শনিবার | জুন ২৫, ২০২২ | ১১ আষাঢ় ১৪২৯  

শেয়ারবাজার

মালেক স্পিনিংয়ের পর্ষদে একগুচ্ছ সিদ্ধান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি মালেক স্পিনিং মিলস লিমিটেডের পরিচালানা পর্ষদ কোম্পানির ব্যবসা সংক্রান্ত একগুচ্ছ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে সাবসিডিয়ারির জন্য জমি কেনা, জিরো কুপন বন্ড ইস্যু বীমা দাবির অর্থ দিয়ে আরেক সাবসিডিয়ারির মেয়াদি ঋণ পরিশোধ।

তথ্যানুযায়ী, কোম্পানির পরিচালক অন্য অংশীজনদের কাছ থেকে ময়মনসিংহের ভালুকায় ৫৫ বিঘা বা ১৮১৫ ডেসিমিল জমি কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালেক স্পিনিং মিলস। জমিতে নতুন প্লান্ট স্থাপন করবে কোম্পানিটি। এতে আনুমানিক ব্যয় হবে ৫৫ কোটি টাকা, যা কোম্পানিটির সর্বশেষ হিসাব বছরের আর্থিক প্রতিবেদনে উল্লেখিত স্থায়ী সম্পদের শতাংশ বা তার চেয়ে বেশি হবে।

কোম্পানিটির সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠান জেএম ফেব্রিক লিমিটেড গাজীপুরের ডোগরি বাহাদুরপুরে ৯৫৪ দশমিক ৯৪ ডেসিমিল জমি কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রেজিস্ট্রেশন ফিসহ জমি কিনতে কোম্পানিটির আনুমানিক ব্যয় হবে ৪৭ কোটি ৭০ লাখ টাকা। সাবসিডিয়ারির ভবিষ্যৎ ব্যবসা সম্প্রসারণে জমি ক্রয় করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। জমি ক্রয়ের সব খরচ সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠানটির ফান্ড থেকে জোগান দেয়া হবে। এজন্য মালেক স্পিনিংয়ের কোনো ফান্ডের প্রয়োজন হবে না।

কোম্পানিটির আরেক সাবসিডিয়ারি সালেক টেক্সটাইল লিমিটেডের ফেব্রিক ইউনিটে ২০২১ সালের এপ্রিল অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ক্ষয়ক্ষতি বাবদ কোম্পানিটির বীমা দাবি ছিল ৩০ কোটি ৪৭ লাখ ৯১ হাজার ১৮৭ টাকা। এখান থেকে কোম্পানিটি ২১ কোটি ১২ লাখ ৮৮ হাজার ১০৪ টাকা বীমা দাবি পুনরুদ্ধার করেছে, যার পুরোটাই কোম্পানির মেয়াদি ঋণ পরিশোধে ব্যয় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালেক স্পিনিংয়ের পর্ষদ।

এদিকে মালেক স্পিনিংয়ের পরিচালনা পর্ষদ ২৯০ কোটি টাকার জিরো কুপন বন্ড ইস্যুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ঋণ কমানো আর্থিক সক্ষমতা বাড়াতে কোম্পানিটি বন্ড ইস্যুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বন্ড ইস্যুর জন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির অনুমোদন চাইবে কোম্পানিটি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন


×