রবিবার | অক্টোবর ২৪, ২০২১ | ৯ কার্তিক ১৪২৮

খবর

সি-মি-উই-৬ কনসোর্টিয়ামের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর

তৃতীয় সাবমেরিন কেবল বাস্তবায়ন কার্যক্রম শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের তৃতীয় সাবমেরিন কেবলের বাস্তবায়ন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তৃতীয় সাবমেরিন কেবল স্থাপন প্রকল্পটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সি-মি-উই- কনসোর্টিয়ামের সঙ্গে কনস্ট্রাকশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স এগ্রিমেন্ট এবং কনসোর্টিয়ামের সরবরাহকারীদের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে তৃতীয় সাবমেরিন কেবলে বাংলাদেশের যুক্ত হওয়ার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হলো।

ডাক টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বৃহস্পতিবার রাতে চুক্তি স্বাক্ষর উপলক্ষে ঢাকায় হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল) আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে দেশে ডিজিটাল সংযুক্তি বিকাশের অনন্য কার্যক্রমের যাত্রা ঘোষণা করেন।

২০২৪ সালের মধ্যে তৃতীয় সাবমেরিন কেবলটি চালু হবে বলে জানান মন্ত্রী। এর ফলে দেশে ডিজিটাল সংযুক্তি বিকাশে এক বৈপ্লবিক পরিবর্তন হবে বলে মন্ত্রী দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেন, আগামী দিনে ডিজিটাল সংযুক্তির বর্ধিত চাহিদা পূরণের মাধ্যমে ডিজিটাল দুনিয়ার সঙ্গে সি-মি-উই- নিরবচ্ছিন্ন সংযোগ স্থাপনে অভাবনীয় অবদান রাখবে। তৃতীয় সাবমেরিন কেবল সংযুক্তি ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ অগ্রযাত্রায় একটি ঐতিহাসিক মাইলফলক।

বিএসসিসিএল ব্যবস্থাপনা পরিচালক মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ডাক টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. আফজাল হোসেন, বিটিআরসি চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার এবং সিমিউই- প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক কামাল আহমেদ বক্তব্য রাখেন।

ডাক টেলিযোগাযোগমন্ত্রী বলেন, ২০০৮ সালে ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির হাত ধরে হাওর, দ্বীপ, চরাঞ্চল দুর্গম পার্বত্য অঞ্চলসহ দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে উচ্চগতির ব্রডব্যান্ড সংযোগ পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। দেশে ২০০৮ সালে মাত্র জিবিপিএস ইন্টারনেট ব্যবহার হতো এবং ব্যবহারকারী ছিল মাত্র সাত লাখ। বর্তমানে দেশে ১১ কোটি মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করে এবং ২৭০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইডথ ব্যবহার করা হচ্ছে। বাংলাদেশের জন্য তৃতীয় সাবমেরিন কেবল সংযুক্তি ডিজিটাল প্রযুক্তি দুনিয়ায় বাংলাদেশের আরো একটি ঐতিহাসিক অর্জন।

ডাক টেলিযোগাযোগ সচিব বাংলাদেশ সাবমেরিন কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আফজাল হোসেন সাবমেরিন কেবল কোম্পানির পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। কনসোর্টিয়ামের সদস্য প্রতিষ্ঠানগুলো নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে নিজ নিজ দেশ থেকে অনুরূপ চুক্তিতে স্বাক্ষর করে কনসোর্টিয়ামের অস্থায়ী সদর দপ্তর সিঙ্গাপুরে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রেরণ করবে।

মশিউর রহমান জানান, আজ দেশে ২৭০০ জিবিপিএসেরও বেশি আন্তর্জাতিক ব্যান্ডউইডথ ব্যবহার হচ্ছে, যার মধ্যে বিএসসিসিএল একাই সরবরাহ করছে প্রায় ১৬৫০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইডথ।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালের প্রথমার্ধে দেশে প্রথম সাবমেরিন কেবল কমিশনিং করা হয়। ২০২৪ সাল নাগাদ দেশে ৬০০০ জিবিপিএসেরও বেশি আন্তর্জাতিক ব্যান্ডউইডথের প্রয়োজন হবে। এরই মধ্যে ভারতের রাষ্ট্রীয় কোম্পানি বিএসএনএলের কাছে ১০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইডথ রফতানির জন্য নতুন করে চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। এছাড়া বিএসসিসিএল দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবলের পশ্চিম দিকের তথা ইউরোপের দিকের অব্যবহূত ব্যান্ডউইডথ দীর্ঘমেয়াদে লিজ দেয়ার জন্য সৌদি আরব ফ্রান্সের সঙ্গে দুটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে, মালয়েশিয়ার সঙ্গে বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষর প্রক্রিয়াধীন আছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন