ভারত থেকে আমদানি বৃদ্ধি

পেঁয়াজের দাম কমেছে হিলিতে

বণিক বার্তা ডেস্ক

ছবি : বণিক বার্তা ( ফাইল ছবি)

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বেড়েছে। গত দুদিনে বন্দর দিয়ে ১৩টি ট্রাকে মোট ৩৮০ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। সরবরাহ বেড়ে যাওয়ায় একদিনের ব্যবধানে হিলিতে পেঁয়াজের দাম কমেছে - টাকা।

হিলি বন্দরে একদিন আগেও পাইকারিতে (ট্রাকসেল) আমদানীকৃত প্রতি কেজি পেঁয়াজের মূল্য ছিল ৮৫-৮৬ টাকা। বর্তমানে তা কমে কেজিতে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, দেশের বাজারে চাহিদা ভালো দাম থাকায় দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বেড়েছে। কারণে কমে এসেছে আমদানীকৃত ভারতীয় পেঁয়াজের দাম।

বিষয়ে হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বলেন, ‘গত রোববার বন্দর দিয়ে পাঁচটি ট্রাকে মোট ১৪৫ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। সোমবার আটটি ট্রাকে মোট পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে ২৩৫ টন। হিসাবে গত দুদিনে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ১৩টি ট্রাকে মোট ৩৮০ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ‘পেঁয়াজ যেহেতু কাঁচাপণ্য, তাই কাস্টমসের সব প্রক্রিয়া শেষে দ্রুত যেন আমদানিকারকরা বন্দর থেকে খালাস করে নিতে পারেন, এজন্য বন্দর কর্তৃপক্ষ সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়ে রেখেছে।

অভ্যন্তরীণ বাজারে সংকট দাম বৃদ্ধির কারণ দেখিয়ে গত বছরের ডিসেম্বর পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ভারত সরকার। এরপর থেকে হিলিসহ দেশের অন্যান্য স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে মসলাপণ্যটির আমদানি বন্ধ ছিল। পরবর্তী সময়ে চলতি বছরের মে পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেয় ভারত সরকার। তবে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পরও রফতানিতে ৪০ শতাংশ শুল্ক প্রতি টন পেঁয়াজের রফতানি মূল্য ৫৫০ ডলার নির্ধারণ বজায় রাখা হয়। এতে শুল্ক পরিশোধ, পরিবহন খরচসহ বন্দরে এসে পৌঁছনো পর্যন্ত পেঁয়াজের দাম প্রতি কেজি ৭৫-৮০ টাকায় পৌঁছায়। সাধারণত ভারতীয় পেঁয়াজের দাম দেশী পেঁয়াজ থেকে কম না হলে ক্রেতা সংকটে ভুগতে হয় ব্যবসায়ীদের। কারণে তখন হিলি দিয়ে আমদানি বন্ধ ছিল।

পরবর্তী সময়ে বন্দর দিয়ে অনিয়মিত এক বা দুই ট্রাক পেঁয়াজ আমদানি হতো।

তবে সম্প্রতি আবারো দেশে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। এতে আমদানিতে পড়তা থাকাসহ বাজারে প্রয়োজনীয় চাহিদাও রয়েছে। তাই আবারো হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি বাড়িয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন