১৪ লাখ ২০ হাজার ব্যারেলে নেমে আসতে পারে। বছরের মাঝামাঝি সময়ের আগেই প্রাক্কলনের তুলনায় কম জ্বালানি তেল উত্তোলন করেছে নরওয়ে।

তবে উত্তোলন খাতের মন্দাভাবের মধ্যেও আশার আলো জাগিয়েছে নতুন আবিষ্কৃত দুটি তেলক্ষেত্র। নরওয়ের উপকূলবর্তী উত্তর সাগরের জোহান সেভারড্রাপ ও ব্যারেন্ট সাগরের জোহান ক্যাস্টবার্গ খনি দুটো থেকে উত্তোলন শুরু হলে নরওয়েতে জ্বালানি তেলের সামগ্রিক উত্তোলন চাঙ্গা হয়ে উঠতে পারে। চলতি বছরের শেষ নাগাদ উত্তোলনে আসবে জোহান সেভারড্রাপ। এ খনি থেকে ২১০-৩১০ কোটি ব্যারেল জ্বালানি তেল উত্তোলন সম্ভব হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অন্যদিকে ২০২২ সাল নাগাদ উত্তোলনে আসতে পারে জোহান ক্যাস্টবার্গ খনিটি। এ খনিতে ৪৫-৬৫ কোটি ব্যারেল জ্বালানি তেল মজুদ আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।