শনিবার | জানুয়ারি ২২, ২০২২ | ৯ মাঘ ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

প্রবাসীদের জন্য সেরা শহর দুবাই

বড় চ্যালেঞ্জ পেশা ও ব্যক্তি জীবনে ভারসাম্য আনা

বণিক বার্তা ডেস্ক

বসবাস কর্মক্ষেত্রের জন্য প্রবাসীদের কাছে বিশ্বের শীর্ষ তিন শহরের একটি হয়ে উঠেছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই। দুবাইয়ের বর্তমান প্রবাসী জনগোষ্ঠীর সংখ্যা ৪০ লাখের উপরে। মিউনিখভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনের করা এক্সপ্যাট সিটি র্যাংকিং অনুসারে প্রবাসীদের পছন্দের তালিকায় মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর স্পেনের মালাগা শহরের পরই মধ্যপ্রাচ্যের শহরের নাম উঠে এসেছে।

গেটিং সেটেলড ইনডেক্স অনুসারে প্রবাসীদের পছন্দের তালিকায় তিনটি শহরই বেশ উপরে স্থান করে নিয়েছে। মূলত তারা এসব শহরকে নিজেদের আবাসস্থল খুব সহজেই বন্ধু তৈরি করার জন্য পছন্দ করে থাকেন। পাশাপাশি জীবনযাপনের উচ্চমানের কারণেও প্রবাসীদের পছন্দের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে দুবাই মালাগা। তবে কুয়ালালামপুর মালাগা কিছু ক্ষেত্রে দুবাইকে ছাড়িয়ে গেছে। বিশেষ করে জীবনযাত্রার খরচ, আর্থিক সংস্থান আবাসন খাতে দুবাইকে অতিক্রম করেছে শহর দুটি।

ইন্টারন্যাশনের মতে, বিশ্বের মধ্যে স্থানীয় ভাষার জ্ঞান অর্জন ছাড়াই বসবাসের জন্য দুবাই সবচেয়ে উপযুক্ত স্থান। শহরটির ৮১ শতাংশ প্রবাসীই মনে করে স্থানীয়রা বিদেশী নাগরিকদের প্রতি যথেষ্ট বন্ধুবৎসল। অন্যদিকে বিশ্বের ৬৭ শতাংশ মানুষও এমনটাই মনে করে থাকে।

ইন্টারন্যাশনের জরিপে উঠে আসে দুবাইয়ে বসবাসরত ৭৫ শতাংশ প্রবাসী শহরটিকে নিজের আবাসস্থলের মতো অনুভব করে থাকে, বিপরীতে বৈশ্বিক ৬৫ শতাংশ মানুষ এমনটা মনে করে। নতুন বন্ধু খোঁজার ক্ষেত্রে দুবাইয়ে বসবাসরত ৫৯ শতাংশ প্রবাসী মনে করে শহরটি বেশ উপযুক্ত, অন্যদিকে বিশ্বের ৪৮ শতাংশ মানুষ এমনটা মনে করে থাকে।

শহুরে জীবনযাপনের মান নির্ণায়ক আরবান লিভিং ইনডেক্সেও দুবাইয়ের অবস্থান বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে। সূচকে দুবাইয়ের অবস্থান ১১তম। শহরটিতে বসবাসের ক্ষেত্রে ৯৭ শতাংশ প্রবাসীই নিরাপদ অনুভব করে থাকে বলে জানান, বিশ্বব্যাপী এমনটা মনে করে থাকে ৮৪ শতাংশ মানুষ। অন্যদিকে দুবাইয়ের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা নিয়ে সন্তোষজ্ঞাপন করে থাকে শহরটির ৯০ শতাংশ প্রবাসী জনগোষ্ঠী, বিশ্বব্যাপী এমনটা মনে করে থাকে ৬৪ শতাংশ মানুষ।

তবে শহুরে কর্মজীবনের মান নির্ণায়ক সূচকে অনেকটা পিছিয়ে গেছে দুবাই। আরবান ওয়ার্ক লাইফ ইনডেক্স অনুসারে দুবাইয়ের অবস্থান বিশ্বে ৩৮তম। পাশাপাশি চাকরি নিরাপত্তার জন্য তালিকার শেষ ১০ দেশের মধ্যে অবস্থান করছে শহরটি। প্রবাসীদের কাছে চাকরি নিশ্চয়তার জন্য দুবাইয়ের অবস্থান ৫১তম। দুবাইয়ে বসবাসরত ২২ শতাংশ প্রবাসীই তাদের কর্মজীবনের ভারসাম্য নিয়ে সন্তুষ্ট নয়। অন্যদিকে ৬৫ শতাংশ প্রবাসী মনে করে, তারা তাদের কর্মজীবন নিয়ে সন্তুষ্ট।

ফাইন্যান্স হাউজিং ইনডেক্সেও দুবাইয়ের অবস্থান কিছুটা হতাশাজনক। সূচকের ২১তম স্থানে অবস্থান করছে শহরটি। আবাসন সূচকে শহরটির অবস্থান ১২তম। ৮৬ শতাংশ প্রবাসী মনে করে দুবাইয়ে আবাসন খুঁজে পাওয়া অনেকটা সহজ। তবে ৪১ শতাংশ প্রবাসী মনে করে এসব আবাসনের ব্যয় নির্বাহ করা অনেকটাই কষ্টসাধ্য। আর্থিক সংস্থান সূচকেও শহরটির অবস্থান বেশ দুর্বল। সূচকে দুবাইয়ের অবস্থান ৪৯তম। ৩১ শতাংশ প্রবাসী মনে করে তাদের পারিবারিক আয় যথেষ্ট নয়। চলতি বছর ইন্টারন্যাশনের জরিপে অংশগ্রহণ করেছে ১২ হাজার ৪২০ জন। জরিপে বিশ্বের ৫৭টি শহরের ওপর জরিপ চালানো হয়েছে। প্রবাসীদের শহুরে জীবনযাপন, স্থায়ী বসবাস, শহুরে কর্মজীবন, আর্থিক আবাসন সংস্থান এবং স্থানীয় জীবনযাত্রার ব্যয়ের ওপর জরিপ পরিচালনা করা হয়। জরিপে মধ্যপ্রাচ্যের দেশও কাতারের রাজধানী দোহার অবস্থান ১৫তম, সংযুক্ত আরব আমিরাতের আরেক শহর আবুধাবির অবস্থান ১৬তম, ওমানের রাজধানী মাসকাটের অবস্থান ১৭তম সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের অবস্থান ৪৪তম। অন্যদিকে প্রবাসীদের বসবাসের জন্য তালিকার শেষ দিকে থাকা শহরগুলোর মধ্যে রয়েছে ইতালির মিলান শহর রাজধানী রোম এবং দক্ষিণ আফ্রিকার রাজধানী জোহানেসবার্গ।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন