রবিবার | অক্টোবর ২৪, ২০২১ | ৯ কার্তিক ১৪২৮

খবর

গ্রামীণ ব্যাংকের ৬৭ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রায় ৬৭ কোটি টাকা ভ্যাট ফাঁকি ব্যাংকিং সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ভ্যাট নিবন্ধন না নেয়ায় গ্রামীণ ব্যাংকের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ভ্যাট গোয়েন্দা তদন্ত অধিদপ্তর।

গতকাল মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে ভ্যাট গোয়েন্দার মহাপরিচালক . মইনুল খান বলেন, ব্যাংকিং নন-ব্যাংকিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবসায়িক কার্যক্রম তদন্ত করে প্রায় ৬৭ কোটি টাকা ভ্যাট ফাঁকি উদ্ঘাটন করা হয়েছে। ভ্যাট ফাঁকির প্রমাণ পাওয়ায় ব্যাংকটির বিরুদ্ধে ভ্যাট আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। একই সঙ্গে ভ্যাট আইন অনুযায়ী নিবন্ধন গ্রহণ না করে ভ্যাটযোগ্য সেবা প্রদান করায় আরেকটি মামলা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, রাজস্ব আদায়ের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তদন্ত প্রতিবেদন মামলাসংশ্লিষ্ট নথিপত্র ঢাকা পশ্চিম ভ্যাট কমিশনারেটে পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ যাতে প্রতি মাসের সব আয় ক্রয়ের তথ্য অনুযায়ী ভ্যাট পরিশোধ করে তা মনিটরিংয়ের অনুরোধ করা হয়েছে।

সম্প্রতি ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তরের উপপরিচালক নাজমুন নাহার কায়সারের নেতৃত্বে একটি দল গ্রামীণ ব্যাংকের মিরপুরের সেকশন-- অভিযান পরিচালনা করে। আভিযানিক দলটি ২০১১ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত তাদের সব নথি যাচাই-বাছাই করে। তদন্তকালে গ্রামীণ ব্যাংকের অনিয়মের তথ্য বেরিয়ে আসে।

তদন্তকালে দেখা গেছে, প্রতিষ্ঠানটি ব্যাংকিং নন-ব্যাংকিং সেবা প্রদান করে এলেও এখন পর্যন্ত ভ্যাট নিবন্ধন গ্রহণ করেনি। অথচ মূল্য সংযোজন কর আইন ১৯৯১ এর ধারা ১৫ এর উপধারা () অনুযায়ী করযোগ্য পণ্যের সরবরাহকারী বা করযোগ্য সেবা প্রদানকারীকে নিবন্ধন গ্রহণ বাধ্যতামূলক রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন