শনিবার | আগস্ট ১৩, ২০২২ | ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯  

খবর

সিলেট ও সুনামগঞ্জের মানুষের পাশে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

নিজস্ব প্রতিবেদক

সিলেট ও সুনামগঞ্জে ১৫ টন পশুখাদ্য ও বিশুদ্ধ পানি, শুকনো খাবারসহ তিনটি চিকিৎসা টিম নিয়ে কাজ করছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। আজ শুক্রবার থেকে এসব খাদ্য বিতরণ শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুরমা ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ১৫ টন পশুখাদ্য বিতরণের জন্য ঢাকা থেকে পাঠানো হয়। আজ থেকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় এ খাদ্যগুলো বিতরণ শুরু হয়েছে। 

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র গত ১৭ জুন থেকে সিলেট এবং সুনামগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় অসহায়দের মাঝে ১০০ টন শুকনো খাদ্য বিতরণের কাজ শুরু করেছে। এরই মধ্যে ২১ টন শুকনো খাদ্য চিড়া ও ৫ টন গুড় বিতরণ করা হয়েছে। ২ লিটারের ৫ হাজার বোতল পানি ও পানি বিশুদ্ধ করার পর্যাপ্ত ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়।

প্রতিটি পরিবারকে ২ কেজি চিড়া, ২৫০ গ্রাম গুড়, ২ লিটারের একটি করে পানির বোতল, পানি বিশুদ্ধ করার ট্যাবলেট, খাবার জি স্যালাইন, প্যারাসিটামল, শিশুদের জন্য জি প্যারাসিটামল সিরাপসহ বিভিন্ন ওষুধ পত্র বিতরণ করে যাচ্ছে। দক্ষিণ সুনামগঞ্জে এবং শান্তিগঞ্জ উপজেলায় পাগলা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রসহ দুইটি চিকিৎসা টিম কাজ করছে। আর অপর গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি নওধার, বিশ্বনাথ, সিলেট জেলায় চিকিৎসা অব্যাহত রেখেছে। গত পাচঁদিনে প্রায় ৫ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া ২ হাজার বন্যার্ত মানুষকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। বিশ্বনাথ নওধার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র, শান্তিগঞ্জ পাগলা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে প্রায় ২ হাজার ৫০০ মানুষ আশ্রয় নিয়েছে।

স্থানীয় প্রশাসনের সমন্বয় ও সহযোগিতার মাধ্যমে গণস্বাস্থ্যের ত্রাণ বিতরণের কাজ এগিয়ে চলছে। গতকাল সুন্দরগঞ্জের জয়কলস, দরগাপাড়া, পূর্ব বিশগাঁও, পশ্চিম পাগলা ও পূর্ব পাগলাসহ পাঁচটি ইউনিয়নে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। এসময় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কর্মকর্তা শাওনাজ সুলতানাসহ পাগলা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন