রবিবার | অক্টোবর ২৪, ২০২১ | ৯ কার্তিক ১৪২৮

টেলিকম ও প্রযুক্তি

আইফোন ১৩ উৎপাদন কমাচ্ছে অ্যাপল

বণিক বার্তা ডেস্ক

বিশ্বজুড়ে চলমান চিপ সংকটের কারণে যেসব প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যবসায়িক কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে হিমশিম খাচ্ছিল, তাদের মধ্যে অ্যাপল অন্যতম। চলতি বছরের বাকি দিনগুলোতে নয় কোটি ইউনিট আইফোন ১৩ উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা হাতে নিয়েছিল ক্যালিফোর্নিয়ার কুপার্টিনোভিত্তিক প্রযুক্তি জায়ান্টটি। কিন্তু বিষয় সম্পর্কে অবগত একটি সূত্র জানায়, চলমান সেমিকন্ডাক্টর-স্বল্পতায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এক কোটি ইউনিট কম উৎপাদন করবে অ্যাপল। খবর টেক টাইমস।

যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, চলতি বছরের শেষ নাগাদ প্রতিষ্ঠানটি আইফোন ১৩-এর নয় কোটি ইউনিট ডিভাইস উৎপাদন করবে বলে ধারণা করা হয়েছিল। তবে চিপ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ব্রডকম টেক্সাস ইনস্ট্রুমেন্টের মতো প্রতিষ্ঠান যথাসময়ে যন্ত্রাংশ সরবরাহে ব্যর্থ হওয়ায় অ্যাপল তাদের ডিভাইস উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে উৎপাদন কমে যাওয়ার বিষয়ে সতর্ক করেছিল।

জুলাইয়ে অ্যাপল তাদের আয় হ্রাসের বিষয়ে পূর্বাভাস দিয়েছিল। পাশাপাশি চিপ সংকটের কারণে ম্যাকবুক, আইপ্যাডের পাশাপাশি আইফোনের উৎপাদনেও বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে বলে জানিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি। সে মাসে টেক্সাস ইনস্ট্রুমেন্টসও আয় হ্রাসের বিষয়ে জানিয়েছিল। পাশাপাশি বছরের বাকি সময় চিপ সংকট থাকার বিষয়েও পূর্বাভাস দিয়েছিল।

বিশ্বজুড়ে যে চিপ সংকট শুরু হয়েছে তা গাড়ি ইলেকট্রনিক পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের ওপর মারাত্মক চাপ সৃষ্টি করেছে। ফলে অনেক প্রতিষ্ঠান তাদের উৎপাদন কমাতে বা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে। যেসব প্রতিষ্ঠান চিপ সরবরাহ করে থাকে, তাদের সঙ্গে অ্যাপলের ব্যাপক ক্রয়ক্ষমতা দীর্ঘমেয়াদি সরবরাহ চুক্তি থাকায় প্রতিষ্ঠানটি সংকটের মধ্যেও ভালো অবস্থানে ছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে কিছু বিশ্লেষক জানান, চলতি বছরের শেষ নাগাদ আইফোন ১৩ সিরিজের উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পাবে। কেননা বর্তমানে গ্রাহকরা ফাইভজি প্রযুক্তির জন্য তাদের ডিভাইস আপডেট করছেন।

কাউন্টারপয়েন্ট রিসার্চের গবেষণা পরিচালক জেফ ফিল্ডহ্যাক বলেন, প্রাথমিকভাবে গ্রাহকদের আইফোন ১৩ কেনার জন্য উদ্বুদ্ধ করতে ডিভাইস উৎপাদন কমানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হতে পারে। এর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি বিক্রি বৃদ্ধির বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর অর্ডার গ্রহণ বন্ধ করে দেবে।

ফিল্ডহ্যাক জানায়, গত বছর আইফোন ১২-এর তুলনায় চলতি বছর আইফোন ১৩-এর বিক্রির পরিমাণ বেশি। পাশাপাশি বছরের চতুর্থ প্রান্তিকে কাউন্টারপয়েন্ট সাড়ে আট থেকে নয় কোটি ইউনিট আইফোন ১৩ বিক্রির যে পূর্বাভাস দিয়েছিল সেখান থেকেও সরে আসেনি।

বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে আয়ের সময় অ্যাপলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) টিম কুক সতর্ক করেছিলেন। তিনি জানান, চিপ সংকটের সঙ্গে আরো সমস্যা হতে পারে। তবে সংকট মোকাবেলায় প্রতিষ্ঠানটি তাদের সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাবে বলে জানায়।

চলমান চিপ সংকটের বিষয়টি আমলে নিয়ে আরিজোনাতে নতুন একটি চিপ কারখানা স্থাপনের কথা সামনে এনেছে টিএসএমসি ইন্টেল। গত জুনে তারা আশা প্রকাশ করে, হাজার কোটি ডলার ব্যয়ে নির্মিত কারখানাটি বর্তমান সংকট নিরসনে ভূমিকা রাখবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন