মঙ্গলবার | জুন ২৮, ২০২২ | ১৪ আষাঢ় ১৪২৯  

খবর

বিশিষ্টজনদের প্রতিক্রিয়া

মেডিটেশন থেকে ভ্যাট প্রত্যাহারের আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক

মেডিটেশন বা ধ্যান স্বাস্থ্য সেবা থেকে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন দেশের বিশিষ্টজনরা। ২০২২-২৩ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মেডিটেশনের উপর ভ্যাট আরোপের প্রতিক্রিয়ায় এ আহ্বান জানানো হয়। বিশিষ্টজনদের মধ্যে সংসদ সদস্য, অর্থনীতিবিদ, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, কবি, চিকিৎসক রয়েছেন।

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আ ফ ম রহুল হক সংসদে এবারের বাজেট অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন ২০ জুন। তিনি মেডিটেশনে ভ্যাট প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, মেডিটেশনে ট্যাক্স দেয়া হয়েছে। সেটা কমিয়ে গতবারের মতো শূন্য করার জন্য আহ্বান জানাই।

গত ১৯ জুন রাশেদ খান মেনন বাজেট বক্তৃতায় প্রশ্ন রেখে বলেন, মেডিটেশনকে মানসিক স্বাস্থ্য বাড়ানোর জন্য প্রয়োজন বিধায় একে করের বাইরে রাখা প্রয়োজন। 

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ড. আবদুল মজিদ বলেন, যেখান থেকে মানুষের সেবা ও সুস্থতার একটা ব্যবস্থা করা হয় মেডিটেশন হচ্ছে সেরকম একটা মাধ্যম বা পথ। এর উপর সাধারণত কোনো ভ্যাট বা ট্যাক্স হওয়ার কথা না। এটিকে পুনর্বিবেচনা করার আহ্বান জানান তিনি। 

মেডিটেশনকে চিকিৎসা সহায়ক হিসেবে স্থায়ীভাবে ভ্যাটমুক্ত করার কথা জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যালিয়েটিভ মেডিসিন বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. নিজাম উদ্দিন আহমদ। 

বুয়েটের অধ্যাপক ড. মো. শামসুল হক বলেন, ভ্যাট আরোপের ফলে এটির উপর মানুষের আগ্রহ কমে যাবে। কবি অসীম সাহা জানান, মেডিটেশনের মাধ্যমে স্বাস্থ্যগত উপকার হয়, চিন্তা-চেতনার বিকাশও হয়। তাই মেডিটেশনের উপর যেন কোনো ভ্যাট আরোপ করা না হয়। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মেডিটেশন বা ধ্যান মানসিক স্বাস্থ্য সেবা হিসেবে বিবেচিত। স্বাস্থ্য সেবা যেহেতু ভ্যাটমুক্ত, তাই মেডিটেশনের উপর থেকেও ভ্যাট প্রত্যাহার করাটা জরুরি।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে দেশের চিকিৎসকদের জন্যে প্রকাশিত উচ্চ রক্তচাপ চিকিৎসার গাইডলাইনে যৌথভাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন জীবনধারা পরিবর্তনের পাশাপাশি মেডিটেশন, যোগব্যায়াম ও প্রাণায়াম চর্চার কথা বলা হয়েছে।


এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন


×