শনিবার | জানুয়ারি ২৯, ২০২২ | ১৬ মাঘ ১৪২৮

শেষ পাতা

নাঈমকে চাপা দেয়া গাড়ির আরেক চালক গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক

নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসানকে চাপা দেয়া ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) বর্জ্যবাহী গাড়ির আরেক চালককে গ্রেফতার করেছে র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র্যাব) গতকাল ভোরে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে মো. হারুনকে গ্রেফতার করে র্যাব--এর একটি দল। র্যাবের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

গত বুধবার রাজধানীর গুলিস্তানে ডিএসসিসির ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাঈম হাসানের মৃত্যু হয়। সময় চালকের আসনে থাকা মো. রাসেলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তাকে সাতদিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে হাজির করা হলে আদালত তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশ জানায়, দুর্ঘটনার সময় গাড়িটি চালাচ্ছিলেন মো. রাসেল। কিন্তু তিনি প্রকৃতপক্ষে ওই গাড়ির চালক নন। চালক হারুনের কাছ থেকে তিনি গাড়িটি নিয়েছেন।

ঘটনার পর ডিএসসিসি জানায়, বর্জ্যবাহী ওই গাড়ির প্রকৃত চালক ইরান মিয়া। তিনি পরিচ্ছন্নতাকর্মী হারুনকে চুক্তিভিত্তিতে গাড়িটি চালাতে দেন। আর হারুন আবার রাসেল খানকে চালাতে দেন। ঘটনায় ইরান মিয়া হারুনসহ তিনজনকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

র্যাব জানিয়েছে, গ্রেফতারকৃত মো. হারুন গত বছর থেকে নিয়মিতভাবে বর্জ্যবাহী গাড়িটি চালিয়ে আসছে। ওইদিন সে অনুপস্থিত থাকায় তার সহকারী মো. রাসেল গাড়িটি চালায়। তবে দুজনেরই ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই।

নাঈম হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে ডিএসসিসি কর্তৃপক্ষ। সংস্থাটির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা সিতওয়াত নাঈমের নেতৃত্বে কমিটি করা হয়েছে। কমিটিকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এরই মধ্যে চালক মো. হারুন তার সহকারী মো. আব্দুর রাজ্জাক ওরফে রাসেলকে বরখাস্ত করেছে ডিএসসিসি। পাশাপাশি বরাদ্দকৃত গাড়ি নিজে না চালিয়ে নিয়মবহির্ভূতভাবে অন্যকে চালাতে দেয়ায় করপোরেশনের গাড়িচালক (ভারী) মো. ইরান মিয়ার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হয়েছে। তাকে সাময়িক বরখাস্তও করেছে কর্তৃপক্ষ।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন