টেলিকম ও প্রযুক্তি

কোয়ালকমের সিইওর দাবি : মূল্যছাড় হিসেবে ১০০ কোটি ডলার চেয়েছিল অ্যাপল

বণিক বার্তা ডেস্ক | ১৯:২৪:০০ মিনিট, জানুয়ারি ১৩, ২০১৯

একাধিপত্য বিস্তার নয়, বরং অ্যাপলকে ১০০ কোটি ডলার মূল্যছাড় দিতে গিয়ে আইফোনের মডেম চিপের একমাত্র সরবরাহকারী হতে চেয়েছিল কোয়ালকম। গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ট্রেড কমিশনের দায়েরকৃত এক মামলার শুনানিতে সাক্ষ্য দেয়ার সময়

এমনটাই দাবি করেছেন চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) স্টিভ মলেনকফ। প্রতিদ্বন্দ্বীদের দমনে প্রতিযোগিতা-বিরোধী চর্চার অভিযোগে এ মামলা দায়ের করা হয়। খবর রয়টার্স ও অ্যাপলইনসাইডার।

২০১১ সালে আইফোনের মডেম চিপ সরবরাহ নিয়ে অ্যাপলের সঙ্গে চুক্তি করে কোয়ালকম। ওই সময় অ্যাপলের পক্ষ থেকে কোয়ালকমকে এ চিপের একমাত্র সরবরাহকারী হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়। এ চিপ মোবাইল ফোনকে ওয়্যারলেস ডাটা নেটওয়ার্কের সঙ্গে যুক্ত হতে সাহায্য করে।

মলেনকফ বলেন, মূল্যছাড়ের ব্যাপারে অ্যাপলের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ওই সময় ব্যবহূত ইনফিনিয়নের বদলে কোয়ালকমের চিপ ব্যবহারের জন্য কারিগরি ব্যয় নির্বাহে এ অর্থ ব্যয় হবে। তিনি আরো বলেন, প্রযুক্তি খাতে এ ধরনের মূল্যছাড়  সাধারণ ঘটনা, তবে অর্থের অংকটা নয়।

অ্যান্টি-ট্রাস্ট রেগুলেটরদের মতে, এ চুক্তি কোয়ালকমের প্রতিযোগিতা-বিরোধী চর্চার নমুনা। এ ধরনের চর্চার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি ইন্টেলের মতো প্রতিযোগীদের সরিয়ে মডেম চিপের বাজারে একাধিপত্য ধরে রাখতে চেয়েছিল।

মলেনকফ জানান, কতগুলো চিপ কেনা হবে, সে ব্যাপারে কোনো নিশ্চয়তা দেয়া ছাড়াই অ্যাপল মূল্যছাড় হিসেবে ১০০ কোটি ডলার চেয়েছিল। পর্যাপ্ত চিপ বিক্রির মাধ্যমে এ অর্থ তুলে আনতে তার প্রতিষ্ঠান চুক্তিতে একক সরবরাহকারী হওয়ার ধারা যুক্ত করতে বাধ্য হয়েছিল। এক্ষেত্রে ইন্টেলের মতো প্রতিযোগীদের দমন করার কোয়ালকমের কোনো ইচ্ছা ছিল না। তিনি বলেন, ঝুঁকিটা ছিল চিপের সংখ্যাটা কত হবে? মূল্যছাড় হিসেবে এত বেশি পরিমাণ অর্থ দেয়ার পর আমরা যা চেয়েছিলাম তা কি পাব?

তবে অ্যাপলের সাপ্লাই চেইন এক্সিকিউটিভ টনি ব্লেভিনসের মুখে মলেনকফের ঠিক উল্টো বক্তব্য শোনা গেছে। এ মামলার শুনানিতে সাক্ষ্য দেয়ার সময় ব্লেভিনস বলেন, আইফোনের হাজারের বেশি যন্ত্রাংশের প্রতিটির জন্য অ্যাপল সর্বনিম্ন দুই থেকে সর্বোচ্চ ছয়জন সরবরাহকারীর সঙ্গে যোগাযোগ করে। তবে কোয়ালকমের মূল্যছাড়ের কারণেই অন্যান্য চিপ সরবরাহকারী আমাদের কাছে অনার্কষণীয় হয়ে ওঠে। মূল্যছাড়ের পরিমাণ খুব বড় ছিল। তিনি আরো জানান, তার প্রতিষ্ঠান মূল্যছাড় সুবিধা হারানোর আশঙ্কায় আইপ্যাড মিনি টু এ ইন্টেলের চিপ ব্যবহার বন্ধ করে দেয়। এমনটি না করলে সামগ্রিক ব্যয় বেড়ে যেত।