বুধবার | জানুয়ারি ২৬, ২০২২ | ১২ মাঘ ১৪২৮

দেশের খবর

নীলফামারীতে জেএমবির ৫ সদস্য আটক

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, রংপুর

নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জেএমবির রংপুর অঞ্চলের সামরিক শাখার প্রধান অহিদুল ইসলাম ওরফে অহিদ ওরফে পলাশসহ পাঁচজনকে আটক করেছে র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)

গতকাল নীলফামারী সদর উপজেলার মাঝপাড়া এলাকার একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে জেএমবির এসব সদস্যকে আটক করা হয়। সময় তাদের কাছ থেকে বোমা তৈরির সরঞ্জাম, রাসায়নিক উপকরণ, একটি পিস্তল পাঁচ রাউন্ড গুলি, একটি ম্যাগাজিনসহ অন্য সরঞ্জাম জব্দ করে র‍্যাব।

আটক জেএমবির অন্য সদস্যরা হলেন ওয়াহেদ আলী ওরফে আব্দুর রহমান, আব্দুল্লাহ আল মামুন ওরফে ডা. সুজা, জাহিদুল ইসলাম ওরফে জাহিদ ওরফে জোবায়ের, নূর আমিন ওরফে সবুজ। তারা সবাই নীলফামারীর বাসিন্দা।

এসব নিশ্চিত করেন র‍্যাবের আইন গণমাধ্যম শাখার পরিচালক খন্দকার আল মঈন। গতকাল বিকালে নগরীর পানি উন্নয়ন বোর্ড এলাকায় অবস্থিত র‍্যাব-১৩ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে আটক পাঁচজন জেএমবির সামরিক শাখার সদস্য বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তারা জঙ্গি সংগঠনটির সঙ্গে নিজেদের সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন।

খন্দকার আল মঈন আরো বলেন, জেলখানায় অন্তরীণ থাকা শীর্ষ জঙ্গিদের আদালতে নেয়ার পথে হামলা চালিয়ে মুক্ত করা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং গুরুত্বপূর্ণ জনবহুল স্থাপনায় বোমা হামলা চালিয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করা ছিল আটককৃতদের উদ্দেশ্য। সামরিক শাখার কার্যক্রমের অংশ হিসেবে তারা ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) তৈরি ইন্টারনেটের বিভিন্ন ওয়েব পেজ দেখে বোমা তৈরির প্রশিক্ষণ, অনুশীলন এবং নাশকতামূলক হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

গ্রেফতারকৃতরা জানান, অনলাইনে রংপুর অঞ্চলের আমিরের নির্দেশে বেশ কয়েকদিন যাবৎ আইইডি তৈরি করে জঙ্গি শরিফের বাড়িতে রাখেন তারা। নিজেদের দলে রংপুরের বিভিন্ন শ্রেণী-পশার ২০-২৫ জনকে অন্তর্ভুক্তও করেছেন। অহিদুল ইসলাম একটি খেলনা তৈরির কোম্পানির কোয়ালিটি চেকার হিসেবে কাজ করতেন। দশম শ্রেণীতে পড়াকালীন ২০১৫ সালে জেএমবিতে যোগ দেন তিনি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন