বুধবার | জুন ২৯, ২০২২ | ১৫ আষাঢ় ১৪২৯  

প্রথম পাতা

বন্যা পরিস্থিতি

সিরাজগঞ্জে যমুনার পানি বৃদ্ধি নদীভাঙন

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, সিরাজগঞ্জ

বৃষ্টি উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি বাড়ছে। সেই সঙ্গে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। গতকাল বিকাল পর্যন্ত শহররক্ষা বাঁধ এলাকায় ২৪ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে পানি বিপত্সীমা না পেরোলেও ছুঁইছুঁই করছে। এছাড়া বিভিন্ন এলাকায় নদীভাঙন দেখা দিয়েছে। নিয়ে আতঙ্কে রয়েছে স্থানীয়রা। তবে এরই মধ্যে ভাঙন ঠেকাতে কাজ শুরু করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) পাউবোর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভাঙন রোধে বালির বস্তা ফেলা হচ্ছে। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের পানি পরিমাপক হাসানুর রহমান জানান, শহররক্ষা বাঁধ এলাকায় পানির বিপত্সীমা ধরা হয় ১৩ দশমিক ৩৫ সেন্টিমিটার। শনিবার বিকালে ১২ দশমিক ১৬ সেন্টিমিটার রেকর্ড করা হয়। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে শনিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টায় ২৪ সেন্টিমিটার পানি বেড়ে বিপত্সীমার দশমিক ১৯ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, বাঁধ এলাকায় গত বৃহস্পতিবার বেলা ৩টার দিকে ১১ দশমিক ৩৪ সেন্টিমিটার শুক্রবার বিকালে ১১ দশমিক ৮৮ সেন্টিমিটার পানির উচ্চতা রেকর্ড করা হয়।

এদিকে পানি বৃদ্ধির কারণে প্রতিদিন নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে। নদীর তীব্র স্রোতে জেলার নদীর তীরবর্তী কাজিপুর, সদর, শাহজাদপুর, বেলকুচি চৌহালির অনেক জায়গায় নদীভাঙন দেখা দিয়েছে। ভাঙনে ঘরবাড়ি, ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। অবস্থায় অসহায় হয়ে পড়েছে ভাঙনকবলিত জনপদের মানুষ। তবে এরই মধ্যে ভাঙন রোধে নদীতে বালির বস্তা ফেলছে পাউবো।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম বলেন, বর্ষা মৌসুমের শুরুতে তিনদিন ধরে যমুনায় পানি বাড়ছে। যমুনা নদীতে পানি বাড়ার কারণে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে। কিছু স্থানে নদীভাঙন দেখা দিয়েছে। ভাঙন রোধে বালির বস্তা ফেলা হচ্ছে। তবে এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন


×