শুক্রবার | আগস্ট ১২, ২০২২ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯  

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

স্থানীয়ভাবে উড়োজাহাজ উৎপাদন বাড়ানোর পরিকল্পনা রাশিয়ার

বণিক বার্তা ডেস্ক

ইউক্রেনে আগ্রাসনের পরিপ্রেক্ষিতে রাশিয়ার বিস্তৃত খাতজুড়ে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে পশ্চিমা দেশগুলো। এতে বিপর্যস্ত অবস্থায় পড়েছে দেশটির এভিয়েশন খাত। বন্ধ হয়ে গিয়েছে রুশ এয়ারলাইনসগুলোর আন্তর্জাতিক ফ্লাইট। অবস্থায় স্থানীয়ভাবে উড়োজাহাজ উৎপাদন বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে রাশিয়া। লক্ষ্যে দেশটি ৭৭ হাজার কোটি রুবল ( হাজার ৪৫০ কোটি ডলার) বিনিয়োগ করবে। খবর রয়টার্স।

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞায় কয়েক মাস ধরে রুশ এয়ারলাইনসগুলোর আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ রয়েছে। ইজারা দেয়া সংস্থাগুলো নিষেধাজ্ঞার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে উড়োজাহাজগুলো জব্দ করার ঘোষণা দিয়েছে। অন্যদিকে মস্কোও নিষেধাজ্ঞার প্রতিক্রিয়ায় ইজারা দেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর শতাধিক উড়োজাহাজ জব্দ করার অনুমতি দিয়ে একটি আইন পাস করেছে। বিদেশী নির্মাতা প্রতিষ্ঠানও নতুন উড়োজাহাজ সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে। বন্ধ হয়ে গিয়েছে খুচরা যন্ত্রাংশের সরবরাহও।

রুশ উপপ্রধানমন্ত্রী ইউরি বোরিসভ একটি টেলিভিশন বৈঠকে বলেন, স্থানীয়ভাবে উড়োজাহাজ উৎপাদন বাড়াতে জোর দেয়া হচ্ছে। ২০৩০ সালের মধ্যে রুশ এয়ারলাইনসের বহরে উড়োজাহাজের অংশ ৮১ শতাংশে উন্নীত হবে।

রাশিয়া উড়োজাহাজ উৎপাদন স্থানীয়করণের জন্য চাপ দিচ্ছে। তবে কেবল সুখোই সুপারজেট উড়োজাহাজ দেশটিতে ব্যাপকভাবে উৎপাদিত হয়। যদিও উড়োজাহাজের গুরুত্বপূর্ণ ইঞ্জিন যন্ত্রাংশসহ উল্লেখযোগ্যসংখ্যক উপাদান আমদানি করা হয়।

দেশটি মাঝারি দূরত্বের এমএস-২১ উড়োজাহাজ উৎপাদনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। মডেলটির উৎপাদনও বিদেশী কিছু যন্ত্রাংশের ওপর নির্ভরশীল। মস্কো সোভিয়েত সময়ে ডিজাইন করা টিইউ-২১৪ মডেলের কিছু উড়োজাহাজ তৈরি করারও আশা করছে। পরিকল্পনা অনুসারে, ২০৩০ সালের মধ্যে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত প্রায় এক হাজার নতুন উড়োজাহাজ পাবে দেশটির এয়ারলাইনসগুলো।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন