সোমবার | নভেম্বর ২৯, ২০২১ | ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

টেলিকম ও প্রযুক্তি

ভুয়া তথ্য ও বিদ্বেষমূলক কনটেন্ট

ভারতে ঠেকাতে ব্যর্থ ফেসবুক অ্যালগরিদম

বণিক বার্তা ডেস্ক

ভুয়া তথ্য বিদ্বেষমূলক কনটেন্ট ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে নেয়া ফেসবুকের পদক্ষেপ সন্তোষজনক নয়। ফেসবুকের দৈনিক ব্যবহারকারীর মাত্র ১০ শতাংশ মার্কিন মুলুকের। অথচ সোস্যাল প্লাটফর্মটির মোট বাজেটের ৮৪ শতাংশই চলে যায় সেখানে। অন্যদিকে ভারত, ফ্রান্স ইতালিসহ বিশ্বের বাকি অংশের জন্য বরাদ্দ মাত্র ১৬ শতাংশ।

প্রভাবশালী মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, কীভাবে বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তে ভুয়া খবর বিদ্বেষমূলক কনটেন্টের বিরুদ্ধে তেমন কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না ফেসবুক। এমনকি হিন্দি বাংলা ভাষার জন্য কোনো অ্যালগরিদম ডেভেলপ করেনি সোস্যাল মিডিয়া জায়ান্টটি। অথচ ভাষাভাষীর দিক থেকে হিন্দি হচ্ছে বিশ্বের পঞ্চম বাংলা সপ্তম।

ফেসবুক ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে একটি ডামি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে এটা দেখতে যে তাদের অ্যালগরিদম অনুসারে ভারতে একজন ইউজার কী ধরনের কনটেন্ট দেখতে পান। সেখানে ভুয়া তথ্য ঘৃণা-বিদ্বেষমূলক কনটেন্ট ঠেকাতে অ্যালগরিদমের ব্যর্থতা ধরা পড়ে।

ভারতীয় ব্যবহারকারীরা তাদের অ্যাকাউন্টে কী কী বিষয় দেখেন তা নির্ণয়ে ২০১৯ সালে ফেসবুকের পক্ষ থেকে ডামি অ্যাকাউন্ট খোলা হয়। টানা ২১ দিন ধরে ওই অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ভারতীয় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বিভিন্ন বিষয়ে পর্যবেক্ষণ করা হয়। তারা কী কী ব্রাউজ করেন বা কী ভিডিও দেখেন, কোন কোন গ্রুপে যুক্ত হচ্ছেন, সেসব বিষয় অনুসরণ করা হয়। দেখা গেছে, বেশির ভাগ ব্যবহারকারী বিভিন্ন ভুয়া খবর, হিংসাত্মক ঘটনার ছবি বা ভিডিও শেয়ার করতেন যা ওই ডামি ব্যবহারকারীর ফিডে চলে আসত।

শ্রীলংকায় একজন ব্যবহারকারী ইচ্ছা করলে কোন ফেসবুক গ্রুপে হাজারো সদস্য যুক্ত করতে পারেন। দেখা গেছে, ওই গ্রুপগুলোতে বর্ণবিদ্বেষী ঘৃণামূলক কনটেন্ট শেয়ার হয়, যা জাতিসংঘ সহিংসতায় প্রত্যক্ষ পরোক্ষ ভূমিকা রাখে। ফেসবুকের অপর এক অভ্যন্তরীণ প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ভারতে মুসলিমবিদ্বেষী বিভিন্ন বক্তব্য ফেসবুক প্লাটফর্মে থাকলেও তা সরানো হয়নি। এমনকি উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন বজরং দল প্রকাশ্যে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রচার করছে এবং দলে নতুন সভ্য নিয়োগ দিচ্ছে।

যে ব্যক্তি ডামি ইউজার তৈরি করে পরীক্ষা চালিয়েছিলেন, তার অ্যাকাউন্টটি পর্যবেক্ষণ করেন ফেসবুকের এক গবেষক। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে নিউইয়র্ক টাইমসকে তিনি বলেছিলেন, আমি আমার জীবনে যতটা না লাশ দেখেছি, গত তিন সপ্তাহে তার চেয়ে বেশি লাশের ছবি দেখেছিলাম ওই অ্যাকাউন্টে।

এদিকে, ফেসবুকে ওই ডামি অ্যাকাউন্ট তৈরির কিছুদিন পর পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। ২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানভিত্তিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী জইশ--মোহাম্মদের হামলায় নিহত হন ভারতের কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের ৪০ সদস্য।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন

×