বুধবার | জানুয়ারি ২৬, ২০২২ | ১২ মাঘ ১৪২৮

আন্তর্জাতিক খবর

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার প্রতিক্রিয়া

নতুন দুটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ উত্তর কোরিয়ার

বণিক বার্তা অনলাইন

ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ পর্যবেক্ষণ করেন কিম জং উন। ছবি : রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া নিষেধাজ্ঞার প্রতিক্রিয়ায় নতুন দুটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে উত্তর কোরিয়া। গত দুই সপ্তাহের মধ্যে এটি তাদের তৃতীয় পরীক্ষা। আগের দুটি পরীক্ষার পর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার প্রতিক্রিয়া জানাতে নতুন ক্ষেপণাস্ত্রগুলো উৎক্ষেপণ করে কিম জংয় উনের সামরিক বাহিনী।

কাতারের সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার খবরে বলা হয়, ক্ষেপণাস্ত্র দুটি পরীক্ষার আগ মুহুর্তে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার সমালোচনা করে উত্তর কোরিয়া। বারবার তাদের এসব পরীক্ষা উস্কানি হিসেবে দেখা হচ্ছে।

আজ শুক্রবার স্থানীয় সময় দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার পশ্চিম উপকূলে উত্তর পিয়ংগান প্রদেশ থেকে পূর্ব দিকে দুটি স্বল্প-পাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (এসআরবিএম) উৎক্ষেপণ করা হয়েছে। দুটি ক্ষেপণাস্ত্রই প্রায় ৪৩০ কি.মি (১৬৭ মাইল) বেগে সর্বোচ্চ ৩৬ কি.মি. (২২ মাইল) উচ্চতা দিয়ে উড়ে যেতে সক্ষম বলে ধারণা করছেন তিনি। জাপানের কোস্টগার্ডও একই তথ্য জানিয়েছে।

এ ব্যাপারে জাপানের মুখ্য মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিরোকাজু মাতসুনো বলেন, উত্তর কোরিয়ার চলমান সামরিক কার্যকলাপ জাপান ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি। বারবার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ আন্তর্জাতিক সমাজের জন্যও গুরুতর উদ্বেগের বিষয়।

দক্ষিণ কোরিয়ার নৌবাহিনীর কর্মকর্তা সাবেক কর্মকর্তা কিম ডং-ইউপ বলেন, উত্তর কোরিয়া আগের মোতায়েন করা এসআরবিএম (কেএন-২৩ বা কেন-২৪) উৎক্ষেপণ করে থাকতে পারে।

জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার এ দাবি যদি সত্য হয়, তবে নতুন বছরের ১৫ দিন না যেতেই ধারাবাহিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালালো কিম জং উনের দেশ। এর আগে গতকাল হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর দাবি করে দেশটি। ওই পরীক্ষা পর্যবেক্ষণ করেন কিম নিজেই।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন