২০২৩ সালের চতুর্থ প্রান্তিক

হুয়াওয়ের প্রভাবে চীনে বিক্রি কমেছে অ্যাপলের

প্রকাশ: জানুয়ারি ২৬, ২০২৪

বণিক বার্তা ডেস্ক

চীনের বাজারে স্মার্টফোন বিক্রি কমেছে অ্যাপলের। ২০২৩ সালের চতুর্থ প্রান্তিকে দেশটির বাজারে ব্যবসা বিস্তারের দিক থেকে হুয়াওয়েসহ স্থানীয় কোম্পানিগুলো অনেকটা এগিয়ে ছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে বছরওয়ারি হিসেবে আইফোন বিক্রি ২ দশমিক ১ শতাংশ কমেছে। খবর রয়টার্স।

গত বছর চীন সরকার বিভিন্ন কোম্পানি ও সরকারি সংস্থার কর্মকর্তাদের অ্যাপলের ডিভাইস ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। প্রযুক্তিবিশারদদের মতে, দেশটিতে প্রযুক্তি পণ্য, উপাদান ও সরঞ্জাম রফতানিতে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিপরীতে চীন সরকার এ উদ্যোগ নিয়ে থাকতে পারে। বিক্রি কমার পেছনে এটিকেও অন্যতম কারণ বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে হুয়াওয়ের স্মার্টফোন ব্যবসা লোকসানের মুখে পড়ে। বৈশ্বিক পর্যায়ে ব্যবসা গুটিয়ে নিলেও চীনের বাজারে গত বছর কোম্পানিটি বেশকিছু ডিভাইস বাজারজাত করেছে। এর মাধ্যমে ব্যবসায়িক কার্যক্রম অনেকটাই গুছিয়ে নিয়েছে চীনা কোম্পানিটি। উন্নত প্রসেসরযুক্ত ডিভাইসগুলো বাজারে আনার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক পর্যায়েও প্রতিযোগিতা বাড়িয়েছে হুয়াওয়ে। এর ধারাবাহিকতায় ২০২৩ সালের শেষ প্রান্তিকে কোম্পানির বাজার হিস্যা ১ দশমিক ২ শতাংশ বেড়েছে।

গত বছরের শেষ প্রান্তিকে হুয়াওয়ের স্মার্টফোন জাহাজীকরণ ৩৬ দশমিক ২ শতাংশ বেড়েছে। একই সময় ১৩ দশমিক ৯ শতাংশ বাজার হিস্যা নিয়ে চীনের বাজারে চতুর্থ বৃহৎ স্মার্টফোন নির্মাতাও হয়েছে হুয়াওয়ে যা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ১০ দশমিক ৩ শতাংশ বেশি। অন্যদিকে পুরো বছরের হিসাবে ২০২৩ সালে ১৭ দশমিক ৩ শতাংশ বাজার হিস্যা নিয়ে ভিভোকে ছাড়িয়ে শীর্ষে উঠে আসে অ্যাপল। এর মাধ্যমে প্রথমবারের মতো চীনের বাজারে অ্যাপল শীর্ষে উঠে এলেও বিশ্লেষকদের মতে চলতি বছর কোম্পানির বিক্রিতে পুনরায় প্রভাব পড়বে।

বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলোর মতে, চীনের অভ্যন্তরীণ কোম্পানিগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতা বাড়ায় হাই-এন্ড বা ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস বাজারে অ্যাপলের আধিপত্য কমেছে। বিশ্লেষকরা জানান, পুনরায় শীর্ষে আসার জন্য কুপারটিনোর প্রযুক্তি জায়ান্টটি থার্ড পার্টি ডিস্ট্রিবিউশন চ্যানেলের সহায়তায় চীনের ক্রেতাদের আইফোন ক্রয়ে ডিসকাউন্ট ও প্রমোশনাল অফার দিচ্ছে।

চলতি মাসের শুরুতে আইফোন ক্রয়ে ব্যতিক্রমী ডিসকাউন্ট সুবিধা দিয়েছিল। সে সময় ক্রেতারা ৫০০ ইউয়ান বা ৭০ ডলার কমে আইফোন কিনতে পেরেছে। জেফরিসের বিশ্লেষকরা জানান, ২০২৪ সালে অ্যাপলের স্মার্টফোন বাজারজাত কমবে। অন্যদিকে হুয়াওয়ের বাজার হিস্যা বাড়বে। 

জেফরিজের হিসাব অনুযায়ী, ২০২৪ সালে হুয়াওয়ের স্মার্টফোন বিক্রি ৬ কেটি ৪০ লাখ ইউনিট ছাড়াবে। সে অনুযায়ী গত বছরের তুলনায় এবার কোম্পানিটির বিক্রি উল্লেখযোগ্য মাত্রায় বাড়তে যাচ্ছে। গত বছর হুয়াওয়ে মোট সাড়ে ৩ কোটি ইউনিট বিক্রি করেছে বলে এক প্রাক্কলিত হিসাবে উঠে এসেছে। সামগ্রিকভাবে গত বছরের চতুর্থ প্রান্তিকে চীনের বাজারে ৭ কোটি ৩৬ লাখ ৩০ হাজার ইউনিট স্মার্টফোন বাজারজাত করা হয়েছে। 

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞায় হুয়াওয়ের স্মার্টফোন ব্যবসা প্রভাবিত হলেও প্রযুক্তি খাতে এগিয়ে যেতে বিনিয়োগ অব্যাহত রেখেছে চীন। সেমিকন্ডাক্টর খাত পুনরুদ্ধারে গত বছর প্রযুক্তি ও সরঞ্জাম ক্রয়ে ৪ হাজার কোটি ডলারের বেশি ব্যয় করেছে এশিয়ার দেশটি।

চীনের কাস্টমস বিভাগের তথ্যের বরাতে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ২০২৩ সালে কম্পিউটার চিপ তৈরিতে ব্যবহৃত মেশিন ক্রয়ের হার ১৪ শতাংশ বেড়ে ৪ হাজার কোটি ডলার ছাড়িয়ে গেছে, যা ২০১৫ সালের পর ক্রয়ের তথ্যানুসারে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। ২০২৩ সালে মোট আমদানি ৫ দশমিক ৫ শতাংশ কমলেও ক্রয়ে এ প্রবৃদ্ধি দেখা গেছে। বিশ্লেষকদের মতে, এর মাধ্যমে সেমিকন্ডাক্টর খাতে দেশটির স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়ে ওঠার বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত হয়েছে। চীনের চিপ কোম্পানিগুলো বর্তমানে নতুন সেমিকন্ডাক্টর কারখানাগুলোয় বড় পরিসরে বিনিয়োগ করছে। অভ্যন্তরীণ পর্যায়ে উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা দেশগুলোর নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ওঠার জন্য কোম্পানিগুলো প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।


সম্পাদক ও প্রকাশক: দেওয়ান হানিফ মাহমুদ

বিডিবিএল ভবন (লেভেল ১৭), ১২ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫

বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ: পিএবিএক্স: ৫৫০১৪৩০১-০৬, ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন বিভাগ: ফোন: ৫৫০১৪৩০৮-১৪, ফ্যাক্স: ৫৫০১৪৩১৫