শুক্রবার | আগস্ট ১৯, ২০২২ | ৪ ভাদ্র ১৪২৯  

শেষ পাতা

জ্বালানির দাম বাড়ায় দেশজুড়ে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

বণিক বার্তা ডেস্ক

হঠাৎ করেই জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ জনগণ। দাম বাড়ার খবরে লম্বা লাইন দেখা দিয়েছে সারা দেশের পেট্রল পাম্পগুলোর বাইরে। কিন্তু চাহিদামতো তেল না পেয়ে ক্ষোভ তৈরি হয় গ্রাহকদের মনে। তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় গাড়ি চালানোও বন্ধ রাখেন অনেক গাড়ির মালিক। তাতে রাস্তায় যানবাহন কম থাকায় দুর্ভোগ পোহাতে হয় সাধারণ যাত্রীদের। এমন পরিস্থিতিতে বাগিবতণ্ডা, মারধর, বিক্ষোভ সড়ক অবরোধ করার খবর এসেছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে।

পঞ্চগড়: জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির খবরে পঞ্চগড় জেলা শহরসহ পাঁচ উপজেলায় পেট্রল পাম্পগুলোয় যানবাহন মালিকদের উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়। দাম বাড়ার তথ্যে পাম্পগুলো তেল সরবরাহ বন্ধ করে দিলে গ্রাহকরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। শহরের বিভিন্ন পেট্রল পাম্পের সামনে যানবাহন রেখে বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়ার ঘটনা ঘটে। এতে পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। শুক্রবার রাত ১২টার পর নতুন দামে তেল বিক্রি শুরু করেন পাম্প মালিকরা। জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পুলিশ বিভিন্ন পাম্পে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ যান চলাচল স্বাভাবিক করে।

পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম জানান, পাম্পে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে পুলিশ পাম্পগুলো তদারক করছে। কোন পাম্পের মজুদ কত তা খোঁজ নেয়া হচ্ছে। আগেকার মজুদ করা তেল বিক্রি করা হচ্ছে।

রংপুর: নগরীর কামারপাড়া ঢাকা কোচ স্ট্যান্ডে গিয়ে দূরপাল্লার বাসের টিকিট বিক্রিতে যাত্রীদের কাছ থেকে বেশি দাম নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। এছাড়া কিছু বাস কাউন্টার আগে বিক্রি করা টিকিটের টাকা যাত্রীদের কোনো কারণ উল্লেখ না করে ফেরত দিয়েছে বলে অভিযোগ মিলেছে। যদিও টিকিট কাউন্টার থেকে অভিযোগ অস্বীকার করা হচ্ছে।

নাবিল, এসআর, হানিফ, শ্যামলীসহ বেশ কয়েকটি কাউন্টারে থাকা দায়িত্বরত ম্যানেজাররা টিকিটের জন্য বাড়তি টাকা নেয়ার কথা অস্বীকার করেন।

রাঙ্গামাটি: গতকাল সকাল থেকে রাঙ্গামাটি-চট্টগ্রাম মহাসড়ক, রাঙ্গামাটি-খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি-বান্দরবান সড়কসহ রাঙ্গামাটির অভ্যন্তরীণ যান চলাচল বন্ধ রাখা হয়। কোনো ঘোষণা ছাড়াই সড়ক পরিবহন বন্ধ হওয়ায় দুর্ভোগে পড়ে সাধারণ মানুষ।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, গতকাল সকাল থেকে চট্টগ্রাম- খাগড়াছড়ি-বান্দরবানগামী কোনো বাস রাঙ্গামাটি থেকে ছেড়ে যায়নি। চট্টগ্রামসহ আশপাশের জেলায় যাতায়াতকারী অভ্যন্তরীণ একমাত্র গণপরিবহন সিএনজিচালিত অটোরিকশা বন্ধের কারণে বিপাকে পড়ে সাধারণ মানুষ।

রাঙ্গামাটি জেলা অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাবু জানান, চালকরা সবাই মিলে সিএনজি অটোরিকশা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ভাড়া নিয়ে বাগিবতণ্ডায় এক চালককে যাত্রীরা মারধর করেছে। এখন আমরা ভাড়া পুনর্নির্ধারণ না হওয়া পর্যন্ত গাড়ি চালাব না।

রাঙ্গামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, আজ বেলা ১১টায় বিষয়ে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠক শেষে সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

সাতক্ষীরা: মূল্যবৃদ্ধির কারণে পণ্য পরিবহনে প্রভাব পড়েছে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরে। গতকাল দুপুরের পর ভোমরা থেকে স্বাভাবিক ভাড়ার চেয়ে থেকে সাড়ে হাজার টাকা অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ট্রাক ছেড়ে গিয়েছে। দূরপাল্লা অভ্যন্তরীণ রুটের বাস নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে বেশি ভাড়ায় চলাচল করছে। তাছাড়া বাসস্বল্পতা বেশি ভাড়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে যাত্রীরা।

ভোমরা স্থলবন্দর সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিন ৩০০-৪০০ ট্রাক ভোমরা বন্দর থেকে পণ্য নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে যায়। এছাড়া ঢাকা, বগুড়া, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পণ্য নিয়ে কিছু ট্রাক ভোমরা স্থলবন্দরে আসে। তবে গতকাল দুপুর পর্যন্ত কোনো ট্রাক ভোমরা স্থলবন্দরে আসেনি। একইভাবে কোনো ট্রাক পণ্য নিয়ে ভোমরা স্থলবন্দর ছেড়ে যায়নি। দুপুরের পর অস্থায়ীভাবে বাড়তি ভাড়ায় ট্রাক চলাচল শুরু হয়েছে।

ভোমরা স্থলবন্দর ট্রান্সপোর্ট সমবায় সমিতির সভাপতি ফিরোজ হোসেন বলেন, ডিজেলের দাম বাড়ার কারণে আগের ভাড়ার সঙ্গে - হাজার টাকা যোগ করে ট্রাকের ভাড়া নেয়া হচ্ছে। সরকারি হার জানলে সে অনুযায়ী ভাড়া নেয়া হবে।

সাতক্ষীরা জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি ছাইফুল করিম সাবু বলেন, জেলার সব রুটে বাস চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। তবে সকালের দিকে ভাড়া নিয়ে দ্বিধায় গণপরিবহনের কিছুটা স্বল্পতা ছিল।

সিরাজগঞ্জ: জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির খবরে ফিলিং স্টেশনগুলোয় গ্রাহকদের উপচে পড়া ভিড় শুরু হয়। কিন্তু প্রয়োজনীয় তেল সরবরাহ দিতে পারেননি এর মালিকরা। যার কারণে অনেক জায়গায় বাগিবতণ্ডা এমনকি ফিলিং স্টেশন ভাংচুর এবং মারধরের ঘটনাও ঘটেছে।

সিরাজগঞ্জ শহরের মিরপুর ফিলিং স্টেশনে দাম নিয়ে বাগিবতণ্ডার এক পর্যায়ে এক ব্যক্তিকে বেদম মারধরের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। তবে মারধরের শিকার ওই ব্যক্তির পরিচয় জানা যায়নি।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির বলেন, পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। অভিযোগ করলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বরিশাল: নগরীসহ জেলার ফিলিং স্টেশনগুলোতে ছিল বিভিন্ন পরিবহন মোটরসাইকেলচালকদের উপচে পড়া ভিড়। কেন্দ্রীয়ভাবে কোনো সিদ্ধান্ত না হওয়ায় বরিশালের অভ্যন্তরীণ রুটের বাস ভাড়া এখনো বাড়েনি, তবে কিছু নৌ-রুটে ভাড়া বাড়িয়ে নেয়ার অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা।

এমভি মানামী লঞ্চের সুপারভাইজার শুভ জানান, এখন পর্যন্ত ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত তারা পাননি। তবে নতুন ভাড়ার তালিকা ঠিক করা হবে। এতে কেবিনের ভাড়ায় তেমন প্রভাব না পড়লেও ডেকের ভাড়ায় পরিবর্তন আসবে।

বাগেরহাট: জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বাগেরহাটের সাধারণ মানুষ। এতে জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়ে যাবে বলে মনে করছেন তারা।

বাগেরহাট আন্তঃজেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি শেখ নজরুল ইসলাম বলেন, বাগেরহাটের অভ্যন্তরীণ ১৬টি রুটে বাস চলাচল করে। সরকার জ্বালানি তেলের দাম যে হারে বাড়িয়েছে সেই হারে নতুন করে আবার ভাড়া নির্ধারণ করতে হবে। প্রশাসনের সঙ্গে সভা করে ভাড়া ঠিক করা হবে।

কক্সবাজার: দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে সারা দেশের মতো কক্সবাজারেও বেশির ভাগ দূরপাল্লার বাসের চাকা ঘুরছে না। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতে বেড়াতে আসা হাজার হাজার পর্যটক। অল্প কিছু গাড়ি চললেও তাতে নেয়া হচ্ছে দ্বিগুণ ভাড়া।

সরকার এখনো ভাড়া নির্ধারণ না করে দিলেও ইচ্ছেমতো ভাড়া নেয়ার অভিযোগ করছে পর্যটকরা। তাছাড়া দূরপাল্লা কক্সবাজার অভ্যন্তরীণ রুটগুলোয় দেখা দিয়েছে পরিবহন সংকট। কোনো রকম ঘোষণা ছাড়াই গণপরিবহনের এমন সংকটের কারণে গন্তব্যে যেতে পারছে না কক্সবাজারে আসা পর্যটকরা।

গতকাল কক্সবাজার কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, কলাতলী, সুগন্ধা পয়েন্টের বিভিন্ন কাউন্টার ঘুরে দেখা গিয়েছে, কক্সবাজারে অর্ধেকেরও কম গাড়ি চলাচল করছে। একেবারে চলাচল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে হানিফ পরিবহন, সৌদিয়া, মারছা, এসআই পরিবহনের মালিক কর্তৃপক্ষ।

হিলি: দিনাজপুরের হিলিতে বিপাকে পড়েছেন বিভিন্ন পরিবহন মালিক এর চালক-সহকারীরা। তেলের দাম বাড়ায় ট্রাক বাস চালানো বন্ধ করে দিয়ে দ্রুত ভাড়া বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন চালকরা। এদিকে বাস না চলায় বিপাকে পড়েছে যাত্রীরা, তেমনি পণ্য পরিবহন নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন বন্দরের ব্যবসায়ীরা।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারক এনামুল হক বলেন, আগে যেসব ট্রাক কম ভাড়ায় পেঁয়াজসহ বিভিন্ন পণ্য পরিবহন করত এখন সেখানে ভাড়া বাড়বে। বাড়তি ভাড়ার প্রভাব পড়বে পণ্যের ওপর। সাধারণ মানুষকে আগের চেয়ে বাড়তি দামে কিনে খেতে হবে।

যশোর: কোনো ধরনের নোটিস বা ঘোষণা ছাড়াই যাত্রীবাহী পরিবহনের ভাড়া বাড়িয়ে দেয়ার সিদ্ধান্তে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে যশোরের যাত্রীরা। ক্রমাগত যাত্রী চালকদের মধ্যে কথাকাটাকাটির ঘটনাও ঘটছে।

যশোর থেকে বিভিন্ন রুটে সীমিত আকারে ছেড়েছে গণপরিবহন। যশোর শহর থেকে ১৮টি রুটে বাস চলাচল করে। প্রায় প্রতিটি পরিবহন কাউন্টারে যাত্রীরা বাগিবতণ্ডা করছে। অতিরিক্ত ভাড়া দিতে তারা নারাজ। ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির ২৪ ঘণ্টা পার না হতেই বাস ভাড়া বেড়ে যাওয়ায় সমালোচনা করেছে যাত্রীরা।

যশোর আন্তঃজেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ঈগল পরিবহনের স্বত্বাধিকারী পবিত্র কাপুড়িয়া বলেন, আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো রুটের বাস ভাড়া বাড়াইনি। সরকার নির্ধারিত যে ভাড়া বাড়ানো হয়েছে সেটি নেয়া হবে।

 

প্রতিবেদনটি তৈরিতে সহায়তা করেছেন পঞ্চগড়, রংপুর, সাতক্ষীরা, সিরাজগঞ্জ, বরিশাল, বাগেরহাট, কক্সবাজার, হিলি যশোর প্রতিনিধি

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন