পণ্যবাজার

বাড়তি রফতানিতে ভিয়েতনামে কফির দামে চাঙ্গাভাব

বণিক বার্তা ডেস্ক | ১৯:১৪:০০ মিনিট, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৮

আন্তর্জাতিক বাজারে ভিয়েতনামের কফির চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। এ কারণে দেশটির কফি রফতানি খাতেও বজায় রয়েছে প্রবৃদ্ধি। বাড়তি রফতানি চাহিদার জের ধরে সর্বশেষ সপ্তাহে দেশটিতে পানীয় পণ্যটির দাম আগের তুলনায় চাঙ্গা হয়ে উঠেছে। সপ্তাহান্তে দেশটিতে কফির দাম কেজিতে সর্বোচ্চ ৫০০ ভিয়েতনামিজ ডং (স্থানীয় মুদ্রা) বেড়েছে। খবর বিজনেস রেকর্ডার ও এগ্রিমানি।

কফি উৎপাদনকারী ও রফতানিকারক দেশগুলোর তালিকায় ভিয়েতনামের অবস্থান বিশ্বে দ্বিতীয়। বিশেষত রোবাস্তা কফি উৎপাদন ও রফতানির জন্য ভিয়েতনামের খ্যাতি বিশ্বজোড়া। দেশটির বাজারে সর্বশেষ সপ্তাহে প্রতি কেজি কফির দাম দাঁড়িয়েছে মানভেদে ৩৩ হাজার থেকে ৩৩ হাজার ৫০০ ডংয়ে (১ ডলার ৪২ সেন্ট থেকে সর্বোচ্চ ১ ডলার ৪৪ সেন্ট)। এক সপ্তাহ আগেও দেশটিতে প্রতি কেজি ৩২ হাজার ৫০০ থেকে ৩৩ হাজার ৩০০ ডংয়ে বিক্রি হয়েছিল। সে হিসাবে, সপ্তাহান্তে দেশটিতে কফির দাম কেজিতে সর্বোচ্চ ৫০০ ডং বেড়েছে।

ভিয়েতনামের জেনারেল স্ট্যাটিস্টিকস অফিসের সর্বশেষ মাসভিত্তিক প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালের জানুয়ারি-আগস্ট সময়ে ভিয়েতনাম থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে সব মিলিয়ে ২ কোটি ১৭ লাখ ৮০ হাজার ব্যাগ (প্রতি ব্যাগে ৬০ কেজি) বা ১৩ লাখ টন কফি রফতানি হয়েছে, যা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ১৪ দশমিক ৮ শতাংশ বেশি। এ সময় পানীয় পণ্যটি রফতানি বাবদ দেশটির রফতানিকারকরা মোট ২৫০ কোটি ডলার আয় করেছেন।

এদিকে মাসভিত্তিক হিসাবে সর্বশেষ আগস্টে ভিয়েতনাম থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে মোট ১ লাখ ৩৫ হাজার টন কফি রফতানি হয়েছে। এ বাবদ দেশটির আয় দাঁড়িয়েছে ২৪ কোটি ৬০ লাখ ডলার। বাড়তি রফতানি চাহিদার এ তথ্য প্রকাশের পর থেকে দেশটিতে কফির দাম চাঙ্গা হতে শুরু করেছে বলে জানান খাতসংশ্লিষ্টরা। আগামী দিনগুলোয় ভিয়েতনামে কফি উৎপাদনের তুলনায় রফতানিতে তুলনামূলক বেশি চাঙ্গাভাব বজায় থাকার সম্ভাবনায় পানীয় পণ্যটির দাম ঊর্ধ্বমুখী থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।