শনিবার | সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১ | ১০ আশ্বিন ১৪২৮

দেশের খবর

কলারোয়ায় ফোর মার্ডার মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়নের খলিসা গ্রামে স্বামী-স্ত্রী ও তাদের দুই সন্তানসহ একই পরিবারের চারজনকে হত্যার ঘটনায় নিহত শাহিনুরের আপন ভাই এবং মামলার একমাত্র আসামি রায়হানুল ইসলামকে দোষী সাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল দুপুরে সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান জনাকীর্ণ আদালতে আসামির উপস্থিতিতে এ আদেশ দেন। একই আদেশে আসামিকে সাতদিনের মধ্যে উচ্চ আদালতে আপিলের জন্য সময় দেয়া হয়েছে।

ফাঁসির দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত আসামি রায়হানুল ইসলাম (৩৬) কলারোয়া উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়নের খলিসা গ্রামের প্রয়াত ডা. শাহজাহান আলীর ছেলে।

এর আগে, এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সাতক্ষীরা সিআইডি পুলিশ পরিদর্শক শফিকুল ইসলাম দীর্ঘ তদন্ত শেষে চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি আসামি রায়হানুলের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। একই সঙ্গে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আসাদুল, রাজ্জাক ও আব্দুল মালেককে এ মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। এ মামলার একজন সাফাই সাক্ষীসহ ১৮ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আসামি রায়হানুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক তাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার আদেশ দেন। এদিকে এ মামলার রায় শোনার পর রায়হানুলের স্বজনরা আদালতের বারান্দায় কান্নায় ভেঙে পড়েন।

চাঞ্চল্যকর এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আব্দুল লতিফ বলেন, এটি যুগান্তকারী রায় হয়েছে। এই রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন তিনি।

আসামি পক্ষের আইনজীবী এসএম হায়দার ও ফরহাদ হোসেন বলেন, আমরা এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করব।

উল্লেখ্য, পারিবারিক কলহের জের ধরে গত বছরের ১৫ অক্টোবর ভোররাতে কলারোয়া উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়নের খলিসা গ্রামের প্রয়াত ডা. শাহজাহান আলীর ছেলে মৎস্য হ্যাচারি মালিক শাহিনুর, তার স্ত্রী সাবিনা খাতুন, ছেলে সিয়াম হোসেন মাহী ও মেয়ে তাসনিম সুলতানাকে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে একে একে গলা কেটে হত্যা করে তার আপন ভাই রায়হানুল। পরদিন লোমহর্ষক এ ঘটনায় কলারোয়া থানায় মামলা করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন