শুক্রবার | আগস্ট ১২, ২০২২ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯  

শেষ পাতা

এক্সপ্রেসওয়ের টোল

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের রুটে আরেক দফা বাড়ছে বাস ভাড়া

শামীম রাহমান

পদ্মা সেতুর টোল সমন্বয় করে সেতু উদ্বোধনের আগেই দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১৫টি রুটে বাস ভাড়া এক দফা বাড়িয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) এসব রুটের বাসে আসনপ্রতি ভাড়া বেড়েছে ১০ টাকা। আগামী জুলাই থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কে (ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ে) অন্তর্বর্তীকালীন টোলহার কার্যকর করার ঘোষণা দিয়েছে সড়ক জনপথ (সওজ) অধিদপ্তর। ফলে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের রুটগুলোয় আরেক দফা বাড়তে যাচ্ছে বাস ভাড়া। একই সঙ্গে এক্সপ্রেসওয়ে ব্যবহার করে পদ্মা সেতু পাড়ি দেয়ার ক্ষেত্রে অন্যান্য যানবাহনেরও টোল বাবদ খরচ বাড়ছে।

মাওয়া-জাজিরায় ফেরির টোল দেড় গুণ হারে নির্ধারণ করা হয়েছে পদ্মা সেতুর টোল। টোলহারের সঙ্গে সমন্বয় করে জুন একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে বিআরটিএ। পদ্মা সেতুতে যানবাহন চলাচল শুরুর পর থেকেই সমন্বিত বাস ভাড়া কার্যকর হয়েছে।

সায়েদাবাদ-বরিশাল (ভায়া মাওয়া-ভাঙ্গা-মাদারীপুর) রুটে টোলসহ আদায়যোগ্য ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৪২১ টাকা ২৭ পয়সা। একইভাবে সায়েদাবাদ-গোপালগঞ্জ (ভায়া পদ্মা সেতু-ভাঙ্গা) রুটে ৩৯২ টাকা ২৪ পয়সা, সায়েদাবাদ-খুলনা (ভায়া পদ্মা সেতু-ভাঙ্গা-গোপালগঞ্জ) রুটে ৫৩৭ টাকা ২৯ পয়সা, সায়েদাবাদ-শরীয়তপুর (ভায়া পদ্মা সেতু-জাজিরা) রুটে ২২৫ টাকা ৭৮ পয়সা, সায়েদাবাদ-পিরোজপুর (ভায়া পদ্মা সেতু-ভাঙ্গা-বরিশাল) রুটে ৫৩২ টাকা ৭৭ পয়সা, সায়েদাবাদ-পিরোজপুর (ভায়া পদ্মা সেতু-ভাঙ্গা-গোপালগঞ্জ-বাগেরহাট) রুটে ৫৮৩ টাকা ৩৬ পয়সা, সায়েদাবাদ-পটুয়াখালী (ভায়া পদ্মা সেতু-ভাঙ্গা-বরিশাল) রুটে ৫১৯ টাকা ২৬ পয়সা, সায়েদাবাদ-মাদারীপুর (ভায়া পদ্মা সেতু-ভাঙ্গা) রুটে ৩১৩ টাকা, সায়েদাবাদ-সাতক্ষীরা (ভায়া পদ্মা সেতু-ভাঙ্গা-গোপালগঞ্জ-খুলনা) রুটে ৬৫৪ টাকা, সায়েদাবাদ-ফরিদপুর (ভায়া পদ্মা সেতু-ভাঙ্গা) রুটে ২৯২ টাকা ৩৪ পয়সা, সায়েদাবাদ-শরীয়তপুর (ভায়া বুড়িগঙ্গা দ্বিতীয় সেতু-পদ্মা সেতু) রুটে ২২৫ টাকা ৭৮ পয়সা সায়েদাবাদ-কুয়াকাটা (ভায়া পদ্মা সেতু-ভাঙ্গা-মাদারীপুর-বরিশাল-পটুয়াখালী) রুটে ৭০১ টাকা পয়সা নতুন ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। এর বাইরে কক্সবাজার-বরিশাল রুটে হাজার ৩৪৯ টাকা, চট্টগ্রাম-খুলনা রুটে হাজার ১৪৯ টাকা চট্টগ্রাম-বরগুনা রুটে নতুন ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে হাজার ২২৩ টাকা।

বিআরটিএর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বর্তমানে আরামদায়ক সার্ভিস হিসেবে বেশির ভাগ দূরপাল্লার বাস ৪০ আসনে পরিচালিত হচ্ছে। কারণে একটি বাসে ৪০ যাত্রী যাবেন ধরে নিয়েই পদ্মা সেতুর টোলহার ভাড়ার সঙ্গে সমন্বয় করা হয়েছে। সরকার নির্ধারিত কিলোমিটারপ্রতি একটি বাসের সম্মিলিত ভাড়া পদ্মা সেতুর টোল যোগ করে তা ৪০ জন যাত্রীকে সমানভাবে ভাগ করে দেয়া হয়েছে।

আগামী জুলাই থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কে টোল আদায় শুরুর ঘোষণা দিয়েছে সওজ অধিদপ্তর। পদ্মা সেতু চালুর আগে এক্সপ্রেসওয়েটির জন্য একটি অন্তর্বর্তীকালীন টোলহার চূড়ান্ত করে রেখেছিল সংস্থাটি। এতে কিলোমিটারপ্রতি ভিত্তি টোল ধরা হয়েছে ১০ টাকা। হিসেবে একটি মাঝারি ট্রাকের টোল হবে ৫৫০ টাকা।

তবে সওজ অধিদপ্তর থেকে টোলহার এখনো প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশ না হওয়ায় ভাড়া সমন্বয়ের কাজ শুরু করতে পারেনি বিআরটিএ। সংস্থাটির চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মজুমদার বণিক বার্তাকে বলেছেন, আমরা খোঁজখবর নিয়ে জানতে পেরেছি, দু-একদিনের মধ্যে প্রজ্ঞাপনটি হয়ে যাবে। প্রজ্ঞাপন হওয়ার পর আমরা বাস ভাড়া সমন্বয় করে জনসাধারণকে জানিয়ে দেব। 

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের রুটগুলোতে যেভাবে পদ্মা সেতুর টোলহার সমন্বয় করা হয়েছে, এক্সপ্রেসওয়ের ক্ষেত্রেও সেভাবে বাসের ভাড়া সমন্বয় করা হবে। ফলে যাত্রীপ্রতি বাসের ভাড়া খুব সামান্য পরিমাণে বাড়বে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এদিকে জুলাই থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কে যে টোলহার কার্যকর হতে যাচ্ছে, তা অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের জন্য প্রণয়ন করা হয়েছে। প্রসঙ্গে সওজ অধিদপ্তরের ঢাকা জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান বণিক বার্তাকে বলেন, অন্তর্বর্তীকালীন টোলহার যখন চূড়ান্ত হয়, তখনো পদ্মা সেতু চালু হয়নি। পাশাপাশি এক্সপ্রেসওয়ের সুযোগ-সুবিধাগুলোও পুরোপুরি প্রস্তুত ছিল না। কারণে যানবাহনের টোল কম করে ধরা হয়। এখন পদ্মা সেতু চালু হয়েছে। এক্সপ্রেসওয়েও প্রয়োজনীয় সব সুযোগ-সুবিধা নিয়ে প্রস্তুত। তাই আরেকটি টোলহার আমরা প্রায় চূড়ান্ত করে এনেছি। এটি কার্যকর হলে অন্তর্বর্তীকালীন টোলহার বাতিল হয়ে যাবে। অন্তর্বর্তীকালীন টোলহারের তুলনায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কের স্থায়ী টোলহার সামান্য বেশি হবে বলে জানান তিনি।

৫৫ কিলোমিটার দীর্ঘ ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের অন্তর্বর্তীকালীন টোল বাতিল করে স্থায়ী টোলহার কার্যকরের পর ফের বাস ভাড়া সমন্বয়ের প্রয়োজন হবে বলে জানিয়েছেন বিআরটিএর কর্মকর্তা। অর্থাৎ তখন বাস ভাড়া আরো বাড়বে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন