শনিবার | জানুয়ারি ২২, ২০২২ | ৯ মাঘ ১৪২৮

শেয়ারবাজার

প্রথমার্ধে ফার্স্ট ফাইন্যান্সের লোকসান বেড়েছে দ্বিগুণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চলতি হিসাব বছরের প্রথমার্ধে (জানুয়ারি-জুন) লোকসান বেড়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক-বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান ফার্স্ট ফাইন্যান্স লিমিটেডের। আলোচ্য সময়ে প্রতিষ্ঠানটির লোকসানের পরিমাণ আগের হিসাব বছরের একই সময়ের তুলনায় দ্বিগুণেরও বেশি বেড়েছে। সর্বশেষ অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে তথ্য উঠে এসেছে।

আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা যায়, চলতি হিসাব বছরের প্রথমার্ধে ফার্স্ট ফাইন্যান্সের কর-পরবর্তী নিট লোকসান হয়েছে ৩৬ কোটি ৩৫ লাখ ৭০ হাজার টাকা। যেখানে আগের হিসাব বছরের একই সময়ে লোকসান ছিল ১৬ কোটি ২৮ লাখ ৬০ হাজার টাকা। সেই হিসাব বছরে এক বছরের ব্যবধানে প্রতিষ্ঠানটির লোকসান বেড়েছে ২০ কোটি টাকা বা দশমিক ২৩ গুণ। প্রথমার্ধে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে টাকা পয়সা। যেখানে আগের হিসাব বছরের একই সময়ে লোকসান ছিল টাকা ৪০ পয়সা।

অন্যদিকে দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) ফার্স্ট ফাইন্যান্সের কর-পরবর্তী নিট লোকসান হয়েছে প্রায় ২০ কোটি টাকা। যেখানে আগের হিসাব বছরের একই সময়ে লোকসান ছিল কোটি ২৩ লাখ টাকা। আলোচ্য প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে টাকা ৬৫ পয়সা। যেখানে আগের হিসাব বছরের একই সময়ে লোকসান ছিল ৬২ পয়সা। ৩০ জুন ২০২১ শেষে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে টাকা পয়সা। 

৩১ ডিসেম্বর ২০২০ সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের কোনো লভ্যাংশ দেয়নি ফার্স্ট ফাইন্যান্স। আলোচ্য হিসাব বছরে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল টাকা ৩১ পয়সা। আগের হিসাব বছরে যেখানে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ছিল টাকা ১৬ পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ শেষে এনএভিপিএস দাঁড়ায় টাকা ২৩ পয়সা। 

৩১ ডিসেম্বর ২০১৯ সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য শতাংশ স্টক লভ্যাংশ দিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি। তবে লোকসানের কারণে ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য কোনো লভ্যাংশ দেয়নি তারা।

২০০৩ সালে তালিকাভুক্ত ফার্স্ট ফাইন্যান্সের অনুমোদিত মূলধন ৫০০ কোটি টাকা। পরিশোধিত মূলধন ১১৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা। প্রতিষ্ঠানটির মোট শেয়ারের মধ্যে ৪১ দশমিক ৩১ শতাংশ উদ্যোক্তা-পরিচালকদের কাছে, ১৯ দশমিক ৫৩ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী বাকি ৩৯ দশমিক ১৬ শতাংশ সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে।

ডিএসইতে বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারের সর্বশেষ দর ছিল টাকা ১০ পয়সা। সমাপনী দর ছিল টাকা ২০ পয়সা। গত এক বছরে শেয়ারটির সর্বনিম্ন সর্বোচ্চ দর ছিল যথাক্রমে টাকা ৩০ পয়সা টাকা ৯০ পয়সা।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন