খবর

সংবাদ সম্মেলনে রিজভীর অভিযোগ

বিরোধী দল দমনে গোপন ছক আঁটছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১১:১৫:০০ মিনিট, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে বিরোধী দল দমনে সরকার গোপন ছক আঁটছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগ করা উচিত। গতকাল রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন করে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব এসব বলেন।

রিজভী বলেন, সামনের দিনগুলোতে সরকার নিজ দলের ক্যাডারদের দিয়ে নাশকতা সৃষ্টি করে বিএনপি নেতা-কর্মীদের ওপর এর দায় চাপাবে। ককটেল বিস্ফোরণসহ নানা ধরনের জ্বালাও-পোড়াওসহ নাশকতা করা হবে পরিকল্পিতভাবে। এজন্য নাকি আওয়ামী ক্যাডারদের সহযোগিতা করার জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আমরা বিভিন্নভাবে এ কথাগুলো শুনছি।

সরকার গোপন ছক আঁটছে জানিয়ে তিনি বলেন, সরকার এক গোপন সহিংস পরিকল্পনার ছক আঁটছে। বিরোধী দলের কর্মসূচিকে জনগণের সামনে নানাভাবে বিভ্রান্ত ও কালিমালিপ্ত করার জন্যই তারা এমনটি করছে। যেভাবে তারা ২০১৪ ও ২০১৫ সালে বিরোধী দলের আন্দোলনে নিজেরাই নাশকতা করে বিএনপির ওপর এর দায় চাপিয়েছে। এবারো তেমন কিছু করার চেষ্টা করছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সুষ্ঠু নির্বাচনের পথে প্রধান অন্তরায় হিসেবেও বর্ণনা করেন বিএনপির এ জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব। তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রধান অন্তরায় প্রধানমন্ত্রী নিজে। সুতরাং ইসিকে তার সহযোগিতা দেয়ার অর্থই হলো, আগামী নির্বাচনে ফন্দিফিকির করার জন্যই যে তিনি সহযোগিতা দেবেন, এতে কোনো সন্দেহ নেই। আমরা পরিষ্কার বলে দিতে চাই, সুষ্ঠু নির্বাচনের একমাত্র গ্যারান্টি শেখ হাসিনার পদত্যাগ ও নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেন, নিতাই রায় চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নেতা এমএ মালেকসহ অসংখ্য নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরের নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তা প্রত্যাহারের দাবিও জানিয়েছেন রিজভী।