বুধবার | জানুয়ারি ২৬, ২০২২ | ১২ মাঘ ১৪২৮

টকিজ

সংবাদ আতঙ্ক থেকে রেহাই চাইলেন শবনম ফারিয়া

ফিচার প্রতিবেদক

শবনম ফারিয়া

ছোট পর্দার অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া নানা কারণে সংবাদের শিরোনাম হচ্ছেন। অকারণেও সংবাদে উঠে আসে তার নাম। আর তাই সংবাদ আতঙ্কে থাকেন তিনি, এমন অভিযোগ করে গণমাধ্যমের উদ্দেশে তার ভেরিফায়েড ফেসবুক আইডিতে একটি পোস্ট দিয়েছেন। সেই পোস্টে সংবাদ আতঙ্ক থেকে রেহাই চাইলেন দেবীখ্যাত অভিনেত্রী। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লিখলেন, আমাকে সংবাদ আতঙ্ক থেকে রেহাই দিন।

গত সপ্তাহে ইনস্টাগ্রামে নিজের কয়েকটি ছবি আপলোড দিয়েছিলেন ফারিয়া। ছবিগুলো তার প্রেমিক তুলে দিয়েছেন, এমন কোনো কথা লেখেননি ক্যাপশনে। তার পরও গণমাধ্যমে খবর আসে, শবনম ফারিয়া প্রেম করছেন। আর এতেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী।

ফেসবুকে লিখেছেন, আমাকে নিয়ে কারণে-অকারণে অনেক সংবাদ হয়। কিছু সংবাদ দেখে হাসি, কিছু সংবাদ দেখে রাগ হয়। কিন্তু মাঝে মাঝে কিছু সংবাদ দেখে কী বলব খুঁজে পাই না। অবাক হব, মন খারাপ করব, নাকি ক্ষোভ ঝাড়ব বুঝি না।

কয়েকদিন আগের সেই ঘটনার রেশ টেনে লেখেন, আলিয়া ভাট প্রেমিকের তোলা নিজের কয়েকটি ছবি পোস্ট করে প্রেমিকের ছবি তোলার দক্ষতা দেখিয়েছেন। তাই চিন্তা করলাম আমি কেন আমার বানরের তোলা ছবি দেখিয়ে তার ফটোগ্রাফি দক্ষতা প্রকাশ করব না? আর কথাকে ধরে নিয়ে কিছু গণমাধ্যমে সংবাদ আসে প্রেম করার বিষয়ে। এর পরই কমেন্টকারীদের উদ্দেশে লেখেন, আর আমরাও! নিউজ না পড়ে শিরোনাম দেখে যেসব কমেন্ট করি, আমাদের কি বোধশক্তি বলতে কিছুই নেই? আমরা কি এতই অবুঝ? অনেকে বলে, আপু আপনাকে সাংবাদিকরা অনেক ভালোবাসে, তাই এত নিউজ করে।

এত ভালোবাসার দরকার তার নেই জানিয়ে অভিনেত্রী লেখেন, ভাই, বিশ্বাস করেন, আমার এত ভালোবাসার দরকার নেই। আমি সত্যিই টায়ার্ড। এবার একটু শান্তিতে থাকতে দিন আমাকে। আপনাদের এসব মনগড়া সংবাদের পর অপ্রয়োজনীয় এত আলোচনা-সমালোচনা আর ভালো লাগে না। এবার একটু দয়া করেন আপনাদের সংবাদ আতঙ্ক থেকে রেহাই দিন।

পরের লাইনে আরো কঠোরভাবে লেখেন, প্রয়োজনে আমাকে বয়কট করেন। তাও একটু মুক্তি দেন। আমি এবং আমার পরিবার টায়ার্ড। প্লিজ...

অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া -কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির সঙ্গে যুক্ত হয়ে আইনি জটিলতায় পড়েন। বর্তমানে তিনি জামিনে রয়েছেন। এরই মধ্যে সাবেক স্বামী অপুর সঙ্গে সোস্যাল মিডিয়ায় বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন। পরে পারিবারিকভাবে বিষয়টির সমাধান করা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন