রবিবার | অক্টোবর ২৪, ২০২১ | ৯ কার্তিক ১৪২৮

টেলিকম ও প্রযুক্তি

অবশেষে মুক্তি পেলেন হুয়াওয়ের নির্বাহী মেং ওয়াংজো

বণিক বার্তা অনলাইন

টানা তিন বছর পর কানাডায় গৃহবন্দী থাকার পর মুক্তি পেয়েছেন চীনের প্রযুক্তি জায়ান্ট হুয়াওয়ের নির্বাহী মেং ওয়াংজো। এরইমধ্যে তিনি চীনে ফিরে গেছেন। 

অন্যদিকে তার মুক্তির পর দুই কানাডীয় নাগরিক মাইকেল স্পেভার ও মাইকেল কোভরিগকে মুক্তি দিয়েছে চীন। তারাও কানাডার উদ্দেশ্যে চীন ছেড়েছেন। 

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, কয়েক বছরের কূটনৈতিক টানাপোড়েন শেষে যুক্তরাষ্ট্রের কৌসুঁলিদের সঙ্গে করা সমঝোতার পর মুক্তি মেলে ওয়াংজোর। প্রতারণার অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে আটক করেছিল কানাডা। 

হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতা রেন জেনফেং-এর মেয়ে মেং ওয়াংজো। তার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র আনা অভিযোগে বলা হয়, ওয়াংজো ইরানের ওপর আরোপিত মার্কিন নিষেধাজ্ঞাকে উপেক্ষা করে হুয়াওয়ের ব্যবসা সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাংকগুলোকে মিথ্যা বলেছিলেন। যদিও মেংও হুয়াওয়ে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছিল। 

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ জানিয়েছে, তারা মামলা স্থগিতের একটি চুক্তিতে পৌঁছেছেন। চুক্তি অনুযায়ী মেং ওয়াংজো স্বীকার করতে রাজি হয়েছেন যে তিনি এইচএসবিসি ব্যাংককে মিথ্যা বলেছিলেন। 

ভ্যাঙ্কুভারে গৃহবন্দী অবস্থা থেকে মুক্তি পাওয়ার পর মেং ওয়ানঝু বলেন, আমার জীবন পুরোপুরি উল্টেপাল্টে গেছে। এটা আমার জন্য একটা বিপর্যয়কর সময় ছিল।

এদিকে, গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে আটক কানাডীয় নাগরিক স্পেভার ও কোভরিগকে মুক্তি দেয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে ২০১৮ সালে স্পেভার ও কোভরিগকে আটক  করেছিল চীন। চলতি বছরে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে স্পেভারকে ১১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিল চীনের আদালত। সাবেক কূটনৈতিক কোভরিগকেও আদালতে তোলা হয়। তবে সাজা ঘোষণা হয়নি। মুক্তি পাওয়ার পর স্পেভার ও কোভরিগ কানাডায় ফিরে যাচ্ছেন। 

এক সংবাদ সম্মেলনে দুই নাগরিকের মুক্তির ব্যাপারে ট্রুডো বলেন, গত ১ হাজার দিন ধরে দুজনই অবিশ্বাস্য রকম কঠিন অবস্থার ভেতর দিয়ে গেছেন। এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের খবর- তারা দুজনই নিজের পরিবারের কাছে ফিরে যাচ্ছেন।

কোভরিগ ব্রাসেলসভিত্তিক থিংক ট্যাংক ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইসিস গ্রুপের একজন কর্মকর্তা। স্পেভার উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে আন্তর্জাতিক ব্যবসা ও সাংস্কৃতিক যোগাযোগের কাজ করে থাকে এমন একটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন।

ট্রুডো জানিয়েছেন, চীনে কানাডার রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে একটি উড়োজাহাজে করে শনিবার সকালে স্পেভার ও কোভরিগ দেশে পৌঁছাবেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন