সোমবার | মে ২৩, ২০২২ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ 

শেষ পাতা

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

পদত্যাগ দাবিতে অনড় অনশনে অসুস্থ ১৪ শিক্ষার্থী

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, সিলেট

শাবিপ্রবিতে অনশনরত শিক্ষার্থীদের অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ছবি: নিজস্ব আলোকচিত্রী

শাহজালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের দাবিতে অনড় শিক্ষার্থীরা। সমাধান খুঁজতে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করতে চেয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এজন্য ঢাকায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি পাঠাতে বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী। এদিকে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন অনশনরত শিক্ষার্থীরা। ২৪ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত ১৪ জন শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। 

শিক্ষামন্ত্রীর আলোচনার প্রস্তাবে প্রথমে সম্মতি দিলেও পরে মত পাল্টান শিক্ষার্থীরা। তারা বলেন, ঢাকায় নয়, আলোচনা হবে সিলেটেই। তারা জানিয়েছেন, আলোচনার জন্য শিক্ষামন্ত্রীকে সিলেট আসতে হবে অথবা ভার্চুয়ালি যুক্ত হওয়ার মাধ্যমে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে আলোচনা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্বরে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পক্ষে সাদিয়া আফরিন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করে সম্মিলিতভাবে সিদ্ধান্তের কথা জানান।

শুক্রবার ছিল চলমান আন্দোলনের অষ্টম দিন। এদিন বেলা ৩টায় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সেলফোনে কথা বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সময় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি শিক্ষার্থীদের বলেন, তোমরা ঢাকায় আসো। তারপর আমরা সমস্যা সমাধানে আলোচনা করি। সবার পক্ষ থেকে তোমাদের একটি প্রতিনিধি দল পাঠাও। যাতে প্রতিনিধি দলের সিদ্ধান্ত সবাই মানে। 

মন্ত্রীর সঙ্গে কথা শেষে শিক্ষার্থী সাদিয়া আফরিন সাংবাদিকদের জানান, আমাদের মধ্য থেকে একটি প্রতিনিধি দল শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করার জন্য বলা হয়েছে। মন্ত্রী মহোদয় আমাদের সঙ্গে কথা বলতে একটি প্রতিনিধি দল চেয়েছেন। আলোচনা সাপেক্ষে শিক্ষার্থীদের একটি দল মন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব। এদিকে আলোচনা হলেও ভিসি পদত্যাগ না করা পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন তারা। 

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে শিক্ষার্থীদের কথা বলিয়ে দেন। সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মহিবুল আলমও শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন এবং শিক্ষকদের একটি প্রতিনিধি দল যাবে বলে জানান। 

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পক্ষে সাদিয়া আফরিন পরে বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে জানান, এখানে আন্দোলনকারীদের ফেলে ঢাকা যাওয়া সম্ভব না। আলোচনার জন্য শিক্ষামন্ত্রীকে সিলেট আসার অনুরোধ জানাই অথবা তিনি চাইলে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমেও আলোচনা হতে পারে।

সাদিয়া জানান, তাদের সিদ্ধান্ত শিক্ষামন্ত্রীর পক্ষে আলোচনার প্রস্তাব নিয়ে যাওয়া আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম নাদেলকে জানানো হয়েছে। মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে তিনি শিক্ষার্থীদের জানাবেন।

এদিকে গুরুতর অসুস্থ অনশনরত ১৪ শিক্ষার্থীকে সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্য থেকে শুক্রবার বেলা ২টায় রাফি নামে এক শিক্ষার্থী আবারো অনশনস্থলে ফিরে আসেন। 

অন্যদিকে ভিসির পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনরত শাহজালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ক্যাম্পাসে মশাল মিছিল করেছেন। মিছিলটি ভিসির বাসভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে চেতনা একাত্তর হয়ে আবার তার বাসভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী মোহাইমিনুল বাশার বলেন, আমাদের একটাই দাবি। তা হলো উপাচার্যের পদত্যাগ। দাবি আদায় না হলে আমরা আন্দোলন থেকে সরছি না। প্রয়োজনে আমরা মারা যাব, তবু ভিসির মুখও দেখতে চাই না। 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বণিক বার্তাকে বলেন, দীর্ঘদিন অচলাবস্থা চলতে পারে না। আমাদের সন্তানদের কষ্ট মেনে নিতে পারছি না। শিক্ষামন্ত্রীর বার্তা পৌঁছে দিয়েছি। দুপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সমাধানের পথ বের করার চেষ্টা করছি। উপাচার্যও আন্দোলনকারীদের সঙ্গে দেখা করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন