শনিবার | অক্টোবর ২৩, ২০২১ | ৮ কার্তিক ১৪২৮

পণ্যবাজার

আগস্টে পাম অয়েল আমদানি বাড়িয়েছে ভারত

বণিক বার্তা ডেস্ক

পাম অয়েল আমদানি বাড়িয়েছে ভারত। আগস্টে লাখ ৫০ হাজার ১৩৪ টন পাম অয়েল আমদানি করা হয়। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় আমদানি শতাংশ বেড়েছে। নিয়ে টানা তিন মাস পাম অয়েল আমদানি বাড়িয়েছে ভারত। খবর বিজনেস রেকর্ডার।

ভারত বিশ্বে শীর্ষ ভোজ্যতেল ক্রেতা দেশ। চলতি বছরের ৩০ জুন দেশটির সরকার ছয় মাসের জন্য পরিশোধিত পাম অয়েল আমদানির অনুমতি দিয়েছে। উদ্দেশ্য দেশটির ভোজ্যতেলের আকাশচুম্বী দাম নিয়ন্ত্রণ করা। ভারতে প্রধান প্রধান ধর্মীয় উৎসব কেন্দ্র করে বাড়ছে পাম অয়েলের চাহিদা। ফলে অনুমতি পাওয়ার পর থেকেই পরিশোধিত পাম অয়েল ক্রয়ের পরিমাণও বাড়িয়েছেন আমদানিকারকরা।

সলভেন্ট এক্সট্রাক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া (এসইএ) এক বিবৃতিতে জানায়, এক বছর আগেও পরিশোধিত পাম অয়েল আমদানি ছিল শূন্যের কোটায়। কিন্তু বছরের আগস্টে ভারতে লাখ ৮৭ হাজার ৪৭১ টন পরিশোধিত পাম অয়েল আমদানি করা হয়েছে।

এসইএর নির্বাহী পরিচালক বিভি মেহতা বলেন, ভারত আমদানিনীতি শিথিল করায় আগস্টে যথেষ্ট পরিমাণে পরিশোধিত পাম অয়েল আমদানি বেড়েছে। আগামী মাসগুলোতেও একই হারে পরিশোধিত পাম অয়েল আমদানি করা হবে।

এদিকে পাম অয়েল আমদানি বাড়লেও অন্যান্য ভোজ্যতেল আমদানি কমিয়েছে ভারত। আগস্টে দেশটি লাখ ৮২ হাজার ৪৫৯ টন সয়াবিন তেল আমদানি করে। গত বছরের তুলনায় আমদানির পরিমাণ ছিল অর্ধেক। এদিকে সূর্যমুখী তেল আমদানি এক বছরের ব্যবধানে ৫৫ শতাংশ কমেছে। আগস্টে দেশটি সব মিলিয়ে ৭১ হাজার ৩৪০ টন সূর্যমুখী তেল আমদানি করে।

পাম অয়েল উৎপাদনে বিশ্বের শীর্ষ দেশ ইন্দোনেশিয়া মালয়েশিয়া। দুই দেশ থেকেই পণ্যটি আমদানি করে ভারত। এছাড়া সয়াবিন সূর্যমুখীসহ অন্যান্য ভোজ্যতেল আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, ইউক্রেন রাশিয়া থেকে ক্রয় করা হয়।

ঊর্ধ্বমুখী বাজারে লাগাম টেনে ধরতে চলতি মাসে ভোজ্যতেলের আমদানি শুল্ক হ্রাস করেছে ভারত সরকার। ফলে মাসে ভোজ্যতেল আমদানি বাড়ার সম্ভাবনা দেখছেন বাজারসংশ্লিষ্টরা।

মুম্বাইভিত্তিক ভোজ্যতেলের একজন ডিলার জানান, বছরের সময় ভারতে ভোজ্যতেলের চাহিদা থাকে অন্য যেকোনো সময়ের তুলনায় বেশি। এক্ষেত্রে আমদানি শুল্ক হ্রাস বাজারে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনবে।

ভারত অপরিশোধিত পাম অয়েলের আমদানি শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে দশমিক শতাংশে নিয়ে এসেছে।

অপরিশোধিত সয়াবিন তেল অপরিশোধিত সূর্যমুখী তেলের আমদানি শুল্ক দশমিক থেকে কমিয়ে দশমিক শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন