প্রেস ব্রিফিংয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সমুদ্রসম্পদ লুণ্ঠন ও জলদস্যুতা বন্ধে ঐক্যমতে আইওআরএ সদস্যরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

সমুদ্রসম্পদ লুণ্ঠন বন্ধ করার পাশাপাশি নিশ্চিত করা হবে সার্বিক সুরক্ষা। বন্ধ করার উদ্যোগ নেয়া হবে ভারত মহাসাগরের জলদস্যুতাও। এ বিষয়গুলোতে ঐক্যমতে পৌঁছেছেন সংশ্লিষ্টরা। গতকাল বৃহস্পতিবার ইন্ডিয়ান ওশান রিম অ্যাসোসিয়েশনের (আইওআরএ) ২২তম সম্মেলনের মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক পরবর্তী ব্রিফিংয়ে এ সব তথ্য জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

গতকাল দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হয় আইওআরএ’র ২২তম সম্মেলনের মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক। সংগঠনটির রজতজয়ন্তী উপলক্ষ্যে আয়োজিত সম্মেলনটি শুরু হয় গত ২১ নভেম্বর। ২০ ও ২১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয় বিজনেস ফোরামের। এরপর গত মঙ্গলবার ও বুধবার অনুষ্ঠিত হয়েছে উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের (সিএসও) বৈঠক। সর্বশেষ গতকাল ১৬টি দেশের মন্ত্রী পর্যায়ের কর্তাব্যক্তিদের নিয়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বিকেলে বৈঠক নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) খুরশীদ আলম।

ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ইন্দো প্যাসিফিক এরিয়াতে অনেকের নজর। এ অঞ্চলের যে সম্পদ আছে, সেগুলো আমরা কীভাবে আরো সংগ্রহ করতে পারি এ সমস্ত বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আইওআরএ এই এলাকার সমুদ্রকে ধরে রাখতে চায়। কারণ বিভিন্নভাবে দূষিত হচ্ছে ধীরে ধীরে। এ নিয়ে আরো গবেষণা ও অনেক কাজ করার জন্য আইওআরএ বেশ শক্তিশালী হয়েছে।

২৩টি দেশ আইওআরএ সদস্য এবং দশটি দেশ হলো ডায়ালগ পার্টনার। এই ডায়ালগ পার্টনারের মধ্যে জাপান, ইতালি, জার্মানি, চীন, রাশিয়া ফেডারেশন, দক্ষিণ কোরিয়া, মিশর, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিরা বক্তব্য দিয়েছেন। কাউন্সিল অব মিনিস্টার্সের সেশনে সবাই উত্সাহ সহকারে নিয়ে অংশ নিয়েছে।

ড. মোমেন বলেন, সম্মেলনে অনেক ধরনের পরামর্শ এসেছে। ডায়ালগ পার্টনাররা বহুবিধ সুপারিশ করেছেন। এর ফলে আমাদের অবস্থানটা আরো উন্নত হয়েছে। আমরা আশা করছি এ প্রেক্ষিতে যে গাইডলাইন আমরা পেয়েছি, আগামীতে আমাদের সেক্রেটারিয়েট এ নিয়ে কাজ করবে। একটা উন্মুক্ত, সুরক্ষিত, শান্তিপূর্ণ ভারত মহাসাগর নিশ্চিত করা যাবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন রকমের প্রচেষ্টা চলছে। আগেভাগেই যাতে এই এলাকায় আমাদের নেভিগেশন যেন উন্নত থাকে, উন্মুক্ত থাকে, সুরক্ষিত থাকে— এসব নিয়েই আমাদের প্রচেষ্টা। তাছাড়া বিভিন্নভাবে ভারত মহাসাগরে সম্পদ কেউ কেউ লুট করছে। আমরা সবাই যৌথভাবে চেষ্টা করবো সম্পদের লুট বন্ধে।

আরো বলেন, যেন অন্যায়ভাবে অবৈধভাবে সম্পদ আহরণ না হয় কিংবা কেউ কেউ অতিরিক্ত মত্স আহরণ করে, সেগুলো সংশোধিত পথে করার জন্য একটা অঙ্গীকারবদ্ধ হয়েছি, সবাই মিলে আমরা এটা করব। এটা কোন দেশ নয়, বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তি সময়ে সময়ে এসব দুর্ঘটনা ঘটান। আমরা সেইজন্য সবাই মিলে ভারত মহাসাগরের সুরক্ষা দিতে চাইছি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন