সোমবার | মে ২৩, ২০২২ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ 

দেশের খবর

শিল্প ও কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হচ্ছে যশোরে

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, যশোর

যশোরে শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র স্থাপন হতে যাচ্ছে। স্থানীয় শিল্পগুলোর আন্তর্জাতিক মানের পণ্য উৎপাদনে সক্ষম দক্ষ জনবল তৈরি এর উদ্দেশ্য।

এরই মধ্যে যশোর সদরের হামিদপুরে পাঁচ একর জমিপ্রাপ্তি নিশ্চিত করাসহ সেখানে অবকাঠামোর জন্য প্রকল্প অনুমোদন করেছে একনেক। বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্রের (বিটাক) পরিচালক . মো. জালাল উদ্দিন মুঠোফোনে বলেন, বিটাক অনুমোদন পাওয়ায় বছরে জেলায় হাজার ৪৮ জন নারী-পুরুষ পাবে কারিগরি প্রশিক্ষণ। এতে তারা দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত হবে।

বিটাকের পরিচালক কার্যালয় সূত্র মতে, শিল্প খাতে প্রশিক্ষিত জনবলের কর্মসংস্থান আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সম্প্রসারণে সরকার বদ্ধপরিকর। এজন্য যশোরসহ ছয়টি জেলার আশপাশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের যুব-নারী পুরুষ প্রশিক্ষণার্থীদের সহজে আধুনিক সুবিধাসংবলিত কারিগরি প্রশিক্ষণের সুযোগ সৃষ্টি করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে উৎপাদনমুখী প্রক্রিয়াজাত শিল্পে অভিজ্ঞ জনবল তৈরিসহ স্থানীয় শিল্পগুলো আন্তর্জাতিক মানের পণ্য উৎপাদনে আরো বেশি দক্ষ জনবল তৈরি সম্ভব হবে। লক্ষ্যে শিল্পসমৃদ্ধ জেলা যশোরে বিটাকের কেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে। শহরতলির হামিদপুরে জমি নির্বাচন করে সেখানে ১০ তলা ফ্লোরবিশিষ্ট একটি পুরুষ একটি নারী হোস্টেল ভবন, পাঁচতলা ফ্লোরবিশিষ্ট একটি অফিস ভবন, চারতলা ফ্লোরবিশিষ্ট ওয়ার্কশপ ভবন নির্মাণ, ছয় তলা ফ্লোরবিশিষ্ট একটি অটোমোবাইল ওয়ার্কশপ চারতলা ফ্লোরবিশিষ্ট ফাউন্ড্রি ওয়ার্কশপ ভবন নির্মাণ করা হবে। সেখানে মোটরসাইকেল মেনটেইন্যান্স অ্যান্ড টেস্টিং, অটোমোবাইল মেনটেইন্যান্স অ্যান্ড টেস্টিং, মেশিনশপ (সাধারণ), মেশিনশপ (সিএনসি), ইলেকট্রিক্যাল মেনটেইন্যান্স, ওয়েল্ডিং, রেফ্রিজারেশন অ্যান্ড এয়ার কন্ডিশনিং, ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইন্টারনেট অব থিংসসহ ১০টি কোর্সে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে দুই হাজার ৪৮ জনকে। তিন মাস মেয়াদি কোর্স হিসেবে বছরে চারটি কোর্স পরিচালনার চিন্তা রয়ে সংশ্লিষ্টদের। তবে স্থানীয় শিল্পের চাহিদা অনুযায়ী নির্ধারিত ট্রেড পরিবর্তন করে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ দেয়ার সুযোগ থাকবে।

যশোর চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান খান বলেন, শিল্পসমৃদ্ধ যশোরে দক্ষ জনবলের অভাব রয়েছে। জেলার শহরতলিসহ প্রত্যন্ত এলাকায় অসংখ্য অটোমাবাইল, ওয়েল্ডিং কারখানায় বিভিন্ন পণ্য তৈরি করা হয়। কারিগরদের প্রশিক্ষণ দেয়া গেলে পণ্যগুলোর মানোন্নত হওয়া সম্ভব, যা দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রফতানি করা যেতে পারে। ফলে প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই। যশোরে ধরনের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র আরো আগে হওয়ার দরকার ছিল।

বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্রের (বিটাক) পরিচালক . জালাল উদ্দিন বলেন, এরই মধ্যে একনেক সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন হয়েছে। আশা করছি দ্রুত অবকাঠামো নির্মাণসহ লোকবল নিয়োগ দিয়ে ২০২৫ সালের শেষের দিকে কেন্দ্রটি চালু করা সম্ভব হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন