শনিবার | জানুয়ারি ২৯, ২০২২ | ১৬ মাঘ ১৪২৮

পণ্যবাজার

কয়লার বৈশ্বিক বাণিজ্য সম্প্রসারিত হচ্ছে

বণিক বার্তা ডেস্ক

চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে সমুদ্রপথে কয়লার বৈশ্বিক বাণিজ্য ৫ দশমিক ১ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে ছবি: দ্য ব্যাংকক পোস্ট

কয়লার বৈশ্বিক বাণিজ্য কয়েক বছর ধরেই ছিল পড়তির দিকে। এর মধ্যে নভেল করোনাভাইরাসের প্রকোপ দেখা দিলে গত বছর পণ্যটির বাণিজ্যে ধস নামে। দেশে দেশে পঙ্গু হয়ে পড়ে কয়লা উত্তোলন খাত। তবে চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিক থেকে জ্বালানি পণ্যটির বাণিজ্য ইতিবাচক দিকে মোড় নেয়। এখন পর্যন্ত বাণিজ্যে ঊর্ধ্বমুখিতা অব্যাহত আছে। খবর হেলেনিক শিপিং নিউজ ওয়ার্ল্ডওয়াইড। 

শিপব্রোকার কোম্পানি বানচেরো কস্তা জানায়, চলতি বছর বিশ্বজুড়ে কয়লার চাহিদা জোরালোভাবে বেড়েছে। এখনো অব্যাহত আছে চাহিদা বৃদ্ধির ধারা। একই সঙ্গে বেড়েছে পণ্যটির বাণিজ্যও।

২০২১ সালের প্রথম ১০ মাসে বিশ্বব্যাপী সমুদ্রপথে কয়লার বাণিজ্য গত বছরের একই সময়ের তুলনায় দশমিক শতাংশেরও বেশি বেড়েছে। বাণিজ্যের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৯৮ কোটি ৪৭ লাখ টনে। গত বছরের প্রথম ১০ মাসে ৯৩ কোটি ৬৭ লাখ টন বাণিজ্য হয়েছিল। যদিও জ্বালানি পণ্যটির বাণিজ্য মহামারীপূর্ব অবস্থায় ফিরে যেতে পারেনি। তথ্য বলছে, মহামারীর আগে ২০১৯ সালের প্রথম ১০ মাসে সমুদ্রপথে ১০৮ কোটি ৩৭ লাখ টন কয়লার বৈশ্বিক বাণিজ্য হয়। ওই সময়ের তুলনায় দশমিক শতাংশ নিচে অবস্থান করছে চলতি বছরের বাণিজ্য।

চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) বৈশ্বিক কয়লা লোডিং গত বছরের একই সময়ের তুলনায় দশমিক শতাংশ কমে যায়। লোডিংয়ের পরিমাণ দাঁড়ায় ২৭ কোটি ৬৭ লাখ টন। কভিডপূর্ব ২০১৯ সালের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় লোডিং কমেছে ১২ দশমিক শতাংশ। তবে দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) দৃশ্যপটে পরিবর্তন ঘটে। সময় লোডিংয়ের পরিমাণ বেড়ে ২৯ কোটি ৭০ লাখ টনে উন্নীত হয়, যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় দশমিক শতাংশ বেশি। তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) পরিস্থিতির আরো উন্নতি হয়েছে। সময় লোডিং বেড়ে ৩০ কোটি ৬৬ লাখ টনে পৌঁছে, যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ১৪ দশমিক শতাংশ বেশি। অক্টোবরেও জ্বালানি পণ্যটির বৈশ্বিক বাণিজ্য ছিল শক্তিশালী। সময় ১০ কোটি ৪৪ লাখ টন কয়লা রফতানির উদ্দেশ্যে লোডিং করা হয়, যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ১৪ দশমিক শতাংশ বেশি।

গত বছর করোনা পরিস্থিতির কারণে সৃষ্ট লকডাউন বিধিনিষেধের কারণে বৈশ্বিক কয়লা উত্তোলন আনুমানিক শতাংশ কমে যায়। সময় বিশ্বের প্রধান কয়লা উত্তোলনকারী দেশগুলোয় উল্লেখযোগ্য হারে কয়লা উত্তোলন কমে যায়। তবে চলতি বছর অবস্থার উত্তরণ ঘটবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। বছর কয়লা উত্তোলন দশমিক শতাংশ বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে শীর্ষস্থানীয় তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণকারী সংস্থা গ্লোবালডাটা।

সংস্থাটির প্রতিবেদনে বলা হয়, বিভিন্ন দেশের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে ২৩ দশমিক শতাংশ, ইন্দোনেশিয়ায় ১৩ দশমিক , রাশিয়ায় দশমিক অস্ট্রেলিয়ায় দশমিক শতাংশ কয়লা উৎপাদন কমে যায়। এদিকে গত বছর তাপ কয়লার বৈশ্বিক চাহিদা কমে আনুমানিক দশমিক শতাংশ। ধাতব কয়লার বৈশ্বিক চাহিদায়ও ধস নামে। এটি দশমিক শতাংশ কমে যায়। তবে ধীরে ধীরে বৈশ্বিক কয়লা উত্তোলন খাত ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে। চলতি বছর কয়লা উত্তোলন দশমিক শতাংশ বেড়ে ৮০০ কোটি টনে পৌঁছবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন