শুক্রবার | আগস্ট ১৯, ২০২২ | ৪ ভাদ্র ১৪২৯  

টকিজ

২ হাজার কোটি ডলার লোকসানে ইউরোপের সিনেমা বাজার

ফিচার ডেস্ক

পুরো বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে করোনা মহামারী। ২০২০-২১ পুরো দুই বছর মহামারী জীবনের স্বাভাবিক ছন্দে অনেক পরিবর্তন এনেছে। বিনোদন দুনিয়ায়ও এর প্রভাব সুস্পষ্ট। মঙ্গলবার ইন্ডাস্ট্রি ট্রেড গ্রুপ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন অব সিনেমাস (ইউএনআইসি) থেকে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ২০২০-২১ সাল পর্যন্ত করোনভাইরাস মহামারীর কারণে ইউরোপীয় সিনেমায় হাজার কোটি ডলারের লোকসান হয়েছে। ইউএনআইসি বার্ষিক প্রতিবেদনে দেখানো হয়েছে, বছরজুড়ে থিয়েটার হলগুলো বন্ধ থাকা, অতিমারী ঠেকাতে স্বাস্থ্য সুরক্ষাসহ নানা বিধিনিষেধের প্রভাব পড়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন যুক্তরাজ্যের বিনোদন খাতে। স্পেনের বার্সেলোনায় চলমান সিনেইউরো সম্মেলনে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। তিন দিনব্যাপী সম্মেলন শুরু হয়েছে ২০ জুন। আজ অনুষ্ঠিত হচ্ছে শেষ অধিবেশন।

২০১৯ সালে ইউরোপীয় বক্স অফিস সর্বোচ্চ আয় করেছিল। সে বছর আয় হয়েছিল প্রায় হাজার কোটি ডলার। ২০২০ সালে করোনা মহামারী দেখা দেয়ায় আয়ের পরিমাণ দাঁড়ায় মাত্র আড়াই কোটি ডলার। তবে গত বছর থেকে ফের পরিবর্তন আসতে থাকে ইউরোপীয় বক্স অফিসে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন যুক্তরাজ্যে বক্স অফিসে ৪২ শতাংশ আয় বেড়ে প্রায় কোটি ডলার আয় হয়। তবে এটা ছিল কভিড-১৯-এর আগের সময়ের আয়ের চেয়ে ৭০ শতাংশ কম। 

ইউএনআইসি বলছে, বিনোদন খাতে আয় কমে যাওয়ার অন্যতম একটি কারণ কম কনটেন্ট। ইউএনআইসি প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১৯ সালে ইউরোপজুড়ে গড়ে ৪৮০টি নতুন কাজ মুক্তি দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে ২০২০ সালে মাত্র ২৫০টি নতুন কাজ করা হয়েছে এবং গত বছর মাত্র ২৭০টি কনটেন্ট এসেছে। এর মধ্যে মাত্র ৯৫টি ছিল মার্কিন শিরোনাম। যেটি অবশ্য টিকিট বিক্রি করার উদ্দেশ্যেই করা হয়েছে। নো টাইম টু ডাই, স্পাইডার-ম্যান: নো ওয়ে হোম, ডুন, এফ নাইন ভেনম: লেট দেয়ার বি কার্নেজ পাঁচটি সিনেমা বক্স অফিসে সাফল্য পেয়েছিল। সিনেমাগুলো ইউরোপে কোটি ৮০ লাখ ডলারের টিকিট বিক্রি করেছে।

ইউএনআইসি তাদের প্রতিবেদনে বলছে, গত বছরের মাঝামাঝি থেকে বিশ্বজুড়ে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে ইউরোপের সিনেমা বাজারে পরিবর্তন আসতে শুরু করে। এর কারণ বিধিনিষেধ না থাকায় মানুষ এখন থিয়েটার হলগুলোয় যাচ্ছে এবং নির্মাতারাও নতুন সিনেমা মুক্তি নির্মাণে কাজ করছেন। এছাড়া গাওয়ার স্ট্রিট অ্যানালিটিকস বলছে, সব ঠিক থাকলে বছরই ইউরোপীয় বক্স অফিসে আয় হাজার কোটি ডলার ছাড়িয়ে যাবে। আর এটি হলে গত বছরের চেয়ে ৬২ শতাংশ বেশি আয় আসবে ইউরোপীয় বক্স অফিসে।

 

সূত্র: হলিউড রিপোর্টার

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন