শুক্রবার | আগস্ট ১২, ২০২২ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯  

পণ্যবাজার

২০২১-২২ মৌসুম

খাদ্যশস্যের বৈশ্বিক উৎপাদন পূর্বাভাস বাড়িয়েছে আইজিসি

বণিক বার্তা ডেস্ক

২০২১-২২ মৌসুমে বৈশ্বিক খাদ্যশস্য উৎপাদন আগের মৌসুমের তুলনায় শতাংশ বাড়ার পূর্বাভাস মিলেছে। উৎপাদন বৃদ্ধিতে প্রধান ভূমিকা পালন করবে গম ভুট্টার ঊর্ধ্বমুখী উৎপাদন। সম্প্রতি ইন্টারন্যাশনাল গ্রেইনস কাউন্সিল (আইজিসি) কর্তৃক প্রকাশিত গ্রেইন মার্কেট প্রতিবেদনে তথ্য উঠে এসেছে।

আইজিসি বলছে, মৌসুমে সরবরাহ বৃদ্ধির হার খাদ্যশস্যের ব্যবহারকে ছাড়িয়েছে যাবে। মৌসুমের শেষ নাগাদ প্রাক্কলিত মজুদের পরিমাণ দাঁড়াবে ৬০ কোটি ৭০ লাখ টনে, যা আগের মৌসুমের তুলনায় শতাংশ বেশি। ২০১৬-১৭ মৌসুমের পর এবারই প্রথম মজুদ বাড়ার ঘটনা ঘটতে যাচ্ছে।

আইজিসির প্রাক্কলন অনুযায়ী, ২০২১-২২ মৌসুমে রেকর্ড খাদ্যশস্য উৎপাদন হবে। উৎপাদনের পরিমাণ দাঁড়াবে ২২৯ কোটি টনে, যা ২০২০-২১ মৌসুমে উৎপাদিত ২২২ কোটি টন খাদ্যশস্যের চেয়ে বেশি।

আইজিসি ২০২১-২২ মৌসুমের জন্য সয়াবিন উৎপাদনের পূর্বাভাস বাড়িয়েছে। শস্যটির উৎপাদন আগের পূর্বাভাসের তুলনায় এক কোটি টন বেড়ে ৩৫ কোটি ১০ লাখ টনে উন্নীত হতে পারে। তবে গত মৌসুমের তুলনায় উৎপাদন নিম্নমুখীই থাকবে। ওই সময় উৎপাদনের পরিমাণ ছিল ৩৬ কোটি ৯০ লাখ টন। 

রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা চালানোর পর থেকেই কৃষ্ণ সাগরীয় অঞ্চল থেকে খাদ্যশস্য সরবরাহ স্থবির হয়ে পড়েছে। ইউক্রেনের সমুদ্রবন্দরগুলো অবরোধ করে রেখেছে রুশ সেনারা। এছাড়া অনেক বন্দরে মাইন পুঁতে রাখা হয়েছে। ফলে সমুদ্রপথে শীর্ষ উৎপাদক দেশটির রফতানি বন্ধ হয়ে পড়েছে। বর্তমানে দেশটি স্থল, রেল নদীপথে খাদ্যশস্য রফতানি করছে।

অন্যদিকে বৈশ্বিক খাদ্যশস্য রফতানিতে প্রথম রাশিয়াও বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের মধ্যে। পশ্চিমা দেশগুলোর একের পর এক নিষেধাজ্ঞায় দেশটির খাদ্যশস্য রফতানিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। এসব প্রতিবন্ধকতার কারণে ২০২১-২২ মৌসুমে খাদ্যশস্যের বৈশ্বিক রফতানি পূর্বাভাস কমিয়েছে আইজিসি।

সংস্থাটি বলছে, মৌসুম থেকে রফতানির পরিমাণ ৪১ কোটি ৭০ লাখ টনে উন্নীত হতে পারে, যা আগের মৌসুমের তুলনায় শতাংশ কম। আইজিসির প্রক্ষেপণ অনুযায়ী, ২০২২-২৩ মৌসুমে খাদ্যশস্যের বাণিজ্য আরো কমে ৪০ কোটি ৫০ লাখ টনে নামতে পারে।

আগামী মাসে ২০২২-২৩ বিপণন মৌসুম শুরু হবে। মৌসুমে উৎপাদন মে মাসের দেয়া পূর্বাভাসের তুলনায় ৪০ লাখ টন বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আইজিসি। ২০২১-২২ মৌসুমের তুলনায় উৎপাদন কোটি ৫০ লাখ টন কমতে পারে।

আইজিসি বলছে, শত প্রতিবন্ধকতার মধ্যেও ইউক্রেনে প্রত্যাশার তুলনায় বেশি জমিতে ভুট্টা আবাদ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় উৎপাদনও বাড়তে পারে। দেশটিতে ভুট্টা উৎপাদন পূর্বাভাস বৃদ্ধি সংস্থাটিকে খাদ্যশস্যের বৈশ্বিক উৎপাদন পূর্বাভাস বাড়াতে সহায়তা করেছে।

২০২২-২৩ বিপণন মৌসুমে গম উৎপাদন শতাংশ কমতে পারে। উৎপাদনের পরিমাণ দাঁড়াবে ৭৬ কোটি ৯০ হাজার টনে। অন্যদিকে লক্ষণীয় মাত্রায় কমতে পারে ভুট্টা উৎপাদনও। শস্যটির উৎপাদন শতাংশ কমে ১১৯ টনে নামতে পারে।

এদিকে ব্রাজিল বেশ কয়েকটি ক্ষুদ্র উৎপাদক অঞ্চলে উৎপাদন বাড়ার ভিত্তিতে বৈশ্বিক সয়াবিন উৎপাদন পূর্বাভাস বাড়ানো হয়েছে। আইজিসি বলছে, ২০২২-২৩ মৌসুমে সয়াবিনের বৈশ্বিক উৎপাদন আগের মৌসুমের তুলনায় ১১ শতাংশ বাড়বে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন