রবিবার | মে ২২, ২০২২ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ 

টকিজ

শিল্পীদের পেশার স্বীকৃতি চাইলেন সুবর্ণা মুস্তাফা

ফিচার প্রতিবেদক

সুবর্ণা মুস্তাফা

বরেণ্য অভিনেত্রী সংসদ সদস্য সুবর্ণা মুস্তাফার হাত ধরে চলচ্চিত্র নাট্যাঙ্গানের শিল্পীদের বহুদিনের আক্ষেপ ঘুচল। তাদের পক্ষ হয়ে কেউ সংসদে কথা বললেন। তুলে ধরলেন দীর্ঘদিনের দাবি। গত রোববার সংসদ ভবনে দাঁড়িয়ে শিল্পীদের পক্ষে কথা বলেছেন তিনি। স্বাধীনতার ৫০ বছর পেরিয়ে গেলেও দেশের শিল্পী সমাজ এখনো কোনো নির্দিষ্ট স্বীকৃতি পায়নি। শিল্পীকে পেশা হিসেবে ঘোষণা করা হয়নি। ফলে নানা বঞ্চনার শিকার হতে হয় তাদের। বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন সুবর্ণা মুস্তাফা।

জাতীয় সংসদে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে ১৯৬৯-এর গণঅভ্যুত্থান, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র, চরমপত্র, ট্রাকে চড়ে ক্যাম্প থেকে ক্যাম্পে একদল শিল্পী ছুটে যাচ্ছেন দেশের গানে, গণশক্তিতে মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্বুদ্ধ করতে। শরণার্থী শিবিরে নিচ্ছেন সেবকের ভূমিকা। নব্বইয়ের স্বৈরাচারীবিরোধী আন্দোলনে দিনের পর দিন রাজপথে কেটেছে এসব শিল্পীর। আর গত নির্বাচনে আমাদের শিল্পী সমাজের ভূমিকা প্রশংসারও ঊর্ধ্বে। এত গৌরবগাথার মধ্যে একটি বিষাদের ছায়া থেকেই যাচ্ছে। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, শিল্পী আমাদের দেশে এখনো কোনো স্বীকৃত পেশা নয়।

মাসিক বেতনের প্রক্রিয়া নেই বিধায় শিল্পীরা ব্যাংক লোন নিতে পারেন না। কথা জানিয়ে সুবর্ণা মুস্তাফা বলেন, একজন সাধারণ কর্মচারী মাসিক বেতনের খতিয়ান দেখিয়ে ব্যাংক লোন নিতে পারেন। কিন্তু একজন প্রতিষ্ঠিত শিল্পী, যিনি ওই চাকরিজীবীর চেয়ে অবশ্যই বেশি আয় করেন, নিয়মিত আয়কর দেন, কিন্তু সব কাগজপত্র দেয়ার পরও সামান্য একটি হোম লোন পান না। আমি ব্যাংককে দোষারোপ করছি না। তারা তাদের নিয়মের মধ্যেই থাকবে। শুধু ভরসা করতে পারছে না, একজন শিল্পী মাসে মাসে লোনের কিস্তি শোধ করতে পারবে। কারণ শিল্পী কোনো স্বীকৃত পেশা নয়।

জাতীয় সংসদের স্পিকার . শিরীন শারমিন চৌধুরীর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে অনুরোধ জানিয়ে সুবর্ণা মুস্তাফা বলেন, আপনি আমাদের শিল্পীদের সহায়। বারবার আমরা আপনার কাছেই ফিরে আসি। আপনার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মঞ্চনাটককে করমুক্ত করে দিয়েছিলেন। আপনার ভাই শহীদ শেখ কামাল মঞ্চে অভিনয় করতেন, সেতার বাজাতেন, ছবি আঁকতেন। আমি সেই সৌভাগ্যবানদের একজন, যে মঞ্চে অভিনয়রত অবস্থায় আপনাকে (প্রধানমন্ত্রী) মহিলা সমিতিতে দর্শক সারিতে পেয়েছিলাম। তাই আপনার কাছেই বলতে চাই, আপনি শিল্পী সমাজকে তাদের দীর্ঘদিনের বঞ্চনার হাত থেকে রক্ষা করুন। শিল্পীর পেশাকে স্বীকৃতি দিন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত মহিলা আসন- থেকে জয়লাভ করেন সুবর্ণা মুস্তাফা। তিনি ছাড়াও কয়েকজন তারকা সংসদ সদস্য হয়েছেন। কিন্তু এভাবে শিল্পীদের দাবি নিয়ে কেউ স্পষ্ট ভাষায় কথা বলেননি।

তাই সুবর্ণা মুস্তাফার বক্তব্যটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে অনেকেই ধন্যবাদ জানাচ্ছেন। নায়ক শাকিব খান লিখেছেন, দেশের আপামর শিল্পীর কণ্ঠস্বর হয়ে কথা বলার জন্য ধন্যবাদ আমার ভীষণ প্রিয় শ্রদ্ধেয় সুবর্ণা মুস্তাফা ম্যাডাম। আপনার মতো প্রকৃত শিল্পী যখন জাতীয় সংসদ অধিবেশনে অন্যান্য শিল্পীর সম্মান অধিকারের কথা বলেন, তখন আমরা অনুপ্রাণিত হই আর সাহস পাই। স্বপ্ন দেখি সুন্দর আগামীর।

জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসানও সুবর্ণা মুস্তাফাকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্যটির ভিডিও শেয়ার করেছেন।

অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার মেয়ে সুবর্ণা মুস্তাফা আশির দশকের জনপ্রিয় অভিনেত্রী। ঘুড্ডি, নয়নের আলো, শঙ্খনীল কারাগার, পালাবি কোথায়সহ তার অভিনীত বেশকিছু চলচ্চিত্র জনপ্রিয়তা পায়। এছাড়া কোথাও কেউ নেই, আজ রবিবারের মতো জনপ্রিয় নাটকেও অভিনয় করেছেন সুবর্ণা মুস্তাফা।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন