বৃহস্পতিবার | অক্টোবর ২৮, ২০২১ | ১২ কার্তিক ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

সরবরাহ চেইন ব্যাহত

গাড়ি নির্মাতাদের ২১ হাজার কোটি ডলার লোকসানের আশঙ্কা

বণিক বার্তা ডেস্ক

বিশ্বজুড়ে সরবরাহ চেইনে ব্যাঘাত ঘটায় চলতি বছর ২১ হাজার কোটি ডলার লোকসান গুনতে পারে বিশ্বব্যাপী গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। লোকসানের পরিমাণ চলতি বছরের শুরুতে দেয়া পূর্বাভাসের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ। গতকাল মার্কিন পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এলিক্সপার্টনার্সের দেয়া তথ্যে তথ্য উঠে এসেছে। খবর রয়টার্স।

বিশ্বজুড়ে চলমান চিপ ঘাটতি সংকটের একটি অংশ মাত্র। নতুন পূর্বাভাসে এমনটা মন্তব্য করেছে এলিক্সপার্টনার্স। এছাড়া ইস্পাত প্লাস্টিক রেজিনের মতো কাঁচামালের সরবরাহ সংকট উচ্চমূল্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে উৎপাদন হ্রাস এবং মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত গ্রহণে বাধ্য করছে।

নতুন পূর্বাভাস অনুযায়ী চলতি বছরে গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর বার্ষিক গাড়ি উৎপাদনের পরিমাণ ৭৭ লাখ ইউনিট কমতে পারে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি সরবরাহ চেইন অন্যান্য ইস্যুতে নানা পরামর্শ প্রদান করেছে এলিক্সপার্টনার্স। মে মাসে এলিক্সপার্টনার্সের দেয়া পূর্বাভাস অনুযায়ী চলতি বছর গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো ১১ হাজার কোটি ডলার লোকসানের সম্মুখীন হতে পারে বলে জানিয়েছিল। একই সঙ্গে সময়ে গাড়ি নির্মাতাদের বার্ষিক উৎপাদনের পরিমাণ ৩৯ লাখ ইউনিট কমতে পারে বলে পূর্বাভাসে জানায় পরামর্শক প্রতিষ্ঠানটি।

বিশ্বব্যাপী গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এবং বাণিজ্যিক ট্রাক নির্মাতাদের থেকে পাওয়া সতর্কবার্তা অনুসারে পূর্ববর্তী পূর্বাভাসে আরো সংশোধনী এনেছে এলিক্সপার্টনার্স। চলতি বছরের শেষ নাগাদ সেমিকন্ডাক্টর সংকট কাঁচামালের উচ্চমূল্য বজায় থাকার সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখে গাড়ি উৎপাদন কমে যাওয়ার আশঙ্কার কথা জানিয়েছিল বিশ্বব্যাপী শীর্ষস্থানীয় গাড়ি নির্মাতারা। তবে এমন পরিস্থিতির মোকাবেলায় কিছুটা আশার বাণীও শুনিয়েছেন শিল্পসংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতনরা। গত সপ্তাহে ২০২১ ২০২২ সালের জন্য বিশ্বব্যাপী গাড়ি নির্মাণ শিল্পের উৎপাদনের পূর্বাভাস কমিয়েছে আইএইচএস মার্কিটও।

এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে গাড়ির বিক্রি কমতে শুরু করেছে। ডিলার লটে মাত্র ২০ দিনের সরবরাহ মজুদ রয়েছে, যা স্বাভাবিক মাত্রার অর্ধেকের চেয়েও কম বলে জানান ব্যবসায়ীরা।

এলিক্সপার্টনার্সের অটো প্র্যাকটিস বিভাগের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড্যান হিয়ার্স বলেন, আমরা প্রাথমিকভাবে মনে করেছিলাম যে, আমাদের আগের অবস্থানে ফিরে আসব। বছরের চতুর্থ প্রান্তিকে বিক্রির পরিমাণ আগের মতো ফিরে আসবে। তবে এটি এখন আর সম্ভব নয়। এর পরিবর্তে গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোকে তাদের উৎপাদন পরিমাণের তালিকা ২০২২ সালের শেষ নাগাদ অথবা ২০২১ সালের শুরু পর্যন্ত কমিয়ে আনতে হবে। বিভিন্ন দেশে কভিড-১৯-এর ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ বৃদ্ধি উল্লেখযোগ্য মার্কিন সমুদ্রবন্দরগুলোতে কার্গো জটের মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ায় কাঁচামাল সংকট আমদানি কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। ফলে এর প্রভাব পড়ছে গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর স্বাভাবিক কার্যক্রমে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন