শনিবার | মে ২১, ২০২২ | ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ 

টেলিকম ও প্রযুক্তি

মাস্কের টুইটার অধিগ্রহণ সাময়িকভাবে স্থগিত

বণিক বার্তা ডেস্ক

ইলোন মাস্কের টুইটার অ্যাকাউন্ট ছবি: রয়টার্স

প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি ডলারে টুইটার অধিগ্রহণ পরিকল্পনা সাময়িকভাবে স্থগিত রেখেছেন ইলোন মাস্ক। স্প্যাম ভুয়া অ্যাকাউন্ট নিয়ে বিস্তারিত তথ্যসংক্রান্ত জটিলতায় সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন টেসলা স্পেসএক্স প্রধান। খবর রয়টার্স দ্য ভার্জ।

গতকাল এক টুইটে মাস্ক জানান, টুইটারে স্প্যাম ভুয়া অ্যাকাউন্টের সংখ্যা মোট অ্যাকাউন্টের শতাংশের প্রতিনিধিত্ব করে কিনা, বিষয়ে স্পষ্ট উপাত্ত নিয়ে জটিলতায় সাময়িকভাবে অধিগ্রহণ পরিকল্পনা স্থগিত করা হয়েছে।

চলতি মাসের শুরুতে হাজার ৪০০ কোটি ডলারে মাস্কের কাছে মাইক্রোব্লগিং সাইটটি বিক্রিতে সম্মত হয়েছিল টুইটারের পরিচালনা পর্ষদ। সময় বলা হয়েছিল টুইটারের দৈনিক সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যা ২২ কোটি ৬০ লাখ। মাস্কের ঘোষণায় শেয়ারবাজারে ব্যাপক দরপতনের মুখোমুখি হয় টুইটার। দিনের শুরুতে টুইটারের শেয়ারদর পতন হয় ২০ শতাংশ। তবে টেসলার শেয়ারদর বেড়েছে শতাংশ।

দিনের শেষের দিকে আরেক টুইটে ইলোন মাস্ক লেখেন, এখনো অধিগ্রহণের ব্যাপারে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

টুইটার কর্তৃপক্ষের সরবরাহ করা প্রতিবেদনের ফলে সৃষ্ট জটিলতায় অধিগ্রহণ সাময়িকভাবে স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেন মাস্ক। নিজস্ব প্রতিবেদনে টুইটার দাবি করে, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে সক্রিয় মাসিক ব্যবহারকারীর মধ্যে শতাংশেরও কম ভুয়া বা স্প্যাম অ্যাকাউন্ট রয়েছে। কিন্তু নিজেরাই উপাত্ত নিয়ে সন্দিহান। অতীতেও বিভিন্ন উপাত্ত নিয়ে গরমিলের ইতিহাস রয়েছে টুইটারের। সপ্তাহখানেক আগে প্রকাশ করা আয়-ব্যয়ের উপাত্তে টুইটার জানায়, টানা তিন বছর ধরে সক্রিয় মাসিক ব্যবহারকারীর উপাত্তে নির্ধারিতের চেয়ে বেশি গণনা হয়েছে। প্রতি প্রান্তিকে ১৯ লাখেরও বেশি অ্যাকাউন্টের হিসাব অতিরিক্ত ছিল। এখন টুইটারের সক্রিয় ব্যবহারকারীর মধ্যে স্প্যাম বা ভুয়া অ্যাকাউন্টের পরিমাণ যদি শতাংশের বেশি হয় তাহলে মাস্ককে বেশি টাকা দিতে হচ্ছে। সঠিক উপাত্ত পেলে টুইটারের বিনিময় মূল্য শতাংশ কমতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। স্প্যাম ভুয়া অ্যাকাউন্টের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানের পাশাপাশি টুইটার পর্ষদের সঙ্গে আরেকটু দরকষাকষি করার সুযোগ হিসেবে অধিগ্রহণ সাময়িকভাবে স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছেন মাস্ক।

এদিকে নিউইয়র্ক টাইমসের আরেক প্রতিবেদনে বলা হয়, মাস্কের হাতে যাওয়ার আগে টুইটারে কর্মী ছাঁটাই শুরু হয়েছে, চাকরিচ্যুত হয়েছেন দুই উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা। তাদের মধ্যে টুইটারের ভোক্তা বিভাগের নেতৃত্বে ছিলেন কেভন বেকপুর। আর ব্রুস ফালক দেখতেন আয় বিভাগ। গত বৃহস্পতিবার দুই শীর্ষ কর্মকর্তাকে ছাঁটাইয়ের তথ্য নিশ্চিত করেন টুইটার সিইও পরাগ আগারওয়াল। উচ্চপদস্থ দুই কর্মকর্তাকে ছাঁটাইয়ের পাশাপাশি নতুন কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়াও স্থগিত রেখেছে টুইটার। তবে ব্যবসার জন্য গুরুত্বপূর্ণ পদে প্রয়োজনে তারা কর্মী নিয়োগ দেবে। বেকপুর ফালক দুজনেই চাকরি হারানোর খবর জানিয়েছেন টুইট করে। দুজনকেই চাকরি ছাড়তে বলেছেন টুইটারের বর্তমান প্রধান নির্বাহী পরাগ আগারওয়াল। এর মধ্যে বেকপুর পিতৃত্বকালীন ছুটিতে ছিলেন। টুইটারে তিনি কাজ করেছেন সাত বছর। তার ভাষায়, সিইও পরাগ আগারওয়াল টুইটারকে ভিন্ন গতিপথে নিতে চান, সে কারণে তাকে চলে যেতে বলেছেন।

বেকপুর ছুটিতে থাকায় ভোক্তা বিভাগের দেখভাল করছিলেন জে সুলিভান। বেকপুরের বিদায়ের পর স্থায়ীভাবেই ভোক্তাপণ্য বিভাগের দায়িত্ব নিচ্ছেন তিনি। নতুন প্রধান নিয়োগের আগ পর্যন্ত তিনি বিভাগের দায়িত্বেও থাকবেন। বেকপুর ফালক উভয়ের চাকরি হারানোর পরে টুইটে সরাসরি উত্তর দিয়েছেন প্রধান নির্বাহী পরাগ আগারওয়াল। উভয়কেই ধন্যবাদ জানিয়ে ব্যক্তিগত জায়গা থেকে ভালো লাগার কথা জানিয়েছেন তিনি। তবে টুইটারে আগারওয়ালের নিজের ভবিষ্যৎও অনিশ্চিত। বাজারে জোর আলোচনা, অধিগ্রহণ চুক্তির আনুষ্ঠানিকতা শেষে সম্ভবত মাস্ক নিজেই টুইটারের প্রধান নির্বাহীর পদে বসবেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন