রবিবার | অক্টোবর ২৪, ২০২১ | ৯ কার্তিক ১৪২৮

আন্তর্জাতিক খবর

হুয়াওয়ে করর্মকর্তাকে মুক্তির বিনিময়ে দুই কানাডিয়কে ছাড়লো চীন

বণিক বার্তা অনলাইন

টানা তিন বছর পর কানাডায় গৃহবন্দী অবস্থা থেকে মুক্তি পেয়েছেন হুয়াওয়ের প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা (সিএফও) মেং ওয়ানঝু। এর প্রতিক্রিয়ায় চীনে আটক দুই কানাডীয় নাগরিককেও মুক্তি দিয়েছে বেইজিং।শুক্রবার কানাডা ছেড়ে চীনের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়েছেন ওয়ানঝু।  

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, কয়েক বছরের কূটনৈতিক টানাপোড়েন শেষে যুক্তরাষ্ট্রের কৌসুঁলিদের সঙ্গে করা সমঝোতার পর মুক্তি মেলে ওয়ানঝুর। 

হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতা রেন জেনফেং-এর মেয়ে মেং ওয়ানঝু। তার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের আনা অভিযোগে বলা হয়, হুয়াওয়ে সিএফও ইরানের ওপর আরোপিত মার্কিন নিষেধাজ্ঞাকে উপেক্ষা করে হুয়াওয়ের ব্যবসা সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাংকগুলোকে মিথ্যা বলেছিলেন। যদিও ওয়ানঝু ও হুয়াওয়ে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিল। 

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ জানিয়েছে, তারা মামলা স্থগিতের একটি চুক্তিতে পৌঁছেছেন। চুক্তি অনুযায়ী ওয়ানঝু স্বীকার করতে রাজি হয়েছেন যে তিনি এইচএসবিসি ব্যাংককে মিথ্যা বলেছিলেন। 

ভ্যাঙ্কুভারে গৃহবন্দী অবস্থা থেকে মুক্তি পাওয়ার পর ওয়ানঝু বলেন, আমার জীবন পুরোপুরি উল্টেপাল্টে গেছে। এটা আমার জন্য একটা বিপর্যয়কর সময় ছিল। বার্তা সংস্থা এএফপির বরাতে জানা গেছে, মুক্তির পরপরই তিনি চীনের শেনজেনগামী এয়ার চায়নার একটি বিমানে চড়েছেন।

এদিকে, গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে চীনে আটক কানাডিয়ান নাগরিক মাইকেল স্প্যাভোর ও মাইকেল কোভরিগকে মুক্তির বিষয়টি জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে স্প্যাভোর ও কোভরিগকে আটক করেছিল চীন। চলতি বছরে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মাইকেল স্প্যাভোরকে ১১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিল চীনের আদালত। সাবেক কূটনৈতিক মাইকেল কোভরিগকেও আদালতে তোলা হয়, তবে সাজা ঘোষণা হয়নি। মুক্তি পাওয়ার পর স্প্যাভোর ও কোভরিগকে কানাডায় ফিরে যাচ্ছেন। 

এক সংবাদ সম্মেলনে দুই নাগরিকের মুক্তির ব্যাপারে ট্রুডো বলেন, গত ১ হাজার দিন ধরে দুজনই অবিশ্বাস্য রকম কঠিন অবস্থার ভেতর দিয়ে গেছেন। এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের খবর- তারা দুজনই নিজের পরিবারের কাছে ফিরে যাচ্ছেন।

কোভরিগ ব্রাসেলসভিত্তিক থিংক ট্যাংক ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইসিস গ্রুপের একজন কর্মকর্তা। উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে আন্তর্জাতিক ব্যবসা এবং সাংস্কৃতিক যোগাযোগের কাজ করে থাকে এমন একটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন স্প্যাভোর। ট্রুডো জানিয়েছেন, চীনে কানাডার রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে একটি বিমানে করে আজ শনিবার সকালে স্প্যাভোর ও কোভরিগ দেশে পৌঁছাবেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন