শনিবার | অক্টোবর ২৩, ২০২১ | ৮ কার্তিক ১৪২৮

খবর

প্রধানমন্ত্রী বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে গ্লাসগো যাচ্ছেন ৩১ অক্টোবর

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলন কপ২৬- অংশ নিতে ৩১ অক্টোবর ঢাকা ছাড়বেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দেয়ার পাশাপাশি বাংলাদেশ-যুক্তরাজ্য প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ের দ্বিপক্ষীয় বৈঠকও করবেন তিনি। বৈঠকটি এখনো চূড়ান্ত না হলেও দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী . কে আব্দুল মোমেন।

ন্যাম সম্মেলন থেকে দেশে ফিরে গতকাল পররাষ্ট্র ভবনে সাংবাদিকদের সফর সম্পর্কে বিস্তারিত জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী কে আব্দুল মোমেন। প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন জলবায়ু সম্মেলনের সফর নিয়ে কে আব্দুল মোমেন বলেন, ৩১ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা থেকে রওনা হয়ে গ্লাসগোতে যাবেন। গ্লাসগোতে - নভেম্বর পর্যন্ত কপ২৬-এর উচ্চ পর্যায়ের সভায় অংশ নেবেন। সেখানে ৪৮তম ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামে (সিভিএফ) সভাপতি হিসেবে অংশ নেবেন তিনি। এছাড়া সাইড ইভেন্টে সিভিএফ কপ২৬ উচ্চ পর্যায়ের সভা অনুষ্ঠিত হবে। সেখানও অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, গ্লাসগো থেকে লন্ডন আসবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। লন্ডনে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একটি দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের চেষ্টা চলছে। নিয়ে কাজ চলছে। ব্রিটিশরা এখনো চূড়ান্ত করেনি। তবে আশা করছি বৈঠকটি হবে। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বৈঠকটি গ্লাসগোতে করতে চাচ্ছেন। আর বাংলাদেশ চাচ্ছে লন্ডনে বৈঠকটি করতে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, লন্ডন থেকে ফেরার পথে প্যারিস যাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অর্থনীতিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সৃজনশীল পুরস্কার বা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ক্রিয়েটিভ অ্যাওয়ার্ড ইন ইকোনমিকস নিতে প্রধানমন্ত্রীর যাওয়ার কথা রয়েছে। ১১ নভেম্বর পুরস্কার দেয়া হবে। এটি ইউনিসেফ আয়োজন করেছে। ঢাকায় অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া শান্তি সম্মেলন নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি জানান, আগামী - ডিসেম্বরে ঢাকায় বিশ্ব শান্তি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

এদিকে সদ্য শেষ হওয়া ন্যাম সফরের বিস্তারিত বলতে গিয়ে তিনি জানান, রোমানিয়া বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেয়ার ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছে। এখন কোন কোন ক্ষেত্রে শ্রমিক লাগবে, কোন কোন ক্ষেত্রে আমরা দিতে পারব সেটা বিবেচনা করা হবে। এখন পর্যন্ত এক হাজার শ্রমিক পাঠানো হয়েছে। এছাড়া রোমানিয়ায় কয়েকশ বাংলাদেশী শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিয়ে নেয়ার ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে। একসময় বাংলাদেশীরা সেখানে পড়তে যেতেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিষয়টি এখন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় দেখবে। শ্রমিক পাঠানোর বিষয়টি হবে সরকারিভাবে। বেসরকারি খাতকে এখানে অন্তর্ভুক্ত করা হবে না। ৮৬০ জন বাংলাদেশী সেখানে অবৈধ গিয়েছিল। পরে তারা জার্মানি চলে যায়, সেখান থেকে এদের দেশে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন